"আবদুল লতিফ (রেস্তোরাঁ মালিক)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

"Abdul Latif (restaurateur)" পাতাটি অনুবাদ করে তৈরি করা হয়েছে
("Abdul Latif (restaurateur)" পাতাটি অনুবাদ করে তৈরি করা হয়েছে)
("Abdul Latif (restaurateur)" পাতাটি অনুবাদ করে তৈরি করা হয়েছে)
লতিফের জন্ম [[সিলেট বিভাগ|সিলেট জেলা]], [[পূর্ব বাংলা]], [[পাকিস্তান অধিরাজ্য|পাকিস্তানের]] (বর্তমান [[বাংলাদেশ]]) [[সিলেট]] শহরের নিকটে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.thetimes.co.uk/article/abdul-latif-50jhkl6nlr5|শিরোনাম=Abdul Latif|সংগ্রহের-তারিখ=2021-01-06|ভাষা=en|issn=0140-0460}}</ref> ১৯৬৯ সালে তিনি যুক্তরাজ্যে এসে [[ম্যানচেস্টার|ম্যানচেস্টারে]] স্থায়ী হন; এক রাতের এক বর্ণবাদী ঘটনা লতিফকে উত্তরাঞ্চল থেকে নিউক্যাসল আসতে বাধ্য করে। তিনি নেওয়ারুনের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন, একসাথে তাদের চার কন্যা এবং দুই পুত্র রয়েছে।<ref name="telegraph">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.telegraph.co.uk/news/obituaries/1576383/Abdul-Latif.html|শিরোনাম=Obituaries: Abdul Latif|তারিখ=24 January 2008|কর্ম=[[The Daily Telegraph|The Telegraph]]|সংগ্রহের-তারিখ=8 March 2009}}</ref>
 
== কর্মজীবন ==
== কেরিয়ার ==
হুইটলি বে-র এক আত্মীয়ের মালিকানাধীন একটি রেস্তোঁরায় ওয়েটার হিসাবে টাইনসাইডে লতিফের প্রথম কাজ শুরু।<ref name="telegraph">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.telegraph.co.uk/news/obituaries/1576383/Abdul-Latif.html|শিরোনাম=Obituaries: Abdul Latif|তারিখ=24 January 2008|কর্ম=[[The Daily Telegraph|The Telegraph]]|সংগ্রহের-তারিখ=8 March 2009}}</ref> ১৯৭৭ সালে, লতিফ [[নিউক্যাসল আপন টাইন]] শহরের কেন্দ্রস্থলে রুপালী নামে একটি রেস্তোঁরা প্রতিষ্ঠা করেন। রেস্তোঁরাটিকে পরে কারি ক্যাপিটাল নামে নামকরণ করা হয়।<ref name="bbc3">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://news.bbc.co.uk/2/hi/uk_news/england/tyne/7200235.stm|শিরোনাম=From curry hell to model citizen|তারিখ=21 January 2008|কর্ম=[[BBC News]]|সংগ্রহের-তারিখ=24 January 2008}}</ref>
 
 
২০০৪ সালে, তাঁর রেস্তোঁরাটি বিশ্বের দীর্ঘতম দূরত্বে কারি পাঠানোর জন্য ''[[গিনেস বিশ্ব রেকর্ড|গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে]]'' তালিকাভুক্ত হয়{{snd}}যখন তিনি নিউক্যাসল থেকে [[সিডনি|সিডনির, অস্ট্রেলিয়ায়]] হিমায়িত উদ্ভিজ্জ বিরিয়ানি এবং পেশোয়ারী নান রুটি সরবরাহ করেন।<ref name="bbc3">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://news.bbc.co.uk/2/hi/uk_news/england/tyne/7200235.stm|শিরোনাম=From curry hell to model citizen|তারিখ=21 January 2008|কর্ম=[[BBC News]]|সংগ্রহের-তারিখ=24 January 2008}}</ref> পাঠানোর কাজটি মোটরসাইকেলের কুরিয়ার এবং বিমানের মাধ্যমে হয়েছিল এবং চার দিন সময় নিয়েছিল।<ref name="smh">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://www.smh.com.au/news/obituaries/owners-hot-method-of-currying-favour-led-to-restaurants-renown/2008/02/05/1202090415636.html?page=fullpage|শিরোনাম=Owner's hot method of currying favour led to restaurant's renown|শেষাংশ=Stephens|প্রথমাংশ=Tony|তারিখ=6 February 2008|কর্ম=[[The Sydney Morning Herald]]|সংগ্রহের-তারিখ=14 November 2014|অবস্থান=Sydney}}</ref> তিনি নিয়মিতভাবে ক্রিট অ্যাডাল্ট কমিক ''ভিজে ম্যাগাজিনে প্রদর্শিত'' হওয়া সত্ত্বেও কর্মীদের বিনামূল্যে তরকারী সরবরাহ করে স্বাদ গ্রহণ করতে দিতেন যেখানে তাকে "কারি মানসিকবাদী" হিসাবে ডাকা হত।
 
