"প্রতিবাদী মতবাদ (খ্রিস্টধর্ম)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(বানান ও বাক্যের অসম্পূর্ণতা সংশোধন, রচনাশৈলীর ধারাবাহিকতা সংরক্ষণ ইত্যাদি।)
{{Infobox Christian denomination
|icon = Golden Christian Cross.svg
|icon_width = 25px
|icon_alt =
|name = প্রোটেস্ট্যান্টবাদ
|native_name = {{lang-la|Protestantes}}
|native_name_lang = la
|image = File:Lutherstadt Wittenberg 09-2016 photo06.jpg
|imagewidth = 225px
|alt =
|caption = অল সেন্টস গির্জা, ভিটেনবার্গ, [[জার্মানি]]
|abbreviation =
|main_classification= প্রোটেস্ট্যান্ট
|type =
|scripture = [[বাইবেল]]
|theology = প্রোটেস্ট্যান্ট ধর্মতত্ত্ব
|polity =
|structure =
|leader_title = সোলা স্ক্রিপতুরা
|leader_name = ধর্মগ্রন্থ
|leader_title1 = প্রশাসন
|leader_name1 =
|leader_title2 =
|leader_name2 =
|leader_title3 =
|leader_name3 =
|fellowships_type =
|fellowships =
|fellowships_type1 =
|fellowships1 =
|division_type =
|division =
|division_type1 =
|division1 =
|division_type2 =
|division2 =
|division_type3 =
|division3 =
|associations =
|area = [[আন্তর্জাতিক]]
|language =
|liturgy =
|headquarters =
|founder = [[মার্টিন লুথার]]
|founded_date = ষোড়শ শতাব্দী
|founded_place = [[জার্মানি]]
|parent =
|merger =
|absorbed =
|separations =
|merged_into =
|defunct =
|congregations_type =
|congregations =
|members = ৮০০ মিলিয়ন – ১ বিলিয়ন]].<ref name="pewforum1">{{cite web|url=https://web.archive.org/web/20131101114257/http://www.pewforum.org/files/2011/12/Christianity-fullreport-web.pdf |title=Pewforum: Grobal Christianity |format=PDF |date= |accessdate=14 May 2014}}</ref>
|ministers_type =
|ministers =
|missionaries =
|churches =
|hospitals =
|nursing_homes =
|aid =
|primary_schools =
|secondary_schools =
|tax_status =
|tertiary =
|other_names =
|publications =
|website =
|slogan =
|logo =
|footnotes = }}
 
'''প্রোটেস্ট্যান্টবাদ''' হল [[খ্রিষ্টধর্ম]]ের দ্বিতীয় বৃহত্তম শাখা যার অনুসারীর সংখ্যা ৮০০ মিলিয়ন থেকে ১ বিলিয়ন, যা গোটা খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের ৩৭%।<ref name="pewforum1">{{cite web|url=https://web.archive.org/web/20131101114257/http://www.pewforum.org/files/2011/12/Christianity-fullreport-web.pdf |title=Pewforum: Grobal Christianity |format=PDF |date= |accessdate=14 May 2014}}</ref><ref name="gordonconwell.edu">{{cite web|url=http://www.gordonconwell.edu/resources/documents/1IBMR2015.pdf|title=Christianity 2015: Religious Diversity and Personal Contact|publisher=gordonconwell.edu|date=January 2015|accessdate=29 May 2015|archive-url=https://web.archive.org/web/20170525141543/http://www.gordonconwell.edu/resources/documents/1IBMR2015.pdf|archive-date=25 May 2017|url-status=dead}}</ref>{{efn|Most current estimates place the world's Protestant population in the range of 800 million to more than 1 billion. For example, author Hans Hillerbrand estimated a total Protestant population of 833,457,000 in 2004,<ref name="books.google.pl">{{cite book|last=Hillerbrand|first=Hans J.|title=Encyclopedia of Protestantism: 4-volume Set|url=https://books.google.com/books?id=PMSTAgAAQBAJ&pg=RA2-PA349|year=2004|publisher=Routledge|isbn=978-1-135-96028-5|page=2}}</ref> while a report by Gordon-Conwell Theological Seminary – 961,961,000 (with inclusion of independents as defined in this article) in mid-2015.<ref name="gordonconwell.edu"/>}} এটি ১৬শ শতাব্দীর সংস্কার আন্দোলনের মাধ্যমে শুরু হয়েছিল{{efn|Some movements such as the [[Hussites]] or the [[Lollards]] are also considered Protestant today, although their origins date back to years before the launch of the Reformation. Others, such as the [[Waldensians]], were later incorporated into another branch of Protestantism; in this case, the Reformed branch.}} যা এর অনুসারীদের মতে ছিল [[ক্যাথলিক মণ্ডলী]]র ত্রুটিসমূহের বিরোধী।<ref>{{cite web|url=http://www.oxforddictionaries.com/definition/english/Protestant|title=Protestant – Definition of Protestant in English by Oxford Dictionaries|website=Oxford Dictionaries – English}}</ref> প্রোটেস্ট্যান্টরা রোমান ক্যাথলিক মণ্ডলীর পোপীয় আধিপত্ত ও ধর্মীয় সংস্কৃতির মতবাদকে প্রত্যাখ্যান করে, তবে ইউক্যারিস্টে [[যিশু]]র প্রকৃত উপস্থিতি এবং গির্জার শাসনব্যবস্থা ও প্রেরিতের উত্তরাধিকার সম্পর্কিত বিষয়গুলো নিয়ে তাদের নিজেদের মধ্যে দ্বিমত রয়েছে।<ref>{{Cite book|url=https://books.google.com/books?id=xLBa5aO7fgQC|title=Protestants: A History from Wittenberg to Pennsylvania 1517–1740|first=C. Scott|last=Dixon|date=2010|publisher=John Wiley & Sons|via=Google Books|isbn=9781444328110}}</ref> তারা সকল বিশ্বাসীদের যাজকত্ব, শুধু বিশ্বাসের দ্বারা নয় বরং ভালো কাজের দ্বারা ন্যায্যতা (সোলা ফিদে) এবং বিশ্বাস ও নৈতিকতায় কেবল বাইবেলের সর্বোচ্চ কর্তৃত্বের (সোলা স্ক্রিপতুরা) ওপর জোর দেয়।<ref>{{Cite book|url=https://books.google.com/books?id=YGqVAwAAQBAJ&pg=PA159|title=Mothering the Fatherland: A Protestant Sisterhood Repents for the Holocaust|first=George|last=Faithful|date=2014|publisher=Oxford University Press|via=Google Books|isbn=9780199363476}}</ref><ref>{{cite web|url=https://books.google.com/books?id=QDGaORL-BQ4C&pg=PA75|title=The Trouble with Christianity|first=Philip|last=Voerding|date=1 August 2009|publisher=AuthorHouse|via=Google Books}}</ref>
 
