"উপার্থকতা ও অধ্যর্থকতা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
 
ভাষাবিজ্ঞানের আলোচনায় '''উপার্থকতা''' ও '''অধ্যর্থকতা''' বলতে দুইটি শব্দের মধ্যে এক ধরনের আর্থ সম্পর্ককে নির্দেশ করেকরা হয়, যেখানে একটি শব্দকে দ্বিতীয় একটি শব্দের একটি উপপ্রকার হিসেবে কিংবা দ্বিতীয় শব্দটির [[আর্থ ক্ষেত্র|আর্থ ক্ষেত্রের]] অন্তর্ভুক্ত হিসেবে গণ্য করা হয়। এক্ষেত্রে প্রথম শব্দটিকে '''উপার্থক শব্দ''' এবং দ্বিতীয় শব্দটিকে '''অধ্যর্থক শব্দ''' বলে। অন্যভাবে বললে, একটি অধ্যর্থক শব্দ হল একটি শ্রেণীনির্দেশক শব্দ, এবং উপার্থক শব্দ হল সেটির একটি দৃষ্টান্ত। অধ্যর্থক শব্দের আর্থ ক্ষেত্রটি তুলনামূলকভাবে অধিক প্রশস্ত, অন্যদিকে উপার্থক শব্দের আর্থ ক্ষেত্র তুলনামূলকভাবে কম প্রশস্ত বা অধিক সীমিত।
 
যেমন ''কবুতর'', ''কাক'', ''চড়ুই'', ''দোয়েল'' এই সবগুলি শব্দ হল ''পাখি'' শব্দটির উপার্থক শব্দ; বিপরীতক্রমে ''পাখি'' হল ঐ শব্দগুলির অধ্যর্থক শব্দ। অন্য ভাষায় ''পাখি'' হল একটি শ্রেণী এবং ''কাক'', ''চড়ুই'', ইত্যাদি হল পাখির কিছু দৃষ্টান্ত। আবার ''পাখি'' শব্দটি ''প্রাণী'' শব্দটির একটি উপার্থক শব্দ এবং বিপরীতক্রমে ''প্রাণী'' শব্দটি ''পাখি'' শব্দের ''অধ্যর্থক শব্দ''।<ref>{{cite book |first1=Victoria |last1=Fromkin |last2=Robert |first2=Rodman |title=Introduction to Language |isbn=978-0-03-018682-0 |year=1998 |publisher=Harcourt Brace College Publishers |location=Fort Worth |edition=6th |url-access=registration |url=https://archive.org/details/introductiontola00from_1 }}{{page needed|date=January 2014}}</ref>
৪৭,৯৩৪টি

সম্পাদনা