"দারুচিনি" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

দারুচিনি, (ইংরেজি নাম: Cinnamon) (বৈজ্ঞানিক নাম: Cinnamomus Zeylanicum)
একটি মসলা বৃক্ষের নাম। স্বাভাবিক পরিবেশে এই বৃক্ষের উচ্চতা দশ থেকে পনের মিটার পর্য্যন্ত হয়ে থাকে। আদি নিবাস [[শ্রীলংকা]]য়। আজ কাল [[ইন্দোনেশিয়া]], [[ভারত]], [[বাংলাদেশ]] ও [[চীন]] প্রভৃতি দেশে ও উৎপাদিত হচ্ছে। দেখতে কিছুটা [[তেজপাতা]] বৃক্ষের মতো এই বৃক্ষের চামড়াটা মসলা হিসেবে ব্যবহৃত হয়। দারুচিনির সুগন্ধ যুক্ত তৈল ও পাওয়া যায়।
 
[[File:Cinnamon (দারচিনি).JPG|thumb|left|Cinnamon (দারচিনি)]]
দারুচিনি নিছক মসলা হিসেবে দারুচিনি বেশি পরিচিত। কিন্তু এই মসলা স্বাস্থ্যের জন্যও দারুণ উপকারী। তাহলে আসুন জেনে নেয়া যাক...
 
হৃদরোগ প্রতিরোধ: হৃদরোগ প্রতিরোধে দারুচিনি দারুণ সহায়ক। এই মসলা হৃদযন্ত্রের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখে। এতে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে যায় অনেকটাই।
 
অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট:  দারুচিনিতে রয়েছে পর্যাপ্ত অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এর ফলে নানা জটিল রোগের বিরুদ্ধে রক্ষাকবচ হিসেবে কাজ করে এই মসলা।
 
স্নায়বিক স্বাস্থ্য: রক্তে শর্করার পরিমাণ কমাতে সহায়ক দারুচিনি। এর ফলে প্রদাহ কমে, স্নায়বিক স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটে।
 
ত্বকের যত্নে: দারুচিনি খেলে ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়ে। ব্রণ রোধ করতে দারুণ উপকারী এই মসলা।
 
স্মৃতিশক্তি বাড়ায়: নিয়মিত দারুচিনি খান। এতে স্মৃতিশক্তি যে বাড়বে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই।
 
পেট ব্যথা উপশম: এই মসলা অ্যাসিডিটির সমস্যা কমায়। এতে পেটের ব্যথা উপশম হয়। এ ছাড়া রক্তে ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের (এলডিএল) মাত্রা কমাতে অনন্য ভূমিকা রাখে দারুচিনি।
 
 
-প্রিন্স রিচার্ড[[File:Cinnamon (দারচিনি).JPG|thumb|left|Cinnamon (দারচিনি)]]
 
==রাসায়নিক গুণ==
বেনামী ব্যবহারকারী