দ্বিতীয় মুরাদ: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ সম্পাদনা
দ্বিতীয় মুরাদ ১৬ বছর বয়সে সিংহাসনে বসেন। তার সিংহাসনারোহণ শান্তিপূর্ণ ছিল।
 
তবে শীঘ্রই সাম্রাজ্যে গোলযোগ দেখা দেয়। বাইজেন্টাইন সম্রাট দ্বিতীয় মানুয়েল [[মুস্তাফা চেলেবি|মুস্তাফা চেলেবিকে]] সিংহাসনের বৈধ উত্তরসূরি হিসেবে গ্রহণ করে তাকে সহায়তা করেন। <ref>Finkel, C., ''Osman's Dream:The History of the Ottoman Empire'', Osman 2005, pp.43, Basic Books</ref> মুস্তাফা সফল হলে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ শহর দ্বিতীয় মানুয়েলকে হস্তান্তর করা হবে এমন চুক্তি হয়। মুস্তাফা বাইজেন্টাইন জাহাজযোগে উসমানীয় সাম্রাজ্যের ইউরোপীয় অংশে আগমন করেন এবং দ্রুত অগ্রসর হন। অনেক তুর্কি সৈনিক তার সাথে যোগ দেয়। মুরাদ তার [[উজিরে আজম]] [[বায়েজীদ পাশা|বায়েজীদ পাশাকে]] সেনাপতি হিসেবে প্রেরণ করেন কিন্তু বায়েজীদ মুস্তাফার কাছে পরাজিত ও নিহত হন। মুস্তাফা বায়েজীদের বাহিনীকে পরাজিত করে নিজেকে এড্রিনোপলের (বর্তমান [[এদির্ন‌]]) সুলতান ঘোষণা করেন। এরপর তিনি [[দারদানেলেস]] অতিক্রম করে এশিয়া আসেন। তবে মুরাদ তাকে পরাস্ত করেন। মুস্তাফা [[গেলিপলিগ্যালিপলি|গেলিপলিতেগ্যালিপলিতে]] আশ্রয় নেন। মুরাদ এখানে অবরোধ আরোপ করেন। মুস্তাফাকে বন্দী করা হয় এবং মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়। মুরাদ এরপর রোমান সম্রাটের বিরুদ্ধে অস্ত্রধারণ করেন এবং কনস্টান্টিনোপল জয়ের মাধ্যমে তাকে শাস্তি প্রদানের ঘোষণা দেন।
 
দ্বিতীয় মুরাদ ১৪২১ সালে বাইজেন্টাইন সাম্রাজ্যের দিকে অগ্রসর হয়ে রাজধানী [[কনস্টান্টিনোপল]] অবরোধ করেন।<ref>A contemporary account of the siege was written by [[John Cananus|John Kananos]].</ref> মুরাদের অবরোধের সময় বাইজেন্টাইনরা কিছু স্বাধীন তুর্কি আনাতোলীয় রাজ্যের সহায়তায় সুলতানের ছোট ভাই [[কুচুক মুস্তাফা|কুচুক মুস্তাফাকে]] দিয়ে সুলতানের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ সংঘটিত করে। বিদ্রোহের সময় বুরসা অবরোধ করা হয়। মুরাদকে তাই অবরোধ তুলে নিতে হয়। তিনি মুস্তাফাকে বন্দী করেন ও মৃত্যুদন্ড দেন। তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারী আনাতোলীয় আইদিনি, জেরমিয়ানি, মেনতেশে ও তেকে রাজ্যকে উসমানীয় সাম্রাজ্যের অধীনে নিয়ে আসা হয়।
বেনামী ব্যবহারকারী