সোয়াইন ইনফ্লুয়েঞ্জা: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

 
===বাংলাদেশ ও ভারতে সোয়াইন ফ্লু===
২০০৯ সালের ১৮ জুন বাংলাদেশে প্রথম সোয়াইন ফ্লু সনাক্তকরা হয়। ১৭ বছর বয়স্ক রোগী যুক্তরাষ্ট্র সফর করে দেশে ফিরে অসুস্থ হয়ে পড়েন। বাংলাদেশ সরকারের আইডিসিআর, আসিডিডিআর,বি ও সিডিসির সম্বন্নিত সার্ভাইলেন্স কার্যক্রমে রোগীর দেহে সোয়াইন ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের উপস্থিতি নির্নয় করা হয়। তবে রোগী ধীরে ধীরে সুস্থ হয়ে উঠেন। এ যাবৎ বাংলাদেশে সোয়াইন ফ্লুর কারনে কোন মৃত্যুর ঘটনা রিপোর্ট করা হয়নি। <ref>[http://www.bdnews24.com/bangla/details.php?cid=2&id=52221&hb=2 বিডি নিউজ ২৪]</ref> ভারতে এ যাবৎ ত্রিশ জন সোয়াইন ফ্লু ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী সনাক্ত করা হলেও, কোন মৃত্যুর খবর পাওয়া যায় নি।<ref>[http://www.who.int/csr/don/2009_06_19/en/index.html বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার আপডেট ৫১]</ref>
 
==তথ্যসূত্র==
২,৫৭৮টি

সম্পাদনা