"কম্পরাম সিং" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎রাজনৈতিক জীবন: সম্প্রসারণ
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
(→‎রাজনৈতিক জীবন: সম্প্রসারণ)
 
==রাজনৈতিক জীবন==
কম্পরাম সিং ১৯৪০-এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে লাহিড়ীহাটে জমিদারদের স্বেচ্ছাচারমূলক তোলা আদায়ের বিরুদ্ধে কৃষকদের সংগঠিত করেন, যা রাজনৈতিক ইতিহাসে "তোলাবাটি" আন্দোলন নামে খ্যাত হয়। এই আন্দোলনে নেতৃত্বদানের দায়ে গ্রেফতারবরন করেন এবং তিনমাস বন্দী জীবন কাটান। তোলাবটি আন্দোলন শেষ না হতেই সমগ্র [[উত্তরবঙ্গ|উত্তরবঙ্গে]] বর্গা চাষীদের তেভাগা আন্দোলন সংগঠিত হয় এবং কম্পরাম সিং সেই আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। তিনি [[বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা|বালিয়াডাঙ্গী]], [[রাণীশংকৈল উপজেলা|রাণীশংকৈল]], [[আটোয়ারী উপজেলা|আটোয়ারী]] থানায় তেভাগা আন্দোলনে নেতৃত্ব প্রদান করেন। এই সময় তার উপর সরকারি হুলিয়া থাকায় দুই বছর আত্মগোপন করেন।<ref name="একাডেমী"/>
 
১৯৪৭ সালে বঙ্গীয় প্রাদেশিক পার্টি সম্মেলনে প্রতিনিধিরূপে নির্বাচিত হন।
 
তোলাবটি আন্দোলন শেষ না হতেই সমগ্র [[উত্তরবঙ্গ|উত্তরবঙ্গে]] বর্গা চাষীদের তেভাগা আন্দোলন সংগঠিত হয় এবং কম্পরাম সিং সেই আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। তিনি [[বালিয়াডাঙ্গী উপজেলা|বালিয়াডাঙ্গী]], [[রাণীশংকৈল উপজেলা|রাণীশংকৈল]], [[আটোয়ারী উপজেলা|আটোয়ারী]] থানায় তেভাগা আন্দোলনে নেতৃত্ব প্রদান করেন। এই সময় তার উপর সরকারি হুলিয়া থাকায় দুই বছর আত্মগোপন করেন।<ref name="একাডেমী"/>
 
==পাকিস্তানকালীন রাজনীতি==
৩২,৪৫০টি

সম্পাদনা