"চরহোগলা জমিদার বাড়ি" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

নতুন তথ্য সংযোজন
(বৃটিশ থেকে প্রাপ্ত জল করের সংসধন)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা দৃশ্যমান সম্পাদনা
(নতুন তথ্য সংযোজন)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
" বুধাই শরিফ " ছিলেন বিহারের রাজ কোষাধ্যক্ষ
 
২৩ জুন ১৭৫৭ সালে পলাশী যুদ্ধে নবাব মির্জা মুহাম্মদ সিরাজ-উদ-দৌলার পরাজয়ের ফলে বিহার বৃটিশদের অধিনস্ত হওয়ায় বুধাই শরিফ প্রান ভয়ে তার পরিবার সহ পূর্ব বাংলার সিলেটে চলে আসেন এবং এর কিছুদিন পরেসেখানেই তিনি মৃত্যু বরন করেন। তার মৃত্যুর পরে "পাঞ্জুশরিফ " তার মাতা" চান বিবিকে " নিয়ে প্রথমে খুলনা চলে আসেন এবং এর কিছুদিন পরে ১৭৮০ সালে মেহেন্দিগঞ্জ চোলে আসেন এবং বসতি স্থাপন করেন যা ছিল জোড়াসাঁকো ঠাকুর এস্টেটে জমিদারির অংশ । "পাঞ্জুশরিফ" ঠাকুর এস্টেটের কর্তৃক এই অঞ্চলে জমিদারি প্রাপ্ত হন এবং পরবর্তী সময়ে আত্মীয়তা স্বরূপ শায়েস্তাবাদ নবাব কর্তৃক কিছু অঞ্চল উপহার প্রাপ্ত হন।
 
 
 
 
"পাঞ্চু শরিফ" ছয় পুত্র সন্তান ও একদুই কন্যা সন্তান এর জনক
 
১ আব্দুল করিম চৌধুরী(ভেলু মিয়া)
৪ আব্দুস ছোবাহা চৌধুরী(ছোবাহান মিয়া)
 
৫ মফিদুল ইসলাম চৌধুরী (ফেদু মিয়া)
৫ ফেদু মিয়া (আসল নাম পরবর্তীতে জানা গেলে সংযোজন করা হবে)
 
৬ আবু মিয়া(আসল নাম পরবর্তীতে জানা গেলে সংযোজন করা হবে)
 
৭ মুকিমুন নেছা (কন্যা)
 
৫ ফেদু মিয়া (আসল৮) *নাম পরবর্তীতে জানা গেলে সংযোজন করা হবে)
 
 
 
 
 
 
 
 
ড়িটিস্থানিয়দের কাছে এটি '''কালামিয়া জমিদার বাড়ি''' নামেওনামে অধিক পরিচিত। <ref>[http://mehendigongup.barisal.gov.bd/site/top_banner/4cefa4b6-1796-11e7-9461-286ed488c766 চরহোগলা কালামিয়া জমিদার বাড়ি - মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা তথ্য বাতায়ন]</ref>
স্থানীয় অনেকের কাছে এটি কালামিয়া বাড়ি নামেও পরিচিত।
 
 
ড়িটি '''কালামিয়া জমিদার বাড়ি''' নামেও পরিচিত। <ref>[http://mehendigongup.barisal.gov.bd/site/top_banner/4cefa4b6-1796-11e7-9461-286ed488c766 চরহোগলা কালামিয়া জমিদার বাড়ি - মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলা তথ্য বাতায়ন]</ref>
 
==বর্তমান অবস্থা==
বেনামী ব্যবহারকারী