"হাফিজুর রহমান" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

58.145.189.227 (আলাপ)-এর সম্পাদিত 4708839 নম্বর সংশোধনটি বাতিল করা হয়েছে
(58.145.189.227 (আলাপ)-এর সম্পাদিত 4708842 নম্বর সংশোধনটি বাতিল করা হয়েছে)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা পূর্বাবস্থায় ফেরত উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
(58.145.189.227 (আলাপ)-এর সম্পাদিত 4708839 নম্বর সংশোধনটি বাতিল করা হয়েছে)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা পূর্বাবস্থায় ফেরত উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
== আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ==
৩১ মার্চ, ১৯৮৬ তারিখে [[পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দল|পাকিস্তানের]] বিপক্ষে তার ওডিআই অভিষেক হয়। মোরাতুয়ার টাইরোন ফার্নান্দো স্টেডিয়ামে ‘জন প্লেয়ার গোল্ড লীফ ট্রফি’ নামে পরিচিত [[এশিয়া কাপ|এশিয়া কাপের]] দ্বিতীয় আসরের দ্বিতীয় খেলায় [[গাজী আশরাফ]], [[গোলাম নওশের]], [[গোলাম ফারুক]], হাফিজুর রহমান, [[জাহাঙ্গীর শাহ]], [[মিনহাজুল আবেদীন নান্নু|মিনহাজুল আবেদীন]], [[নূরুল আবেদীন নোবেল|নুরুল আবেদীন]], [[রফিকুল আলম]], [[রকিবুল হাসান (ক্রিকেটার, জন্ম ১৯৫৩)|রাকিবুল হাসান]], [[সামিউর রহমান]] ও [[শহীদুর রহমান|শহীদুর রহমানের]] ওডিআইয়ে একযোগে অভিষেক ঘটে।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি |ইউআরএল=http://www.espncricinfo.com/ci/engine/match/65672.html |শিরোনাম=John Player Gold Leaf Trophy (Asia Cup), 2nd Match: Bangladesh v Pakistan at Moratuwa, Mar 31, 1986 |কর্ম=ইএসপিএন ক্রিকইনফো |সংগ্রহের-তারিখ=30 December 2016|ভাষা=ইংরেজি|অনূদিত-শিরোনাম=জন প্লেয়ার গোল্ড লীফ ট্রফি (এশিয়া কাপ), ২য় খেলা: বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তান মোরাতুয়া, ৩১ মার্চ, ১৯৮৬}}</ref> এ খেলাটিই যে-কোন [[আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের সদস্যদের তালিকা|আইসিসি পূর্ণাঙ্গ সদস্যের বিপক্ষে]] বাংলাদেশের প্রথম ওডিআই খেলা।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি |ইউআরএল=http://www.espncricinfo.com/wisdenalmanack/content/story/150618.html |শিরোনাম=Asia Cup: †BANGLADESH v PAKISTAN 1985-86 |কর্ম=ইএসপিএন ক্রিকইনফো |সংগ্রহের-তারিখ=30 December 2016|ভাষা=ইংরেজি|অনূদিত-শিরোনাম=এশিয়া কাপ: বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তান ১৯৮৫-৮৬}}</ref> খেলায় তিনি ২৪ বল মোকাবেলা করে ৮ রান তুলে [[ইমরান খান|ইমরান খানের]] বলে বোল্ড হন। [[উইকেট|উইকেটের]] পিছনে অবস্থান করে [[গাজী আশরাফ|গাজী আশরাফের]] বলে [[জাভেদ মিয়াঁদাদ|জাভেদ মিয়াঁদাদের]] ক্যাচ নেন। তবে তার অভিষেক পর্বটি সুখকর হয়নি। পাকিস্তান দল ৭৭ বল হাতে রেখেই ৭ উইকেটে জয় পায়। এরপর ২ এপ্রিল স্বাগতিক [[শ্রীলঙ্কা জাতীয় ক্রিকেট দল|শ্রীলঙ্কার]] বিপক্ষে [[ক্যান্ডি (শ্রীলঙ্কা)|ক্যান্ডিতে]] অনুষ্ঠিত পরবর্তী ও নিজস্ব শেষ খেলায় অংশ নেন।
 
== অবসর ==
১৯৮৬ সালে [[Nasir Ahmed (cricketer, born 1964)|নাসির আহমেদ]] তার স্থলাভিষিক্ত হন। ফলশ্রুতিতে [[ক্রিকেট]] থেকে অবসর নিতে বাধ্য হন। [[আন্তর্জাতিক ক্রিকেট]] থেকে অবসর নেয়ার পর [[মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র|মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে]] [[অভিবাসন|অভিবাসিত]] হন।
 
== তথ্যসূত্র ==
১,৮৬৮টি

সম্পাদনা