"আতা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

তথসূত্র যোগ
(→‎আতা গাছ: সংশোধন)
(তথসূত্র যোগ)
* '''''[[Annona squamosa]]''''' -এটিই [[বাংলাদেশ]]ে সবচেয়ে বেশি জন্মে। স্বাদেও এটিই সেরা। সুমিষ্ট এই ফলটি আতা নামে বেশিরভাগ স্থানে পরিচিত। তবে কোথাও একে মেওয়া এবং কোথাও একে শরিফা বলা হয়। হিন্দিতেও একে শরিফা (शरीफा) বলা হয়। সংস্কৃত ভাষায় এর নাম সীতাফলম। এর চামড়ায় গুটি গুটি চোখ আছে।
* '''''[[Annona reticulata]]''''' -এর চামড়া মসৃণ, লালচে রঙ, স্বাদে কিছুটা [[নোনতা]]। নোনাফল নামে বেশি পরিচিত; তবে কোথাও কোথাও এটিকেই আতা বলা হয়। সংস্কৃত ভাষায় একে রামফলম বলা হয়।
* '''''[[Annona senegalensis]]''''' -ইংরেজিতে একে 'আফ্রিকান কাস্টার্ড অ্যাপল' বলা হয়।<ref name="nrc">{{cite book|title=Lost Crops of Africa: Volume III: Fruits|chapter-url=http://books.nap.edu/openbook.php?record_id=11879&page=243|date=2008-01-25|series=Lost Crops of Africa|publisher=National Academies Press|chapter=Custard Apples|isbn=978-0-309-10596-5|author=National Research Council|volume=3}}</ref> এরও চামড়া মসৃণ, হলদেটে রঙ। এটিও নোনাফল নামে বেশি পরিচিত। আফ্রিকান নোনা নামেও ডাকা হয়।
* '''''[[Annona muricata]]''''' -ইংরেজিতে একে 'সাওয়ার-সপ' (soursop বা graviola) বলা হয়। এরও চামড়া প্রায় মসৃণ, সবুজ রঙ। এটি 'শুল-রাম ফল' বা 'লক্ষ্মণ ফল' নামেও পরিচিত। [[মধ্য আমেরিকা]], [[দক্ষিণ আমেরিকা]], [[দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া]], [[প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল]] ও [[আফ্রিকা]]য় এটি জন্মে।
* '''''[[Annona cherimola]]''''' -এটি বাংলাদেশে কমই জন্মে। এর চামড়াও অনেকটা মসৃণ। হিন্দিতে একে হনুমান ফল বলা হয়।
১,৩৬৪টি

সম্পাদনা