"অবচেতন" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(1টি উৎস উদ্ধার করা হল ও 0টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল। #IABot (v2.0beta10))
*চেতন(Conscious) এবং এর সাথে অন্তর্ভুক্ত করেছিলেন ইগোকে (Ego)
*অবচেতন(Subconscious) বা প্রাক-চেতন (Preconscious)
*[[অচেতন মন | অচেতন]](Unconscious) এবং এর সাথে অন্তর্ভুক্ত করেছিলেন ইড (Id)ও সুপার ইগোকে (Super Ego)
<br />
চেতন মনে জাগ্রত অবস্থায় মানুষ পারিপার্শ্বিক জগতের সাথে সংযোগ রাখে। অবচেতন মনে সংযোগ রাখে অন্তরজগতের সাথে অর্থাৎ অতীত স্মৃতি ও জৈবিক প্রয়োজনসমূহের সাথে।.<ref name="csicop.org">{{ওয়েব উদ্ধৃতি |শিরোনাম=সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি |ইউআরএল=http://www.csicop.org/specialarticles/secrets.html |সংগ্রহের-তারিখ=১১ জানুয়ারি ২০১৭ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20090726183419/http://www.csicop.org/specialarticles/secrets.html# |আর্কাইভের-তারিখ=২৬ জুলাই ২০০৯ |অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ }}</ref> মনোবিজ্ঞানী সিগমুণ্ড ফ্রয়েডের মতে, মানব মনের প্রায় ৯০ শতাংশই অবচেতন বাকী কেবল ১০ শতাংশ চেতন অবস্থায় থাকে।অবচেতন মন যদিও আমাদের জাগ্রত চেতনার বাইরে তথাপিও কিছু প্রচেষ্টার বিনিময়ে একে আমাদের চেতন মনে আনা যায়। উল্লেখ্য যে, এই প্রক্রিয়ার সাহায্যেই মানসিক রোগীদের মনোচিকিৎসা করা হয়।
৭৫টি

সম্পাদনা