"সিমস" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(সম্পাদনা)
[[Image:CMOS Inverter.svg|thumb|right|স্ট্যাটিক [[ইনভার্টার (লজিক গেট)|সিমস ইনভার্টার]]]]
'''কপ্লিমেন্টারি মেটাল-অক্সাইড-সেমিকন্ডাক্টর''' ([[ইংরেজি ভাষা|ইংরেজি]]: Complementary metal-oxide-semiconductor, সংক্ষেপে '''CMOS''') মূলত এটি এক প্রকার [[সমন্বিত বর্তনী]]। [[মাইক্রোপ্রসেসর]], [[মাইক্রোকন্ট্রোলার]], [[স্ট্যাটিক র‌্যাম]], এবং অন্যান্য [[ডিজিটাল লজিক]] বর্তনীতে সিমস প্রযুক্তি ব্যবহৃত হয়। এছাড়া বিভিন্ন রকম অ্যানালগ বর্তনীতে, যেমন: [[ইমেজ সেন্সর]], [[ডেটা কনভার্টার]], এবং বিভিন্ন প্রকারের সংযোগসাধনের জন্য উচ্চ সমন্বিত [[ট্রান্সিভার|ট্রান্সিভারগুলোতে]] নানাভাবে সিমস প্রযুক্তি ব্যবহৃত হয়ে আসছে। [[ফ্র্যাঙ্ক ওয়ানল্যাস]] ১৯৬৭ সালে সিমস নিজের নামে নিবন্ধন করেন ([[যুক্তরাষ্ট্র|ইউ.এস.]] নিবন্ধন নম্বর: 3,356,858)। Complementary metal-oxide-semiconductor-এর বাংলা আক্ষরিক অর্থ '''ধাতব অক্সাইডের পরিপূরক অর্ধপরিবাহক'''। এছাড়া সিমসকে মাঝে মাঝে '''কার্বন-সিমেট্রি মেটাল-অক্সাইড-সেমিকন্ডাক্টর''' (Carbon-symmetry metal-oxide-semiconductor) বা COS-MOS নামেও অভিহিত করা হয়।
 
সিমস যন্ত্রাংশের দুটি উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এর উচ্চ [[বৈদ্যুতিক নয়েজ|নয়েজ অনাক্রম্যতা]], অর্থাৎ বৈদ্যুতিক নয়েজ দ্বারা সহজে আক্রান্ত হয় না এবং [[পাওয়ার কনজাম্পশন]] (power consumption) বা শক্তি ক্ষয়। যখন সিমস ডিভাইসে [[ট্রানজিস্টর|ট্রানজিস্টরগুলো]] চালু এবং বন্ধ অবস্থার মধ্যে থাকে তখন উল্লেখযোগ্য পরিমাণ বিদ্যুৎ খরচ হয়। এছাড়া অন্যান্য লজিক গেট, যেমন: [[ট্রানজিস্টর-ট্রানজিস্টর লজিক]] (TTL) [[NMOS লজিক]]-এর মতো সিমস ডিভাইসগুলো অতোটা [[উদ্বৃত্ত তাপ|উদ্বৃত্ত তাপও]] (waste heat) উৎপন্ন করে না। পি-চ্যানেল ডিভাইসগুলো ছাড়া সকল এন-চ্যানেল ডিভাইসে এই TTL ও NMOS লজিকগুলো ব্যবহার করা যায়।
৫২,৬২৭টি

সম্পাদনা