মল: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সংশোধন
(পুনর্নির্দেশিত বিষয়শ্রেণী:শারীরবিদ্যা সরিয়ে মূল বিষয়শ্রেণী:শারীরবৃত্ত স্থাপন)
(সংশোধন)
 
== বাস্তুতন্ত্রে ভূমিকা ==
[[প্রাণী]] যে খাদ্য গ্রহণ করে পরিপাকের পর তার অবশিষ্টাংশ বর্জ্য বা মল হিসেবে নির্গত হয়। যদিও খাদ্যের বেশিরভাগ [[পুষ্টি]] ই প্রাণীর শরীরে শোষিত হয়ে যায় তবুও মলে সর্বোচ্চ ৫০% পর্যন্ত পুষ্টি উপাদান থাকতে পারে।<ref>Biology(4th edition) N.A.Campbell (Benjamin Cummings NY, 1996) [[ISBN 0-8053-1957-3]]</ref> এই পুষ্টি উপাদানের উপর নির্ভর করে অনেক প্রাণী বেঁচে থাকে যেমন [[ব্যাক্টেরিয়া]], [[ছত্রাক]], [[গুবরে পোকা|গুবরে পোকাসহ]] বহু প্রাণী যারা দূরবর্তী স্থান থেকে ঘ্রাণ সংবেদ করতে পারে।<ref>{{সাময়িকী উদ্ধৃতি |ডিওআই=10.1038/scientificamerican1179-146 |লেখক=Heinrich B, Bartholomew GA |শিরোনাম=The ecology of the African dung beetle |সাময়িকী=[[Scientific American]] |খণ্ড=241 |সংখ্যা নং= 5|পাতাসমূহ=146–56 |বছর=1979}}</ref> কিছু প্রানীপ্রাণী সম্পূর্ণ মল ভক্ষণের ওপর নির্ভর করে থাকে এবং কিছু প্রাণী এর পাশাপাশি অন্য [[খাদ্য|খাদ্যও]] ভক্ষণ করে থাকে। এছাড়া বহু প্রাণী অন্য প্রাণীর ত্যাগ করা মল এবং [[মূত্র]]কে চিহ্ন হিসেবে ব্যবহার করে শিকারের খোঁজ করে থাকে। এছাড়া পরোক্ষভাবেও বহু প্রাণী মলের উপর নির্ভর করে।
 
[[পাখি]] ও অন্যান্য প্রাণী যে ফল খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করে তার [[বীজ]] অনেক ক্ষেত্রেই পরিপাক হয় না এবং মলের সাথে বেরিয়ে আসে। এভাবে প্রাণীর মলের মাধ্যমে উদ্ভিদের [[প্রজাতি|প্রজাতিগুলো]] একস্থান হতে দূরবর্তী স্থানসমূহে ছড়িয়ে পড়ে এবং [[বন|বনায়নসহ]] বাস্তুতন্ত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। বিভিন্ন প্রাণীর মল [[ব্যাক্টেরিয়া]] ও অন্যান্য বিয়োজোকের মাধ্যমে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জৈব অণু সৃষ্টি করে যেগুলি উদ্ভিদ [[সালোকসংশ্লেষণ]] প্রক্রিয়ায় [[শর্করা]] প্রস্তুতিতে ব্যবহার করে সমগ্র প্রাণীজগতের জন্য খাদ্যের যোগান দেয়।