"রজার বেকন" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্প্রসারণ
(সম্প্রসারণ)
(সম্প্রসারণ)
পরবর্তী দশকে একজন বেসরকারী পণ্ডিত হিসাবে হিসেবে তার অবস্থান অনিশ্চিত হয়ে পরে, তবে আনুমানিক ১২৪৮ সালে তিনি সম্ভবত অক্সফোর্ডে ছিলেন যেখানে আদম মার্সের সাথে তার সাক্ষাৎ হয় এবং ১২৫১ সালে দিকে তিনি প্যারিসে অবস্থান করেন। ''ওপাস তেরতিয়াম-''এর একটি উদ্ধৃতিতে উল্লেখ রয়েছে যে তিনি অধ্যয়ন ও গবেষণা থেকে দুই বছর বিছিন্ন ছিলেন। ধারনা করা হয় তিনি [[গ্রিক ভাষা|গ্রিক]] এবং আরবিতে আলোকবিদ্যা সম্পর্কিত লেখনী নিয়ে অধ্যয়ন ও গবেষণা করেন।<ref name=":2">{{বই উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://books.google.com.bd/books?id=QjhkAAAAcAAJ&redir_esc=y|শিরোনাম=The Worthies of the United Kingdom; Or Biographical Accounts of the Lives of the Most Illustrious Men, in Arts, Arms, Literature and Science, Connected with Great Britain. With Numerous Portraits, Etc|শেষাংশ=WORTHIES|তারিখ=1828|প্রকাশক=Knight&Lacey|ভাষা=en}}</ref>
 
গ্রোসেটেস্টে এবং মার্শের মতো ইংরেজ ফ্রান্সিসকান পণ্ডিতদের অনুসরন করে ১২৫৬ বা ১২৫৭ সালের দিকে তিনি [[প্যারিস]] বা অক্সফোর্ডে একজন খ্রীষ্টান ভিক্ষু নিজুক্ত হন। ১২৬০ সালের পরে আইনসভায় অনুমোদিত বিধিবদ্ধ আইন দ্বারা বেকনের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ করা হয় এবং পূর্বানুমোদন ব্যতীত তার কোন বই বা পত্রপত্রিকায় লিখনি নিষিদ্ধ করা হয়। তাঁর চিন্তাভাবনা, অধ্যয়ন ও গবেষণা সীমাবদ্ধ করার জন্য তাঁকে সম্ভবত অবিরাম দাস্যপূর্ণদাস্যতপূর্ণ কাজে রাখা হয়েছিল। ১২৬০ এর দশকের মাঝামাঝি সময়ে তিনি এমন পৃষ্ঠপোষকদের অনুসন্ধান করেছিলেন যাঁরা তাকে অক্সফোর্ডে ফিরে আসার অনুমতি এবং প্রয়োজনীয় তহবিল করে দিতে পারেন। বেকন শেষ পর্যন্ত তার কিছু সুপরিচিত ব্যক্তির মাধ্যমে তখনকার শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তিবরগের হস্তক্ষেপ পেতে ইংল্যান্ডের রাজা এবং ব্যারোনিয়াল দলগুলির মধ্যে মধ্যস্থতা করেছিলেন। ১২৬৩ বা ১২৬৪ সালের দিকে, বেকনের বার্তাবাহক, লাউনের রেমন্ডের দ্বারা প্রচারিত একটি বার্তা সকলকে বিশ্বাস করতে বাধ্য করেছিল যে, বেকন ইতিমধ্যে বিজ্ঞানের একটি সারসংক্ষেপ সম্পন্ন করেছে।<ref name=":2" />
 
প্রকৃতপক্ষে, তখন গবেষণার জন্য তাঁর কোনও অর্থই ছিল না এমনকি তার পরিবারের কাছ থেকেও কোন আর্থিক সহায়তা পাচ্ছিলেন না কারণ দ্বিতীয় ব্যার্নসের যুদ্ধের ফলে তার পরিবারের আর্থিক অবস্থা খুব খারাপ হয়ে গিয়েছিল। পরবর্তীতে, উইলিয়াম বেনেকর, যিনি আগে [[ইংল্যান্ডের তৃতীয় হেনরি|হেনরি তৃতীয়]] এবং পোপের মধ্যে বার্তাবাহক হিসেবে কাজ করতো তিনি বেকন এবং ক্লিমেন্টের মধ্যে চিঠিপত্র ও বার্তাবাহকের ভূমিকা পালন করেন। ১২৬৬ সালের ২২ জুন ক্লিমেন্ট বেকনকে তার উপর আনিত কোন নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন না করে অত্যন্ত গোপনীয়তার সাথে তার দায়িত্ব পালন ও গবেষণা চালিয়ে জাবার নির্দেশ দেন।
 
