বিভাস রায়চৌধুরী: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(বানান সংশোধন)
সম্পাদনা সারাংশ নেই
==লিখন শৈলী==
 
রায়চৌধুরী বলিষ্ঠ ভাষায় জীবন থেকে লেখেন, তিনি ছন্দোময় এবং গদ্যকবিতা উভয় মাধ্যমেই সিদ্ধহস্ত। তার কবিতায়, তিনি প্রায়শই জীবনের আনন্দ এবং দুঃখ অন্বেষণ করেন, যার মধ্যে থাকে [[বঙ্গভঙ্গ (১৯৪৭)|বঙ্গভঙ্গের]] পরিণতি, শরণার্থী-জীবনের সংগ্রাম, মাতৃভাষার জন্য ভালবাসা এবং তার নিজের মানুষের কষ্ট। তার সাম্প্রতিক কবিতার বই, ''যশোর রোডের গাছ'' ([[যশোর|যশোরের]] রাস্তার উভয় পাশের গাছগুলি), স্বার্থপরতা ও লোভের কারণে গাছের পতন, দূষণ এবং ধ্বংসের বর্ণনা দেয়। তিনি 'সাধারণ মানুষের ভাষা' ব্যবহার করেন তবে তার রূপকগুলি পাঠকদের উপর এক গা ছমছমে প্রভাব ফেলে।<ref name="eminant Bengali poet praises Roy Chowdhury">{{বই উদ্ধৃতি |শেষাংশ১=Goswami |প্রথমাংশ১=Joy |শিরোনাম=Gonsaibagan,Vol.2 |প্রকাশক=Prativas |অবস্থান=Kolkata |পাতাসমূহ=see page–193 }}</ref> তিনি মধ্যযুগীয় বাংলা সাহিত্যে জনপ্রিয় একটি একটি ছন্দোবদ্ধ ধরন, পয়ার ছন্দসহ সকল ধরনের কাব্যিক আকারে লেখেন। তার কাব্যিক যাত্রার প্রথম দিকে তিনি [[জয় গোস্বামী]], শ্যামল কান্তি দাস, [[মৃদুল দাশগুপ্ত]] এবং নির্মল হালদার প্রভৃতি ১৯৭০ এর প্রখ্যাত বাঙালি কবি দ্বারা প্রভাবিত হয়েছিলেন।<ref name="Interview in Epilogue by Kiririti Sengupta">{{বই উদ্ধৃতি|শেষাংশ১=Roychowdhury|প্রথমাংশ১=Bibhas|শিরোনাম=Poem Continuous:Reincarnated Expression|প্রকাশক=Inner Child Press Lmt.|অবস্থান=New Jersey,U.S.A|পাতা=see -68}}</ref> [[File:At international poetry day.jpg|thumb|আন্তর্জাতিক কবিতা দিবসে কলকাতার জীবনান্দ শব্দঘরে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিভাস রায়চৌধুরী (ডানে)]] [[File:IMG 20180210 181345 HDR.jpg|thumb|২০১৮ সালের [[Kolkata Book Fair|কলকাতা গ্রন্থ মেলায়]] পঠনরত বিভাস রায়চৌধুরী]]
 
==সমালোচকদের প্রশংসা==