মধ্য ভারত (রাজ্য): সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
সম্পাদনা সারাংশ নেই
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
 
== রাজনীতি ==
প্রাক্তন মধ্য ভারত রাজ্যের আলংকারীক প্রধান ছিলেন রাজপ্রমুখ। এই রাজ্যে এক জন উপরাজপ্রমুখের পদও ছিল। মধ্য ভারত রাজ্যে্র [[বিধানসভা]] মোট ৯৯ জন সদস্যের সমন্বয়ে গঠিত হয়েছিল। ৯৯ জন বিধায়ক মোট ৭৯ টি আসন (৫৯ জন একক সদস্য এবং ২০ জন দ্বৈত সদস্য) থেকে নির্বাচিত হতেন। অর্থাৎ, ৫৯টি আসনের প্রতিটিতে ১ জন করে এবং বাকি ২০টি আসনের প্রতিটিতে ২ জন করে নির্বাচিত হতেন। <ref name="eci2">{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://eci.nic.in/StatisticalReports/SE_1951/StatRep_51_MB.pdf|শিরোনাম=Statistical Report on General Election, 1951 to the Legislative Assembly of Madhya Bharat|প্রকাশক=Election Commission of India website}}</ref> রাজ্যে ৯টি [[লোকসভা|লোকসভা কেন্দ্র]] ছিল (৭ জন একক সদস্য এবং ২ জন দ্বৈত সদস্য)। <ref name="eci1">{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://eci.nic.in/StatisticalReports/LS_1951/VOL_1_51_LS.PDF|শিরোনাম=Statistical Report on General Elections, 1951 to the First Lok Sabha|প্রকাশক=Election Commission of India website|আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20090409233255/http://eci.nic.in/StatisticalReports/LS_1951/VOL_1_51_LS.PDF|আর্কাইভের-তারিখ=9 April 2009|ইউআরএল-অবস্থা=dead}}</ref>
 
১৯৪৮ সালের ২৮ মে থেকে ১৯৫৬ সালের ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত রাজ্যের রাজপ্রমুখ ছিলেন জীবজী রাও সিন্ধিয়া এবং লীলাধর যোশি ছিলেন রাজ্যের প্রথম মুখ্যমন্ত্রী। ১৯৪৯ সালের মে মাসে গোপী কৃষ্ণ বিজয়বর্গীয় তার স্থলাভিষিক্ত হন। ১৯৫০ সালের ১৮ অক্টোবর তখত্মল জৈন (জলোরি) মধ্যভারতের তৃতীয় মুখ্যমন্ত্রী হন।