"মুঘল স্থাপত্য" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(সংশোধন, সম্প্রসারণ, পরিষ্কারকরণ)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা দৃশ্যমান সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
{{Islam in India}}
 
'''মুঘল স্থাপত্য''' [[ইসলামি স্থাপত্য|ইসলামি]], [[ইরানীয় স্থাপত্য|পারস্য]] ও [[ভারতীয় স্থাপত্য|ভারতীয় স্থাপত্যের]] এক সংমিশ্রণ। ষোড়শ ও সপ্তদশ শতাব্দীতে [[ভারতীয় উপমহাদেশ|ভারতীয় উপমহাদেশে]] প্রসারিত [[মুঘল সাম্রাজ্য|মুঘল সাম্রাজ্যে]] এই স্থাপত্যশৈলীটি বিকশিত হয়ে ওঠে।<ref>{{বই উদ্ধৃতি|ইউআরএল=|শিরোনাম=Mughal India : art, culture and empire : manuscripts and paintings in the British Library|শেষাংশ=Losty, Jeremiah P.|প্রথমাংশ=|তারিখ=2012|বছর=|প্রকাশক=British Library|অবস্থান=London|পাতাসমূহ=|অন্যান্য=Roy, Malini, Dr., British Library.|আইএসবিএন=978-0-7123-5870-5|oclc=805013698}}</ref> মুঘল স্থাপত্যশৈলীর অনেক নিদর্শন ভারত, আফগানিস্তান, বাংলাদেশ এবং পাকিস্তানে দেখতে পাওয়া যায়।
 
১৫২৬ সালে [[পানিপথের প্রথম যুদ্ধ|পানিপথের যুদ্ধে]] [[বাবর|বাবরের]] বিজয়ের পরে মুঘল রাজবংশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। পাঁচ বছরের শাসনামলে বাবর স্থাপত্যে যথেষ্ট আগ্রহী ছিলেন। তাঁর নাতি [[আকবর]] তার রাজত্বকালে স্থাপত্যশৈলীটি প্রবলভাবে বিকশিত হয়েছিল। তাঁর মধ্যে ছিল [[আগ্রা দুর্গ]], [[ফতেপুর সিকরি|ফতেহপুর সিক্রি]] এবং [[বুলন্দ দরওয়াজা]]। আকবরের ছেলে [[জাহাঙ্গীর]] [[আজাদ কাশ্মীর|কাশ্মীরের]] [[শালিমার উদ্যান, লাহোর|শালিমার উদ্যান]] তৈরি করেছিলেন।<ref>{{বই উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://books.google.com/books?id=B8-FZwEACAAJ&hl=en|শিরোনাম=Mughal Architecture & Gardens|শেষাংশ=Michell|প্রথমাংশ=George|শেষাংশ২=Pasricha|প্রথমাংশ২=Amit|তারিখ=2011|প্রকাশক=Antique Collectors' Club|ভাষা=en|আইএসবিএন=978-1-85149-670-9}}</ref>