"শয়তানবাদ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

লিংক যোগ
(→‎শয়তানবাদ: বানান ঠিক করা হয়েছে)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ সম্পাদনা
(লিংক যোগ)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা দৃশ্যমান সম্পাদনা
 
[[চিত্র:Pentagram4.svg|200px|thumb|শয়তানবাদের চিহ্ন ও কালো যাদুকরদের প্রতীক পঞ্চকোণ]]
'''শয়তানবাদ''' সাধারণভাবে [[হিব্রু বাইবেল]] ও [[কুরআনেকুরআন|কুরআনের]] উল্লেখ [[শয়তান|শয়তানের]] উপাসনা, ভক্তি বা প্রশংসাকে বোঝানো হয়ে থাকে। [[নূতন নিয়ম|নূতন নিয়মে]] আরো বিস্তারিত ধারণা পাওয়া যায়, যেখানে [[যিশু|যিশুর]] প্রলুদ্ধ হওয়ার ঘটনাকে বুঝানো হয়েছে। [[আব্রাহামীয় ধর্মসমূহ|আব্রাহামিক ধর্মে]] শয়তানকে তুলনা করা হয়েছে বিপথগামী দেবদূত বা দানব হিসেবে যে মানুষকে খারাপ কাজ বা পাপ করতে অনুপ্রেরণা যোগায়। [[ইসলাম ধর্ম]] অনুযায়ী শয়তানকে ইসলাম ধর্মের প্রধান শত্রু হিসেবে গণ্য করা হয়েছে। [[ইউরোপ|ইউরোপে]] রেঁনেসা হওয়ার পরে শয়তানকে আসলে রূপক অর্থে দেখা হয়েছে যা বোঝাচ্ছে বিশ্বাসের অভাবকে, বিচ্ছিন্নতাবাদ, ইচ্ছার স্বাধীনতা, জ্ঞান এবং আলোকিত হওয়াকে।{{sfn|Dyrendal|Lewis|Petersen|2016|p=29}} সাহিত্যে আমরা শয়তানকে দেখি মিল্টনের ''প্যারাডাইজ লস্ট''-এ।{{sfn|Dyrendal|Lewis|Petersen|2016|p=29}}
 
১৯৬০ সালের আগে শয়তান-উপাসকদলগুলোকে গুপ্ত ও অবৈধ মনে করা হত। [[হাদীসবিদ্যা]] বিরোধী আইন যেমন ''ব্রিটিশ [[হাদীসবিদ্যা]] আইন ১৭৩৫'' (যা ১৯৫১ সালের আগ পর্যন্ত বিদ্যমান ছিল) জনগণের হাদীসবিদ্যা ও শয়তানবাদ বিরোধী আবেগকে প্রকাশ করে। আধুনিক শয়তানবাদ প্রথম সবার নজরে আসে ১৯৬৬ সালে [[চার্চ অব স্যাটান]] বা "শয়তানের গির্জা" প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে। আধুনিক শয়তানবাদি দলগুলো নানা ভাগে বিভক্ত হলেও প্রধান দু'টি ধারা হচ্ছে আস্তিক ও নাস্তিক। আস্তিক শয়তানবাদি দলগুলো শয়তানকে একজন [[মুসলিমযাদুবাদ]] আল্লাহ হিসেবে উপাসনা করে। অন্যদিকে [[দার্শনিক শয়তানবাদ|নাস্তিক শয়তানবাদিরা]] নিজেদের নাস্তিক মনে করে এবং শয়তানকে মনে করে মানুষের খারাপ বৈশিষ্ট্যের একটি প্রতীকরপ হিসাবে।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি|শেষাংশ=Gilmore|প্রথমাংশ=Peter|শিরোনাম=Science and Satanism|ইউআরএল=http://www.pointofinquiry.org/peter_h_gilmore_science_and_satanism/|কর্ম=Point of Inquiry Interview|সংগ্রহের-তারিখ=9 December 2013}}</ref>
৪৩টি

সম্পাদনা