সফটওয়্যার বাগ: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
সম্পাদনা সারাংশ নেই
সম্পাদনা সারাংশ নেই
কোন প্রোগ্রামের সোর্স কোড বা তার ডিজাইন, উপাদান এবং এই ধরনের প্রোগ্রাম দ্বারা ব্যবহৃত অপারেটিং সিস্টেমের মধ্যে তৈরি এরর বা ত্রুটি এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে এই এরর বা ত্রুটি থেকে ব্যাগ গুলা উৎপন্ন হয়। অনেক সময় কম্পাইলার ভুল কোড উৎপন্ন করার কারণে এটা হতে পারে । একটি প্রগ্রামে বিশাল আকারের ব্যাগ থাকতে পারে এবং ব্যাগ গুলা মারাত্মকভাবে ফাংশন এ প্রভাব ফেলতে পারে এটাকে ত্রুটিযুক্ত বা বাগি বলা হয় । ব্যাগ গুলা ট্রিগার এরর বা ত্রুটি করে পারে যা তরঙ্গ আকারে প্রভাব ফেলতে পারে। ব্যাগ গুলা কম্পিউটার কে ক্রাস বা ফ্রিজ করতে পারে।
 
কিছু সফট্ওয়্যার বাগ সংযুক্ত হয়ে বিপর্যয় এনেছিল, ১৯৮০ দশকে সরাসরি থেরেক -5 রেডিয়েশন থেরাপি মেশিন সফট্ওয়্যার বাগ সংযুক্ত হয়েছিল সরাসরি যার কারণে রোগীর মৃত্যুর জন্য দায়ি করা হয়েছিল এই সফট্ওয়্যার বাগ কে। ১৯৬৬ সালে সফট্ওয়্যার বাগ দেখার ১ মিনিটের কম সময় এর মধ্যে ইউরোপীয় স্পেস এজেন্সি এর মার্কিন $ 1 বিলিয়ন প্রোটোটাইপ Ariane 5 রকেট চালু বোর্ডের নির্দেশিকা কম্পিউটার প্রোগ্রাম নস্ট করে দেওয়া হয়েছে ।1994 সালে, জুন মাসে একটি রয়েল এয়ার ফোর্স চেনুক হেলিকপ্টারটি কিট্টিয়ারের দুর্ঘটনায় ২9 জন মারা যায়। এটি প্রাথমিকভাবে পাইলট এর ভুল হিসেবে চাকরি চলে যায় কিন্তু কম্পিউটার উইকলি তদন্তে হাউস অফ লর্ডস কে বোজাতে সক্ষম হন যে বিমানের ইঞ্জিনএর সিস্টেম সফ্টওয়্যার বাগ নিয়ন্ত্রণ করছিল তাই এই দুরঘটনা দুর্ঘটনা ঘটে।
 
 
= বাগের শ্রেণি বিন্যাস =
প্রোগ্রামিং ভাষায় বাগকে পাঁচটি প্রধান ভাগে ভাগ করা হয়েছে। এই বাগ গুলোর নাম হচ্ছেঃ-
 
* টোকেন ত্রুটি (Token Errors): প্রোগ্রামে যখন এমন কোন শব্দ বা চিহ্ন ব্যবহার করা হয় যেটি জাভা শব্দভাণ্ডারে নেই তখন এই টোকেন ত্রুটি হয়ে থাকে।
* সিনট্যাক্স ত্রুটি (Syntax Errors): জাভা প্রোগ্রামিং ভাষায় যখন কোন ব্যাকরণ গত বা উচ্চারণগত ভুল হয়ে থাকে তখন একে সিনট্যাক্স ত্রুটি বলে।
* সিনট্যাক্স কনস্ট্রেইন্ট ত্রুটি (Syntax constraint errors): যখন জাভা কম্পাইলার কোন একটি প্রোগ্রামের অর্থ নির্ধারণ করতে পারে না তখন সাধারণত এই সিনট্যাক্স কনস্ট্রেইন্ট ত্রুটি দেখিয়ে থাকে।
* ইকুয়েশন ত্রুটি (Execution Errors): জাভা রানটাইম সিস্টেম কোন একটি প্রোগ্রাম সম্পাদন বা কম্পাইল করতে গিয়ে যখন আবিষ্কার করে যে উক্ত প্রোগ্রাম কোন একটি নিয়ম ভঙ্গ করেছে তখন এই ইকুয়েশন ত্রুটি দেখিয়ে থাকে। একে রানটাইম ত্রুটিও বলে।
* ইন্টেন্ট ত্রুটি (Intent Errors): কোন একটি প্রোগ্রাম সফল ভাবে রান হয়েও যখন ভুল মান প্রকাশ করে তখন একে ইন্টেন্ট ত্রুটি বলা হয়। এই ত্রুটিকে ‘The most insidious’ বা বিশ্বাসঘাতক ত্রুটি বলে। কারণ কম্পাইলার বা রানটাইম সিস্টেম এই ত্রুটি ধরতে পারে না। <br />
 
= ডিবাগিং =
কোন একটি ত্রুটিপূর্ণ প্রোগ্রামের ত্রুটি নির্ণয় করা এবং ঐ ত্রুটির সমাধান করাকেই ডিবাগিং বলা হয়ে থাকে।
১৫টি

সম্পাদনা