যদিও সেই সময়ের পণ্ডিতরা মূলত অ্যারিস্টটলের গ্রন্থগুলি অধ্যয়ন ও সেখানে বিদ্যমান বিরোধগুলী সমাধানের মধ্যেি সীমাবদ্ধ ছিল। ক্লিমেন্টের পৃষ্ঠপোষকতায় বেকন তাঁর যুগে জ্ঞানের অবস্থা সম্পর্কে বিস্তৃত অধ্যয়ন ও গবেষণার অনুমতি পেয়েছিলেন। ১২৬৭ বা ৬৮ সালের দিকে বেকন পোপকে তাঁর ওপাস মাজুস প্রেরণ করেছিলেন যেখানে তিনি [[অ্যারিস্টটোলিয়ান যুক্তি|এরিস্টটলিয়ান যুক্তি]] এবং [[গ্রীক বিজ্ঞান|বিজ্ঞানকে]] নতুন ধর্মতত্ত্বের সাথে কীভাবে অন্তর্ভুক্ত করা যায় সে সম্পর্কে তার মতামত উপস্থাপন করেছিল এবং "ফাংশনীয়" বাক্য পদ্ধতির বিরুদ্ধে গ্রোসেটেসির পাঠ্য-ভিত্তিক পদ্ধতির সমর্থন করেছিলেন।
 
১২৬৮ সালে পোপ ক্লিমেন্ট মারা যান এবং সেইসাথে বেকন অভিভাবকহীন হয়ে পরেন। ১২৭৭ সালে নিন্দাবাদীরা জ্যোতির্বিদ্যাসহ কিছু দার্শনিক মতবাদের শিক্ষা নিষিদ্ধ করেছিল। পরবর্তী ২ বছরের মধ্যে বেকনকে দৃশ্যত কারাবন্দি বা গৃহবন্দী করা হয়েছিল। ১২৭৮ সালের সালের কিছু পরে, বেকন অক্সফোর্ডের ফ্রান্সিসকান হাউসে ফিরে আসেন এবং তার অধ্যয়ন ও গবেষণা চালিয়ে যান। ধারণা করা হয় বেকন সেখানে তাঁর শেষ জীবনের বেশিরভাগ সময় অতিবাহিত করেছিলেন। তাঁর শেষ লেখা '''কম্পেন্দিয়াম অব দ্যা স্টাডি অব থিওলজি'' ' যেটি ১২৯২ সালে সম্পন্ন হয়েছিল। ধারণা করা হয়, এর কিছুদিন পরে তিনি মারা গিয়েছিলেন এবং তাকে অক্সফোর্ডে সমাহিত করা হয়েছিল।
 
== উল্লেখযোগ্য কাজ ==
আধুনিক যুগের শুরুর দিকে ইংরেজরা তাকে নিষিদ্ধ জ্ঞানের সূক্ষ্ম অধিকারী ভাবতে শুরু করে এবং তাকে ফাউস্টের মতো একজন যাদুকর বলে মনে করেছিল যিনি শয়তানকে ঠকিয়েছিল এবং স্বর্গে যেতে সক্ষম হয়েছিল। তার জাদুকরী কাজের মধ্যে সর্বাধিক উল্লেখযোগ্য ছিল যে তিনি কোনও প্রশ্নের উত্তর দিতে পারতেন।
 
১৫৮৯ সালের দিকে এলিজাবেথ যুগের অন্যতম সফল কৌতুক অভিনেতা রবার্ট গ্রিন মঞ্চের জন্য 'দ্য হিস্টোরলি অফ ফ্রিয়ার বেকন অ্যান্ড ফ্রেয়ার বোঙ্গা' গল্পটি রূপান্তর করেছিলেন।
 
== তথ্যসূত্র ==
১,৭৩৭টি

সম্পাদনা