"আসাম" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সংশোধন
(বানান সংশোধন)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
(সংশোধন)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
 
'''আসাম''' বা '''অসম''' ([[অসমীয়া ভাষা|অসমীয়া]]: অসম ''অখ়ম্‌'') [[ভারত|ভারতবর্ষের]] উত্তর-পূর্ব সীমান্তে অবস্থিত একটি রাজ্য।
আসামের অধিবাসী বা আসামের ভাষাকে [[অসমীয়া]] বা ইংরেজিতে ''Assamese'' নামে আখ্যায়িত করা হয়। তবে আসামের এক-তৃতীয়াংশ অধিবাসী [[বাঙালী]] এবং তারা [[অসমীয়া]] ভাষী আগ্রাসন থেকে নিজেদের ভাষা ও কৃষ্টি রক্ষার্থে লড়াই করে যাচ্ছে।ব্রিটিশ শাসনকালে বিশেষ করে ১৮৫০ থেকে ১৮৬০ সালের মধ্যে ব্রিটিশরা ভারতের বিভিন্ন রাজ্য থেকে অনেক শ্রমিক এনেছিলেন চা বাগানে জন্য। যার মধ্যে অন্যতম রাজ্য হচ্ছে উরিষ্যাউড়িষ্যা, বিহার তাছাড়া অন্যান্য রাজ্য এর ভাষাভাষী চা শ্রমিক বসবাস করে, তারা প্রত্যেক জাতির সাথে খাপ খাইয়ে নিতে পারে।
 
কলকাতা (মেদিনীপুর, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বর্ধমান) অসমের দুই উপত্যকা ব্রহ্মপুত্র এবং বরাক উপত্যকা। যারা 1850১৮৫০ সাল থেকে বর্তমান অবধি পর্যন্ত যারা ব্রহ্মপুত্র উপত্যকার আছে তারা অসমীয়া সংস্কৃতির সাথে মিশে গেছে যারা বরাক উপত্যকায় চা বাগানগুলোতে বাস করে সে বাঙালি গুলো আজও পশ্চিমবঙ্গের রাঢ়ী
কলকাতা ( মেদিনীপুর, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, বর্ধমান)
ঝাড়খন্ডী বাংলা উপভাষা তে কথা বলে এই বাঙালাভাষি চা শ্রমিকরা ,তবে হে রাঢ়ী এবং ঝাড়খন্ডী 90৯০% পশ্চিমবঙ্গের ভাষা সাথে মিলিত বাকি 10১০% না মিল হওয়া এটাই স্বাভাবিক কেননা দেশ স্বাধীন আজ কত বছর হয়ে গেছে !
অসমের দুই উপত্যকা ব্রহ্মপুত্র এবং বরাক উপত্যকা। যারা 1850 থেকে বর্তমান অবধি পর্যন্ত যারা ব্রহ্মপুত্র উপত্যকার আছে তারা অসমীয়া সংস্কৃতির সাথে মিশে গেছে যারা বরাক উপত্যকায় চা বাগানগুলোতে বাস করে সে বাঙালি গুলো আজও পশ্চিমবঙ্গের রাঢ়ী
ঝাড়খন্ডী বাংলা উপভাষা তে কথা বলে এই বাঙালাভাষি চা শ্রমিকরা ,তবে হে রাঢ়ী এবং ঝাড়খন্ডী 90% পশ্চিমবঙ্গের ভাষা সাথে মিলিত বাকি 10% না মিল হওয়া এটাই স্বাভাবিক কেননা দেশ স্বাধীন আজ কত বছর হয়ে গেছে !
অসমিয়া ভাষাকে স্নেহের সাথে সম্মান করে এবং অসমিয়া ভাষাকে রাজ্য ভাষা হিসেবে গর্ব করে ।
 
৫১১টি

সম্পাদনা