জাতীয় দ্বীনি মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড বাংলাদেশ: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
বোর্ডের বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থা তিনটি পর্যায়ে বিভক্ত।{{তথ্যসূত্র প্রয়োজন|date=অক্টোবর ১}}
*প্রথম পর্যায়ঃ এ পর্যায়ে রয়েছে ২টি স্তর।
**প্রথম স্তরঃ প্রাথমিক শিক্ষা। কুরআন তেলওয়াত ও ইসলামিয়াতসহ গণিত, বাংলা, ইংরেজি ও [[সমাজবিজ্ঞান|সমাজ বিজ্ঞান]] প্রভৃতি ৫ম শ্রেনীরশ্রেণির মান পর্যন্ত। একে বলা হয় আল মারহালাতুল ইবতিদাইয়্যাহ বা কওমী প্রাথমিক মাদ্রাসা।
**দ্বিতীয় স্তরঃ এতে রয়েছে সাধারনসাধারণ শিক্ষা সহ ইসলামিক শিক্ষা। অর্থাৎ আরবি ভাষা, আরবি ব্যকরণ ও ফিকাহশাস্ত্র, গণিত, বাংলা, ইংরেজি ও সমাজ বিজ্ঞান। একে বলা হয় আল মারহালাতুল মুতাওয়াসসিতাহ। এর মেয়াদ ৩ বছর। ( ৬ষ্ঠ থেকে ৮ম )
*দ্বিতীয় পর্যায়ঃ এপর্যায়ে রয়েছে ৪টি স্তর।
**১ম স্তরঃ আল মারহালাতুস সানাবিয়্যাহ (মাধ্যমিক স্তর), যার মেয়াদ ২ বছর (৯ম-১০ম)।
**৩য় স্তরঃ আল মারহালাতুল ফজিলত (স্নাতক ডিগ্রি)। এর মেয়াদ ২ বছর (১৩শ - ১৪শ)।
**৪র্থ স্তরঃ আল মারহালাতুল তাকমিল (মাস্টার্স ডিগ্রি)। এর মেয়াদ ২ বছর। এ স্তরকে দাওরায়ে হাদীস বলা হয়।
*তৃতীয় পর্যায়ঃ এ পর্যায়ে রয়েছে বিষয়ভিত্তিক ডিপ্লোমা ও গবেষণামূলক শিক্ষা কোর্স। যথাঃ [[হাদিস|হাদীস]], [[তাফসীর|তাফসির]], [[ফিকহ]], [[ফতোয়া|ফতওয়া]], [[তাজবিদ]], [[আরবি সাহিত্য]], [[বাংলা সাহিত্য]], ইংরেজি, উর্দূউর্দু ও ফারসি ভাষা, [[ইসলামের ইতিহাস]], [[সীরাহ|সীরাত]], ইলমুল কালাম, ইসলামি দর্শন, অর্থনীতি, [[রাষ্ট্রবিজ্ঞান]], পৌর বিজ্ঞান ও [[সমাজবিজ্ঞান|সমাজ বিজ্ঞান]] ইত্যাদি বিষয়ের গবেষণামূলক শিক্ষা।
 
==কেন্দ্রীয় পরীক্ষা==