"বাঁকুড়া সদর মহকুমা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

 
===শুশুনিয়া===
{{main|শুশুনিয়া}}
বাঁকুড়া সদর মহকুমার উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে [[ছাতনা সমষ্টি উন্নয়ন ব্লক|ছাতনা সমষ্টি উন্নয়ন ব্লকের]] সদর [[ছাতনা]] থেকে ১০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে অবস্থিত [[শুশুনিয়া]] পাহাড় এই মহকুমার একটি জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র।<ref>Social Search, 1995. Published by Bankura Exploration Nature Academy, Kenduadihi, Bankura 722102, West Bengal, India.</ref> এই পাহাড়টির উচ্চতা {{convert|440|m}}।<ref name= omalley1>O’Malley, L.S.S., ICS, ''Bankura'', Bengal District Gazetteers, pp. 1-20, first published 1908, 1995 reprint, Government of West Bengal</ref> পাহাড়টি একটি প্রত্নস্থল তথা পর্বতারোহণ প্রশিক্ষণ কেন্দ্র।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি | ইউআরএল = http://www.rockclimbing.com/cgi-bin/forum/gforum.cgi?post=1061935 | শিরোনাম = Rock Climbing | সংগ্রহের-তারিখ = 2008-03-19 | শেষাংশ = | প্রথমাংশ = | কর্ম = | প্রকাশক = | আর্কাইভের-ইউআরএল = https://web.archive.org/web/20120308200125/http://www.rockclimbing.com/cgi-bin/forum/gforum.cgi?post=1061935 | আর্কাইভের-তারিখ = ২০১২-০৩-০৮ | অকার্যকর-ইউআরএল = হ্যাঁ }}</ref> শুশুনিয়া পাহাড় ও তার আশেপাশের অঞ্চল থেকে [[প্রাচীন প্রস্তরযুগ|প্রাচীন]] ও [[মধ্য প্রস্তর যুগ|মধ্য প্রস্তরযুগের]] বিভিন্ন অস্ত্রশস্ত্র এবং প্রাগৈতিহাসিক হাতি, মোষ, ঘোড়া প্রভৃতি প্রাণীর জীবাশ্ম আবিষ্কৃত হয়েছে।<ref>''প্রাগৈতিহাসিক শুশুনিয়া'', পরেশচন্দ্র দাশগুপ্ত, প্রত্নতত্ত্ব ও সংগ্রহালয় অধিকার, তথ্য ও সংস্কৃতি বিভাগ, পশ্চিমবঙ্গ সরকার, কলকাতা, ২০১৯ সংস্করণ, পৃ. ১৫-২২</ref> খ্রিস্টীয় তৃতীয় শতাব্দীতে পুষ্করণার (অধুনা [[পোখরনা]]) রাজা [[চন্দ্রবর্মণ|চন্দ্রবর্মণের]] একটি শিলালিপিও পাওয়া গিয়েছে শুশুনিয়া থেকে।<ref>Majumdar, R.C., ''History of Ancient Bengal'', pp. 32, 444, Tulshi Prakashani.</ref> শুশুনিয়ার কাছে ছাতনা থানা এলাকার বিন্ধ্যজাম গ্রাম ও [[শালতোড়া]] থানা এলাকার নেতকমলা গ্রাম এই মহকুমার দু’টি প্রসিদ্ধ [[ডোকরা]] শিল্পকেন্দ্র।<ref>Ghosh, Binoy, ''Paschim Banger Sanskriti'', (in Bengali), part I, 1976 edition, pp. 408-409, Prakash Bhaban</ref>