"গোলপাতার গুড়" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সংশোধন
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
(সংশোধন)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
 
[[চিত্র:Chek Jawa 7, Aug 07.JPG|thumb|এরকম ফলওয়াটা ডাঁটি কেটে রস আহরণ করা হয় গোলপাতার গুড় তৈরী করার জন্যে।]]
''''গোলপাতার গুড়''' [[গোলপাতা|গোল গাছের]] রস থেকে তৈরি করা হয়। গোলপাতার গুড় [[বাংলাদেশ|বাংলাদেশের]] [[পটুয়াখালী জেলা]]র [[কলাপাড়া উপজেলা]]র চারটি ইউনিয়নে তৈরি করা হয়। গোল গাছের রস খেঁজুর রসের মতো সকাল এবং সন্ধ্যায় আহরণ করে আগুনের উত্তাপে শুকিয়ে ঝোলা গুড় তৈরী করা হয়<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=গোলপাতারগুড়। |কর্ম=[[দৈনিক কালের কন্ঠ]] |ইউআরএল=https://www.kalerkantho.com/print-edition/priyo-desh/2015/02/09/185570 |সংগ্রহের-তারিখ=৮ ডিসেম্বর ২০১৯}}</ref>। বরিশাল অঞ্চলে গুড়কে মিঠা বলা হয়। স্বাদের গুণগত ভিন্নতার কারণে গোলপাতার গুড়কে [[খেজুরের গুড়]] এবং [[তালের গুড়]] থেকে সহজে আলাদা করা যায়৷<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=উপকূলের ব্যতিক্রমী ফসল গোলপাতার রস আর গুড়। |কর্ম=[[বাংলাদেশ প্রতিদিন]]|ইউআরএল=https://www.bd-pratidin.com/amp/editorial/2017/02/06/205794 |সংগ্রহের-তারিখ=৮ ডিসেম্বর ২০১৯}}</ref>
 
বাংলাদেশ ইক্ষু গবেষণা ইন্সটিটিউটের তত্ত্বাবধানে বাগেরহাটের মংলা উপজেলার মিঠাখালী ইউনিয়নের খোনকারবেড় গ্রামে গোলপাতার রস থেকে গুড় তৈরীর প্রকল্প চালু আছে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=গোলপাতার রস থেকে গুড় তৈরীর প্রকল্প |ইউআরএল=https://archive.ittefaq.com.bd/index.php?ref=MjBfMDJfMjRfMTNfNF80MF8xXzIxMzEz |সংগ্রহের-তারিখ=৮ ডিসেম্বর ২০১৯ |কর্ম=দৈনিক ইত্তেফাক}}</ref> স্বাদের পাশাপাশি গোলের গুড়ের ঔষধিগুণ আছে।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি |শিরোনাম=পটুয়াখালীর হাটবারে বিশেষ আকর্ষণ গোলপাতার গুড় |ইউআরএল=https://www.channelionline.com/amp/%E0%A6%AA%E0%A6%9F%E0%A7%81%E0%A7%9F%E0%A6%BE%E0%A6%96%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%80%E0%A6%B0-%E0%A6%B9%E0%A6%BE%E0%A6%9F%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%B6%E0%A7%87%E0%A6%B7/ |প্রকাশক=[[চ্যানেল আই]] |সংগ্রহের-তারিখ=৮ ডিসেম্বর ২০১৯}}</ref>