"কেউটে সাপ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্প্রসারণ
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
(সম্প্রসারণ)
| range_map_caption = ''গোক্ষুর গোখরা'' বিস্তৃতি
}}
'''কেউটেগোক্ষুর সাপগোখরা''' (বৈজ্ঞানিক নাম ''Naja kaouthia,''), যাকেইংরেজিতে ''monocellate'monocled cobra)''' বলা হয়, বাংলায় গোক্ষুর গোখরাহল [[Najaকোবরা|গোখরা]] প্রজাতির একটি সাপ যা [[দক্ষিণ এশিয়া|দক্ষিণ]] এবং [[দক্ষিণপূর্ব এশিয়া]] দেখা যায়। এটিকে [[IUCN|আইইউসিএন]] কর্তৃক [[ন্যূনতম বিপদগ্রস্ত]] তালিকাভুক্ত করা হয়েছে।<ref name=iucn>{{IUCN |assessor=Stuart, B. |assessor2=Wogan, G. |last-assessor-amp=yes |year=2012 |id=177487 |taxon=Naja kaouthia |version=2016.2}}</ref> এ গোখরোর ফণার পিছনে গরুর ক্ষুর বা পুরোনো দিনের ডাঁটি ছাড়া জোড়া-চোখো চশমার মত দাগ থাকে তারযার থেকে নামবাংলা গোক্ষুর নামটি এসেছে। ইংরেজিতে মনোকলড অর্থ হল একচোখা সাপটিকে মনোকলড বলার কারন হল গোক্ষুর।এই আবারসাপের ফণার পিছনে গোল দাগ থাকে তাইযা গোখরোর দুচোখার পরিবর্তেদেখতে একচোখা চশমাচশমার বামত মনোকল-এর উপমা দিয়েতাই এর ইংরেজি নাম মনোকল্ড কোবরা। সকল গোখরা প্রজাতির সাপ উত্তেজিত হলে ওদের ঘাড়ের লম্বা হাড় স্ফীত হয়ে ওঠে, তাতে চমৎকার ফণাটি বিস্তৃত হয়।
 
বাংলাদেশের ২০১২ সালের বন্যপ্রাণী (সংরক্ষণ ও নিরাপত্তা) আইনে এ প্রজাতিটি সংরক্ষিত।<ref>বাংলাদেশ গেজেট, অতিরিক্ত, জুলাই ১০, ২০১২, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার, পৃষ্ঠা-১১৮৫০৮</ref>
== ব্যুৎপত্তি ==
কেউটে শব্দটি এসেছে [[সংস্কৃত ভাষা|সংস্কৃত]] শব্দ কালকূট থেকে।
 
== শ্রেণীবিন্যাস ==
[[দ্বিপদ নামকরণ|বৈজ্ঞানিক নাম]] ''নাজা কৌথিয়া'' [[রেন পাঠ|১৮৩১ সালে রেন লেসন]] প্রস্তাব করেছিলেন। তিনি মনোকলড কোবরাকে একটি সুন্দর সাপ হিসাবে বর্ণনা করেছিলেন যা [[স্পেকটাকলড কোবরা|খৈয়া গোখরা]] থেকে পৃথক। এর ১৮৮ ভেন্ট্রাল স্কেল এবং ৫৩ জোড়া শৈলাকার আঁশ বিন্যাস রয়েছে।
 
সেই থেকে বেশ কয়েকটি মনোকলড কোবরা বিভিন্ন [[দ্বিপদ নামকরণ|বৈজ্ঞানিক নামে]] বর্ণিত হয়েছিল:
 