 
[[খ্রিস্ট ধর্ম|খ্রিস্টানদের]] মধ্যে যে প্রধান তিনটি ভিন্নমতাবলম্বী গোষ্ঠী রয়েছে, তাদের একটি গোষ্ঠীর বিশ্বাসকে বলা হয় '''প্রোটেস্ট্যান্ট মতবাদ''', যা আসলে কোনো বিশেষ বা নির্দিষ্ট বিশ্বাস নয়, বরং বিভিন্ন ছোটো গোষ্ঠী বা ব্যক্তিবর্গের সমষ্টি। অনেকক্ষেত্রে [[ক্যাথলিক]] বা [[অর্থোডক্স খ্রিস্টান|গোঁড়া খ্রিস্টান]] ছাড়া বাকি খ্রিস্টানদের প্রোটেস্ট্যান্ট বলা হয়। ইউরোপে ১৬ শতকে সংঘটিত প্রোটেস্ট্যান্ট সংস্কার-আন্দোলন থেকে এর গোড়াপত্তন হয়েছিল।
 
প্রোটেস্ট্যান্ট আন্দোলন প্রথম শুরু হয় জার্মানিতে। ১৫২৭ খ্রিস্টাব্দে মার্টিন লুথার প্রণীত গ্রন্থ ‘দ্য নাইন্টি ফাইভ থিসিস’ গ্রন্থে তিনি রোমন যাজকীয় নীতি, তাঁদের প্রচলিত খ্রিস্ট বিশ্বাস নিয়ে অনেক ভিন্ন মতামত প্রকাশ করেন। ষোড়শ শতকে তাঁর অনুসারণকারীরা জার্মান স্ক্যান্ডিনেভিয়ার প্রতিষ্ঠা করে লুথিয়ান চার্চ। হাঙ্গেরি, স্কটল্যান্ড, ফ্রান্স, সুইৎজারল্যান্ড প্রভৃতি দেশেও একই আদলে চার্চের সংস্কার করা হয়। ১৫৫৩ খ্রিস্টাব্দে চার্চ অব ইংল্যান্ড পোপের কর্তৃত্ব থেকে নিজেদের সরিয়ে নেয়। [https://books.google.pl/books?id=gswCAAAAQAAJ&pg=PA400&dq=church+of+england+1529&hl=pl&sa=X&ei=HGiXU5SvG8rnygPLuoAY#v=onepage&q=church%20of%20england%201529&f=false] রিফর্মেশন অব চার্চ অব ইংল্যান্ড।
 
==তথ্যসূত্র==
==তথ্য উৎস==
{{সূত্র তালিকা}}
<ref>https://books.google.pl/books?id=gswCAAAAQAAJ&pg=PA400&dq=church+of+england+1529&hl=pl&sa=X&ei=HGiXU5SvG8rnygPLuoAY#v=onepage&q=church%20of%20england%201529&f=false<r/ef>রিফর্মেশন অব চার্চ অব ইংল্যান্ড।
 
==বহির্সংযোগ==
১৮২টি

সম্পাদনা