রঞ্জন রশ্মি: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
[[চিত্র:First medical X-ray by Wilhelm Röntgen of his wife Anna Bertha Ludwig's hand - 18951222.gif|thumb|''Hand mit Ringen'': রন্টগেনের তোলা প্রথম মানবদেহের এক্স-রে চিত্র। রন্টগেন ১৮৯৫ এর ২২শে ডিসেম্বর তাঁর স্ত্রী আনা বার্থা রন্টগেনের হাতের ছবি তোলেন।<ref>{{বই উদ্ধৃতি | শেষাংশ= Kevles | প্রথমাংশ=Bettyann Holtzmann | শিরোনাম=Naked to the Bone Medical Imaging in the Twentieth Century | প্রকাশক=Rutgers University Press | তারিখ=1996 | অবস্থান=Camden, NJ | পাতাসমূহ=19–22 | আইএসবিএন=0813523583}}</ref><ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি | শেষাংশ=Sample | প্রথমাংশ=Sharron | লেখক-সংযোগ= | coauthors= | শিরোনাম=X-rays | কর্ম=The electromagnetic spectrum | প্রকাশক=NASA | তারিখ=[[2007-03-27]] | ইউআরএল=http://science.hq.nasa.gov/kids/imagers/ems/xrays.html | সংগ্রহের-তারিখ=2007-12-03}}</ref>]]
[[চিত্র:X-ray by Wilhelm Röntgen of Albert von Kölliker's hand - 18960123-02.jpg|thumb|right|এক্স-রে ছবি(রেডিওগ্রাফ), taken by [[উইলিয়াম রন্টজেন]], of Albert von Kölliker's hand.]]
'''রঞ্জন রশ্মি''' ক্ষুদ্র [[তরঙ্গদৈর্ঘ্য]] বিশিষ্ট এক ধরনের [[তাড়িত চৌম্বক বিকিরণ]]। এর অপর নাম এক্স-রে (X-ray)। রঞ্জনরশ্মির [[তরঙ্গ দৈর্ঘ্য]] (সাধারণত ১০-০.০১ [[ন্যানোমিটার]]) সাধারণ আলোর চেয়ে অনেক কম বলে দর্শন অনুভূতি সৃষ্টি করতে পারে না। ১৮৯৫ সালে [[#redirectredirectউইলিয়াম রন্টজেন|উইলিয়াম রন্টগেন]] এই রশ্মি আবিস্কার করেন। তরঙ্গদৈর্ঘ্য যত ছোট হয় পদার্থ ভেদ করার ক্ষমতা তত বেশি হয়। চিকিৎসাক্ষেত্রে রোগনির্ণয়ে যুগান্তকারী পরিবর্তন এনেছে রঞ্জনরশ্মি।
 
== বৈশিষ্ট্য ==
১,৩৮০টি

সম্পাদনা