লতিফ ১৯৯৪ সালে ৫০০০ পাউন্ডের বিনিময়ে লর্ড অফ হারপোল সম্মানী উপাধি ডিডটি কিনেছিলেন এবং গর্বের সাথে নিজেকে ব্রিটেনের প্রথম বাংলাদেশী লর্ড অফ ম্যানর হিসাবে প্রকাশ করেন।<ref name="bbc3">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://news.bbc.co.uk/2/hi/uk_news/england/tyne/7200235.stm|শিরোনাম=From curry hell to model citizen|তারিখ=21 January 2008|কর্ম=[[BBC News]]|সংগ্রহের-তারিখ=24 January 2008}}</ref> তিনি দ্য নিউ লর্ড নামে একটি ওয়েবসাইট খুলেন, যেখানে তিনি তার ভক্তদের জন্য স্মৃতিস্মারক পণ্যদ্রব্য, সমসাময়িক বার্তা, প্রচার পরিষেবা এবং একটি অনুপ্রেরণামূলক ডিভিডি সরবরাহ করতেন।<ref name="newlord">{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://www.newlord.co.uk/|শিরোনাম=The New Lord|আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20080127101031/http://www.newlord.co.uk/|আর্কাইভের-তারিখ=27 January 2008|ইউআরএল-অবস্থা=dead|সংগ্রহের-তারিখ=24 January 2008}}</ref> সমাজে আমূল পরিবর্তন আনার জন্য তার প্রচেষ্টা মাধ্যমে ২০০৩ সালে তিনি রয়্যাল সোসাইটি অফ আর্টসের ফেলো নির্বাচিত হন।<ref name="telegraph">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.telegraph.co.uk/news/obituaries/1576383/Abdul-Latif.html|শিরোনাম=Obituaries: Abdul Latif|তারিখ=24 January 2008|কর্ম=[[The Daily Telegraph|The Telegraph]]|সংগ্রহের-তারিখ=8 March 2009}}</ref>
 
== মৃত্যু ==
২০শে জানুয়ারী ২০০৮, লতিফ নিউক্যাসলের গোসফর্থ এলাকায় তার নিজ বাড়িতে [[হৃৎপেশীর রক্তাভাবজনিত মৃত্যু|হার্ট অ্যাটাকের কারণে]] মারা যান।<ref name="bbc2">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://news.bbc.co.uk/2/hi/uk_news/england/tyne/7199691.stm|শিরোনাম='Curry Hell' restaurant boss dies|তারিখ=21 January 2008|কর্ম=[[BBC News]]|সংগ্রহের-তারিখ=21 January 2008}}</ref>
 
লিবারেল ডেমোক্র্যাট সাংসদ টিম ফারন সংসদের আর্লি ডে মোশনে তার পরিবারকে সমবেদনা জানাতে এবং "নিউক্যাসল সিটি, লিবারেল ডেমোক্র্যাটস এবং ভিজ ম্যাগাজিনে তার অসামান্য অবদানের জন্য ২৪শে জানুয়ারী ২০০৮ সালে একটি প্রস্তাব উপস্থাপন করেন।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://edm.parliament.uk/early-day-motion/34936/abdul-latif|শিরোনাম=ABDUL LATIF - Early Day Motions - UK Parliament|ওয়েবসাইট=edm.parliament.uk|ভাষা=en|সংগ্রহের-তারিখ=2021-01-09}}</ref>
 
২ মার্চ ২০০৮, নিউক্যাসল সিভিক সেন্টারে তার স্মরণে বিপুল লোকের উপস্থিতিতে একটি স্মৃতি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।<ref name="bbc2">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://news.bbc.co.uk/2/hi/uk_news/england/tyne/7199691.stm|শিরোনাম='Curry Hell' restaurant boss dies|তারিখ=21 January 2008|কর্ম=[[BBC News]]|সংগ্রহের-তারিখ=21 January 2008}}</ref>
 
== আরো দেখুন ==