উমাইয়া খিলাফত: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: দৃশ্যমান সম্পাদনা মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
{{Infobox former country
|native_name = {{lang|ar|الخلافة الأموية }}<br>''Al-Ḫilāfa al-ʾumawiyya'' {{ar icon}}
|conventional_long_name = উমাইয়া খিলাফতসাম্রাজ্য
|common_name = Umadউমাইয়া সাম্রাজ্য
|continent = এশিয়া
|continent2 = আফ্রিকা, ইউরোপ
|region = মধ্যপ্রাচ্য, উত্তর আফ্রিকা, ইবেরিয়া, সিন্ধু
|status = সাম্রাজ্য
|government_type = খিলাফতসাম্রাজ্য
|year_start = ৬৩২৬৬১
|year_end = ৭৫০
|year_exile_start = ৭৫৬
|year_exile_end = ১০৩১
|p1 = রাশিদুনখিলাফতে খিলাফতরাশিদাহ
|flag_p1 = Flag of Afghanistan pre-1901.svg
|p2 = বাইজেন্টাইন সাম্রাজ্য
|p3 = ভিসিগথিক রাজ্য
|flag_p3 =
|s1 = আব্বাসীয় খিলাফতসাম্রাজ্য
|flag_s1 = Black flag.svg
|s2 = কর্ডোবাউমাইয়া আমিরাতসাম্রাজ্য (আন্দালুস)
|flag_s2 = Coras del Emirato de Córdoba.png
|image_flag = Umayyad Flag.svg
|flag_type = [[ইসলামীইসলামি পতাকা|পতাকা]]
|image_map = Umayyad750ADloc.png
|image_map_caption = উমাইয়া খিলাফতেরসাম্রাজ্যের সর্বোচ্চ সীমানা।
|capital = [[দামেস্ক]]<br /><small>(৬৬১–৭৪৪)</small><br />[[হারান]]<br /><small>(৭৪৪–৭৫০)</small>
|capital_exile = [[কর্ডোবা, স্পেন|কর্ডোবা]]<br /><small>(৭৫৬–১০৩১)</small>
|common_languages = [[আরবি]] (সরকারি ভাষা) – [[কিবতি ভাষা|কিবতি]], [[গ্রীক ভাষা|গ্রীক]], [[ফারসি ভাষা|ফারসি]] (<small>[[আবদুল মালিক ইবনে মারওয়ান|আবদুল মালিকের]] শাসন পর্যন্ত কিছু অঞ্চলের সরকারি ভাষা</small>) – [[আরামায়িক ভাষা|আরামায়িক]], [[আর্মেনীয় ভাষা|আর্মেনীয়]], [[বার্বার ভাষা|বার্বার]], [[আফ্রিকান রোমান ভাষা|আফ্রিকান রোমান]], [[জর্জিয়ান ভাষা|জর্জিয়ান]], [[হিব্রু ভাষা|হিব্রু]], [[তুর্কি ভাষা|তুর্কি]], [[কুর্দি ভাষা|কুর্দি]]
|currency = [[স্বর্ণ দিনার]] ও [[দিরহাম]]
|leader1 = [[প্রথমহযরত আমির মুয়াবিয়া]] (রাঃ)
|leader2 = [[দ্বিতীয় মারওয়ান]]
|year_leader1 = ৬৬১–৬৮০
|year_leader2 = ৭৪৪–৭৫০
|title_leader = [[খলিফা]]
|event_start = [[প্রথমহযরত আমির মুয়াবিয়া|প্রথম মুয়াবিয়ার]](রাঃ) খিলাফত লাভ
|event_end = [[আব্বাসীয় খিলাফতসাম্রাজ্য |আব্বাসীয়দের]] হাতে [[দ্বিতীয় মারওয়ান|দ্বিতীয় মারওয়ানের]] পরাজয় ও মৃত্যু
|year_start = ৬৬১
|event_end = [[আব্বাসীয় খিলাফত|আব্বাসীয়দের]] হাতে [[দ্বিতীয় মারওয়ান|দ্বিতীয় মারওয়ানের]] পরাজয় ও মৃত্যু
|year_end = ৭৫০
|stat_year1 = ৭৫০ খ্রিষ্টাব্দ (১৩২ হিজরি)
|stat_area1 = 15000000