* ১৮৩৪ সালে [[জন অ্যাডওয়ার্ড গ্রে|জন এডওয়ার্ডসের গ্রে]] প্রকাশিত [[টমাস হার্ডউইক|টমাস হার্ডউইকস]] এর অধীনে একটি মনোকলড কেউটের প্রথম চিত্রণ করেন ট্রাইনোমিয়ান নোমেনক্লেচারের ভিত্তিতে নাজা ট্রাইপুডিয়ানস ভার.''ফ্যাসিটা'' (''Naja tripudians'' Var fasciata) । <ref>{{বই উদ্ধৃতি|শিরোনাম=Illustrations of Indian zoology chiefly selected from the collection of Maj.-Gen. Hardwicke|শেষাংশ=Gray, J. E.|অধ্যায়ের-ইউআরএল=https://archive.org/stream/IllustrationsOfIndianZoology2/Hardwicke2#page/n164/mode/1up|বছর=1834|প্রকাশক=|পাতা=Plate 78|অধ্যায়=''Cobra Capella''}}</ref>
* ১৮৩৯ সালে, [[থিওডোর এডওয়ার্ড ক্যান্টর]] [[মুম্বই|বোম্বাই]], [[কলকাতা]] এবং [[আসাম|আসামে]] [[দ্বিপদ নামকরণ|ট্রাইনোমিয়ান নোমেনক্লেচারের ভিত্তিতে]] ''নাজা লার্ভাতার'' (''Naja larvata'') অধীনে সাদা আংটির চিহ্নযুক্ত একটি বাদামী বর্ণের মনোকলড কোবরার বর্ণনা করেছিলেন। <ref>{{সাময়িকী উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://archive.org/stream/proceedingsofgen36zool#page/n557/mode/2up|শিরোনাম=''Naja larvata''|শেষাংশ=Cantor, T.|বছর=1839|পাতাসমূহ=32–33}}</ref>
 
১৮৯৫ এবং ১৯১৩ এর মধ্যে ''দ্বিপদী নাজা ট্রিপুডিয়ানদের'' অধীনে বিভিন্ন জাতের মনোকলড কোবরা বর্ণিত হয়েছিল:
 
* ''এন জে'' ভার ''স্কোপিনিচা'' ১৮৯৫
* ''এন জে'' ভার ''একরঙা'' ১৮৭৬
* ''এন জে'' ভার ''ভিরিডিস'' ১৯১৩
* ''এন জে'' ভার ''সগিত্তিফের'' ১৯১৩
 
১৯৪০ সালে [[ম্যালকম আর্থার স্মিথ]] ''মনোকলড কোবরাকে ট্রাইনোমিয়াল নাজা নাজা কৌথিয়ার'' অধীনে [[স্পেকটাকলড কোবরা|স্পেকটাকলড কোবরার]] উপ-প্রজাতি হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ করেন। <ref>{{সাময়িকী উদ্ধৃতি|ইউআরএল=|শিরোনাম=''Naja naja kaouthia''|শেষাংশ=Smith, M. A.|বছর=1940|পাতাসমূহ=485}}</ref> ১৯৯০ এর দশকে পুনশ্রেণীকরণের সময়ে ''Naja kaouthia'' কে আলাদা করা হয় ''[[ইন্দোচীনা স্পিটিং কোবরা|Naja siamensis]] প্রজাতি থেকে। নাজা সিয়ামেনসিস নামটি'' সাধারণভাবে পুরোনো শ্রেণীকরণ অনুযায়ী গবেষণায় ব্যবহৃত একটি কমন নাম ছিল। <ref>{{সাময়িকী উদ্ধৃতি|শিরোনাম=Taxonomic changes and toxinology: Systematic revisions of the Asiatic cobras (''Naja naja'' species complex)|শেষাংশ=Wüster|প্রথমাংশ=W.|তারিখ=1996|পাতাসমূহ=399–406|doi=10.1016/0041-0101(95)00139-5}}</ref>
 
থাইল্যান্ডে [[ফাইলোজেনেটিক]] গবেষণায় নাজা কৌথিয়া প্রজাতির বিস্ময়কর প্রকরণ প্রদর্শিত হয়েছে। অন্যান্য এশিয়াটিক কোবরার সঙ্গে প্রজাতির বিস্ময়কর প্যারাফাইলেটিক প্রকরণ রয়েছে।<ref>{{সাময়িকী উদ্ধৃতি|শিরোনাম=Geographical differentiation and cryptic diversity in the monocled cobra, ''Naja kaouthia'' (Elapidae), from Thailand|শেষাংশ=Ratnarathorn|প্রথমাংশ=N.|শেষাংশ২=Harnyuttanakorn|প্রথমাংশ২=P.|তারিখ=2019|পাতাসমূহ=711–726|doi=10.1111/zsc.12378}}</ref>
 
==বৈশিষ্ট্য==
২,২২২টি

সম্পাদনা