"প্রতিফলন (পদার্থবিজ্ঞান)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎আলোর প্রতিফলন: বানান ঠিক করা হয়েছে, ব্যাকরণ ঠিক করা হয়েছে
ট্যাগ: ২০১৭ উৎস সম্পাদনা
(→‎আলোর প্রতিফলন: বানান ঠিক করা হয়েছে, ব্যাকরণ ঠিক করা হয়েছে)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ সম্পাদনা
 
=== আলোর প্রতিফলন ===
[[আলো]] কোন স্বচ্ছ মাধ্যমের ভিতর দিয়ে যাওয়ার সময় অন্য কোন মাধ্যমে বাধা পেলে দুই মাধ্যমের বিভেদতল থেকে কিছু পরিমাণ আলোআলোক রশ্মি আগের মাধ্যমে ফিরে আসে, এ ঘটনাকে আলোর প্রতিফলন বলে।<ref name="Text-book-of-Bangladesh">মাধ্যমিক পদার্থবিজ্ঞান বই (অধ্যায়-১৪; পৃষ্ঠা-১৮৪ থেকে ১৮৬)|রচনা:ড. শাহাজাহান তপন,মুহাম্মদ আজিজ হাসান,ড. রানা চৌধুরী|সম্পাদনা: ড. আলী আচসগল|প্রকাশক: জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড,ঢাকা|সংস্করণ: ডিসেম্বর, ২০০৮</ref> আলোর প্রতিফলনর একটি অন্যতম উদাহরণ হল- সমতল [[দর্পণ]] বা আয়নার সামনে যখন আমরা দাঁড়াই তখন আমরা আমাদের [[বিম্ব|প্রতিবিম্ব]] দেখতে পাই। দর্পণে আলোর প্রতিফলনের জন্যেই বিম্বের সৃষ্টি হয়।
আলোর প্রতিফলন সাধারণত দুটি বিষয়ের ওপর নির্ভর করেঃ আলোর আপতন কোণ ও মাধ্যমগুলোর প্রকৃতি। আপতিত রশ্মি যত বেশি কোণে আপতিত হবে এবং প্রতিফলক যত বেশি মসৃণ হবে আলোর প্রতিফলন তত বেশি হবে। পক্ষান্তরে, আমসৃণ কিংবা স্বচ্ছ প্রতিফলক থেকে আলোর প্রতিফলন কম হয়।
 
বেনামী ব্যবহারকারী