{{পতাকা|মৌরিতানিয়া}}<br>{{পতাকা|মরক্কো}}<br>{{পতাকা|ওমান}}<br>{{পতাকা|পাকিস্তান}}<br>{{পতাকা আইকন|ফিলিস্তিন}} [[ফিলিস্তিনি জাতীয় কর্তৃপক্ষ|ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষ]]<br>{{পতাকা|পর্তুগাল}}<br>{{পতাকা|কাতার}}<br>{{পতাকা|রাশিয়া}}<br>{{পতাকা|সৌদি আরব}}<br>{{পতাকা|সোমালিয়া}}<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://books.google.com/books?id=XpdAzRYruCwC&pg=PA3&dq=somalia+umayyad&hl=en&sa=X&ei=Wf-iUMu8K-WS0QHd5YCwDg&ved=0CDAQ6AEwAA#v=onepage&q=somalia%20umayyad&f=false |শিরোনাম=The Invention of Somalia - Google Books |প্রকাশক=Books.google.com |তারিখ= |সংগ্রহের-তারিখ=2014-05-26}}</ref><br>{{পতাকা|স্পেন}}<br>{{পতাকা|সিরিয়া}}<br>{{পতাকা|তাজিকিস্তান}}<br>{{পতাকা|তিউনিসিয়া}}<br>{{পতাকা|তুরস্ক}}<br>{{পতাকা|তুর্কমেনিস্তান}}<br>{{পতাকা|সংযুক্ত আরব আমিরাত}}<br>{{পতাকা|উজবেকিস্তান}}<br>{{পতাকা|ইয়েমেন}}<br>{{পতাকা|পশ্চিম সাহারা}}
}}
|FR_total_population_estimate_rank=|FR_total_population_estimate=|FR_foot=উমাইয়া সাম্রাজ্য|FR_total_population_estimate_year=|leader_name5=|leader_name9=|leader_name8=|leader_name7=|leader_name6=|longEW=|leader_name4=|leader_name3=|leader_name2=|languages2_type=|languages_type=|longm=|longd=|latNS=|latm=|FR_metropole_population_estimate_rank=}}
}}
[[File:Umayyad750ADloc.png|200px|thumbnail|right|উমাইয়া খিলাফতেরসাম্রাজ্যের সর্বো‌চ্চ সীমানা (সবুজ চিহ্নিত), আনুমানিক ৭৫০ খ্রিষ্টাব্দ।খ্রীস্টাব্দে। ]]
'''উমাইয়া খিলাফতসাম্রাজ্য''' ({{lang-ar|الخلافة الأموية}}, [[Arabic transliteration|trans.]] ''Al-Ḫilāfa al-ʾumawiyya'') ইসলামের প্রধান চারটি খিলাফতেরসাম্রাজ্যের মধ্যে দ্বিতীয় [[খিলাফতসাম্রাজ্য]]। এটি উমাইয়া রাজবংশকে কেন্দ্র করে গড়ে উঠে। ইসলামের তৃতীয় খলিফা [[উসমান ইবন আফ্‌ফান|হযরত উসমান ইবনগণি আফ্‌ফানের(রাঃ)]] খিলাফত লাভের মাধ্যমে উমাইয়া পরিবার প্রথম ক্ষমতায় আসে। তবে উমাইয়া বংশের শাসন [[প্রথম মুয়াবিয়া|মুয়াবিয়াহযরত ইবনেআমির আবুমুয়াবিয়া সুফিয়ান(রাঃ)]] কর্তৃক সূচিত হয়। তিনি দীর্ঘদিন সিরিয়ার গভর্নর ছিলেন। ফলে সিরিয়া উমাইয়াদের ক্ষমতার ভিত্তি হয়ে উঠে এবং দামেস্ক তাদের রাজধানী হয়। উমাইয়ারা মুসলিমদের বিজয় অভিযান অব্যাহত রাখে। [[ককেসাস]], [[ট্রান্সঅক্সানিয়া]], [[সিন্ধু প্রদেশ|সিন্ধু]], [[মাগরেব (অঞ্চল)|মাগরেব]] ও [[ইবেরিয়ান উপদ্বীপ]] ([[আন্দালুস]]) জয় করে মুসলিমমুসলমান বিশ্বের আওতাধীন করা হয়। সীমার সর্বোচ্চে পৌছালে উমাইয়া খিলাফত মোট ৫.৭৯ মিলিয়ন বর্গ মাইল (১,৫০,০০,০০০ বর্গ কিমি.) অঞ্চল অধিকার করে রাখে। তখন পর্যন্ত বিশ্বের দেখা সাম্রাজ্যগুলোর মধ্যে এটি সর্ববৃহৎ ছিল। অস্তিত্বের সময়কালের দিক থেকে এটি ছিল পঞ্চম।<ref name=Blankinship>{{citation|title=The End of the Jihad State, the Reign of Hisham Ibn 'Abd-al Malik and the collapse of the Umayyads|first=Khalid Yahya|last=Blankinship|publisher=[[State University of New York Press]]|year=1994|isbn=0-7914-1827-8|page=37}}</ref>
 
