"সু ফেলজ, সাউথ ডাকোটা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

লেখা যোগ
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
(লেখা যোগ)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
 
বেস্ট লাইফ ম্যাগাজিনের তথ্যানুসারে, সু ফেলজ যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে স্বাস্থ্যসম্মত শহর। অনেক সংস্থা ও বিশ্লেষকের মতে, স্বাস্থ্য পরিস্থিতি বিবেচনায় সু ফেলজ যুক্তরাষ্ট্রের অন্যতম শ্রেষ্ঠ শহর।<ref>https://bestlifeonline.com/healthiest-cities/</ref><ref>https://www.argusleader.com/story/news/business-journal/2015/09/02/sioux-falls-ranked-among-healthiest-cities/71511730/</ref>
 
==ইতিহাস==
 
বিগ সু নদী থেকে সৃষ্ট জলপ্রপাতগুলোর সাথে সু ফেলজের ইতিহাস ওতপ্রোতভাবে জড়িত। ১৪০০০ বছর পূর্বে সর্বশেষ বরফ যুগে জলপ্রপাতগুলো সৃষ্টি হয়। ইউরোপীয়দের আগমনের পূর্বে হো-চাঙ্ক, আইউয়ে, উটোয়ে,মিজুরি, ওমাহা, কোয়াপাউ, কানসা, ওসেজ, আরিকিরা, ডাকোটা ও চেয়েন জাতির লোক এখানে বসবাস করত। বিগ সু নদীর তীরে উঁচু খাঁড়িতে এখনো আদিবাসীদের টিলাকৃতির কবরস্থান পরিলক্ষিত হয়। তারা এখানে কৃষিভিত্তিক সমাজ গড়ে তুলে। লাকুটা ও ডাকোটা জাতির অনেক লোক আজও সু ফেলজ শহরে বসবাস করছে।<ref>https://web.archive.org/web/20080304030725/http://www.americanindianservicesinc.org/</ref>
 
অষ্টাদশ শতাব্দীতে ফ্রেঞ্চ অভিযাত্রীরা সু ফেলজ পরিদর্শন করেন। ফিল্যান্ডার প্রেসকট প্রথম ইউরোপীয় বংশোদ্ভূত আমেরিকান হিসেবে সু ফেলজ ভ্রমণ করেন। ১৮৩২ সালের ডিসেম্বরে তিনি জলপ্রপাতের নিকটে ক্যাম্প স্থাপন করেন। ১৮৪৪ সালে ক্যাপ্টেন জেমস অ্যালেন এখানে সামরিক অভিযান পরিচালনা করেন। জ্যাকব ফেরিস ১৮৬৫ সালে '''পশ্চিমের রাজ্য ও ভূখণ্ড'''বইয়ে জলপ্রপাতগুলোর বর্ণনা দিয়েছেন। <ref>https://web.archive.org/web/20080705075009/http://www.siouxfalls.org/Information/history/siouxfalls.aspx</ref>
 
==তথ্যসূত্র==