"বাঁকুড়া সদর মহকুমা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বাঁকুড়া সদর মহকুমার নামকরণ করা হয়েছে এই মহকুমার সদর [[বাঁকুড়া]] শহরের নামানুসারে। "বাঁকুড়া" নামটির ব্যুৎপত্তি প্রসঙ্গে একাধিক মত প্রচলিত রয়েছে। [[হো ভাষা|কোল]]-[[মুন্ডা ভাষাসমূহ|মুন্ডা]] ভাষায় "বাঁকু" শব্দের অর্থ "অত্যন্ত সুন্দর" এবং "ওড়া" বা "ড়া" শব্দের অর্থ "জনবসতি"। অপরপক্ষে, বাঁকুড়া নামটির উৎস [[বাংলা ভাষা|বাংলা]] "বাঁকা" অর্থাৎ "বক্র" বা "বঙ্কিম" শব্দটিও হতে পারে, যা এই অঞ্চলের আঁকাবাঁকা গ্রাম্য পথের দ্যোতক। বাঁকুড়া জেলার সর্বাধিক প্রভাবশালী [[পশ্চিমবঙ্গের আদিবাসী ও লৌকিক দেবদেবী|লোকদেবতা]] [[ধর্মঠাকুর]] স্থানীয়ভাবে "বাঁকুড়া রায়" নামে পূজিত হন। এই "বাঁকুড়া রায়" নামটি থেকেও শহরের নামকরণ হওয়া সম্ভব।<ref>{{cite web | url=http://www.bankura.org/site/History.htm | title=Welcome to Historical Details of Bankura |work= Origin of Name| publisher=www.bankura,org | access-date=11 July 2009}}</ref> একটি প্রথাগত বিশ্বাস অনুযায়ী, বাঁকুড়া শহরের নামকরণ হয়েছিল এই শহরের প্রতিষ্ঠাতা বাঁকু রায় নামে এক গোষ্ঠীপতির নামানুসারে। আবার অপর একটি কিংবদন্তি অনুযায়ী, এই শহরের নামকরণ করা হয়েছিল [[বিষ্ণুপুর, বাঁকুড়া জেলা|বিষ্ণুপুরের]] [[মল্লভূম|মল্ল]] রাজা [[বীর হাম্বীর|বীর হাম্বীরের]] পুত্র বীর বাঁকুড়ার নামানুসারে। বীর হাম্বীর তাঁর রাজ্যকে বাইশটি তরফ অর্থাৎ এলাকায় বিভক্ত করে তাঁর বাইশ পুত্রের প্রত্যেককে একটি করে তরফ দান করেছিলেন। জয়বেলিয়া তরফটি পড়েছিল বীর বাঁকুড়ার ভাগে। তিনিই তাঁর নামাঙ্কিত এই শহরটি গড়ে তুলেছিলেন। আবার বাঁকুড়া নামটিকে [[সংস্কৃত ভাষা|সংস্কৃত]] "বানকুণ্ড" (অর্থাৎ "পাঁচটি পুষ্করিণী") নামের অপভ্রংশও মনে করা হয়। পুরনো সরকারি নথিপত্রে ইংরেজি ''বাকুন্ডা'' (''Bacoonda'') বানানটি পাওয়া যায়।<ref name= omalley1>O’Malley, L.S.S., ICS, ''Bankura'', Bengal District Gazetteers, pp. 1-20, first published 1908, 1995 reprint, Government of West Bengal</ref>
 
==ভূগোল==
==প্রশাসনিক বিভাগ==
{{OSM Location map