কিছু মুসলিমের কাছে উমাইয়াদের কর সংগ্রহ ও প্রশাসনিক ব্যবস্থা অনৈতিক ঠেকে। অমুসলিম জনগণ স্বায়ত্তশাসন ভোগ করত এবং তাদের বিচারিক কার্যক্রম তাদের নিজস্ব আইন ও ধর্মীয় প্রধান বা নিজেদের নিযুক্ত ব্যক্তি দ্বারা চালিত হত।<ref name="ReferenceA">A Chronology Of Islamic History 570-1000 CE, By H.U. Rahman 1999 Page 128</ref> তাদের কেন্দ্রীয় সরকারকে জিজিয়া কর দিতে হত।<ref name="ReferenceA"/> মুহাম্মদ বিশ্বনবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর জীবদ্দশায় বলেন যে প্রত্যের ধর্মীয় সম্প্রদায় নিজেদের ধর্মপালন করবে ও নিজেদের শাসন করতে পারবে। এ নীতি পরবর্তীতেও বহাল থাকে।<ref name="ReferenceA"/> হযরত উমর ফারুক (রাঃ) কর্তৃক চালু হওয়া মুসলিম ও অমুসলিমদের জন্য [[কল্যাণ রাষ্ট্র]] ব্যবস্থা চলতে থাকে।<ref name="ReferenceA"/><ref name="ReferenceA"/> মুয়াবিয়ারহযরত আমির মুয়াবিয়া (রাঃ) এর স্ত্রী মায়সুম (ইয়াজিদেরএজিদের মা) ছিলেন একজন খ্রিষ্টান। রাষ্ট্রে মুসলিম ও খ্রিষ্টানদের মধ্যে সম্পর্ক ভাল ছিল। উমাইয়ারা [[বাইজেন্টাইন সাম্রাজ্য|বাইজেন্টাইন সাম্রাজ্যের]] সাথে ধারাবাহিক যুদ্ধে জড়িত ছিল।<ref name="ReferenceA"/><ref name="ReferenceA"/><ref name="ReferenceA"/> গুরুত্বপূর্ণ পদে খ্রিষ্টানদের বসানো হয় যাদের মধ্যে কারো কারো পরিবার বাইজেন্টাইন সরকারে কাজ করেছিল। খ্রিষ্টানদের নিয়োগ অধিকৃত অঞ্চলে বিশেষত সিরিয়ার বিশাল খ্রিষ্টান জনগোষ্ঠীর প্রতি ধর্মীয় সহিষ্ণুতার নীতি হিসেবে গ্রহণ করা হয়। এ নীতি জনগণের সমর্থন আদায়ে সক্ষম হয় এবং সিরিয়াকে ক্ষমতার কেন্দ্র হিসেবে স্থিতিশীল করে তোলে।<ref>Middle East, Western Asia, and Northern Africa By Ali Aldosari Page 185 [http://books.google.co.uk/books?id=j894miuOqc4C&pg=PA185&dq=Muawiyah+syria+powerbase&hl=en&sa=X&ei=IgitUdCUNa-X0AWswoGIDg&ved=0CDEQ6AEwAA#v=onepage&q=Muawiyah%20syria%20powerbase&f=false]</ref><ref>The Tragedy of the Templars: The Rise and Fall of the Crusader States By Michael Haag Chapter 3 Palestine under the Umayyads and the Arab Tribe [http://books.google.co.uk/books?id=hTPC09XoKs0C&pg=PT20&dq=Muawiyah+syria+powerbase&hl=en&sa=X&ei=IgitUdCUNa-X0AWswoGIDg&ved=0CDYQ6AEwAQ]</ref>
 
আরব গোত্রগুলোর মধ্যকার বিরোধের কারণে সিরিয়ার বাইরের প্রদেশে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে বিশেষত [[দ্বিতীয় ফিতনা|দ্বিতীয় মুসলিম গৃহযুদ্ধ]] (৬৮০-৬৯২) ও [[বার্বার বিদ্রোহ|বার্বার বিদ্রোহের]] (৭৪০-৭৪৩) সময়। দ্বিতীয় গৃহযুদ্ধের সময় উমাইয়া গোত্রের নেতৃত্ব সুফয়ানি শাখা থেকে মারওয়ানি শাখার হস্তান্তর হয়। ক্রমাগত যুদ্ধবিগ্রহের ফলে সম্পদ ও লোকবল কমে আসায় [[তৃতীয় ফিতনা|তৃতীয় মুসলিম গৃহযুদ্ধের]] সময় দুর্বল হয়ে পড়ে এবং চূড়ান্তভাবে [[আব্বাসীয় বিপ্লব|আব্বাসীয় বিপ্লবের]] ফলে ক্ষমতাচ্যুত হয়। পরিবারের একটি শাখা [[উত্তর আফ্রিকা]] হয়ে আল-আন্দালুস চলে যায় এবং সেখানে [[কর্ডোবা খিলাফত|উমাইয়া সাম্রাজ্য (আন্দালুস)]] প্রতিষ্ঠা করে। এ খিলাফত ১০৩১ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত টিকে ছিল এবং [[আন্দালুসের ফিতনা|আন্দালুসের ফিতনার]] পর এর পতন হয়।
 
==উৎপত্তি==
বেনামী ব্যবহারকারী