"তাওয়াক্কোল কারমান" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(চিত্র)
ট্যাগ: ২০১৭ উৎস সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
'''তাওয়াক্কোল আব্দেল-সালাম কারমান''' (জন্ম ৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৭৯) একজন ইয়েমেনের সাংবাদিক, রাজনীতিক এবং ইয়েমেনের আল-ইসলাহ রাজনৈতিক দলের একজন প্রবীণ সদস্য। এছাড়া কারমান একজন মানবাধিকার কর্মী হিসেবেও দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন। তিনি “উইমেন জার্নালিস্ট উইথআউট চেইন্স” নামক নারী সাংবাদিকদের একটি দলকে নেতৃত্ব দেন। ২০০৫ সালে তিনি এটি প্রতিষ্ঠা করেন।<ref name="Sakkaf">{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শেষাংশ=Al-Sakkaf |প্রথমাংশ=Nadia |শিরোনাম=Renowned activist and press freedom advocate Tawakul Karman to the Yemen Times: "A day will come when all human rights violators pay for what they did to Yemen" |প্রকাশক=Women Journalists Without Chains |তারিখ=17 June 2010 |ইউআরএল=http://womenpress.org/articles.php?id=309 |সংগ্রহের-তারিখ=30 January 2011 |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://www.webcitation.org/5w8NYbYFU?url=http://womenpress.org/articles.php?id=309 |আর্কাইভের-তারিখ=৩০ জানুয়ারি ২০১১ |অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ }}</ref> কারমান আন্তর্জাতিকাভাবে পরিচিত হয়ে উঠেন ২০১১ সালের ইয়েমেন বিফ্রোহের সময়। তাকে “লৌহ মানবী” ও “বিদ্রোহের মাতা” বলে অভিহিত করে ইয়েমেনের জনগণ।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|শেষাংশ=Macdonald |প্রথমাংশ=Alastair |ইউআরএল=http://www.reuters.com/article/2011/10/07/us-nobel-peace-idUSTRE7963KM20111007 |শিরোনাম=Nobel honours African, Arab women for peace |প্রকাশক=Reuters |তারিখ=7 October 2011|সংগ্রহের-তারিখ=16 November 2011}}</ref><ref name="mother">{{সংবাদ উদ্ধৃতি | শেষাংশ = Al-Haj| প্রথমাংশ = Ahmed|লেখক২=Sarah El-Deeb | শিরোনাম = Nobel peace winner Tawakkul Karman dubbed 'the mother of Yemen's revolution'|এজেন্সি=Associated Press| প্রকাশক = Sun Sentinel| তারিখ=7 October 2011 | ইউআরএল=http://mobile.sun-sentinel.com/p.p?m=b&a=rp&id=961114&postId=961114&postUserId=42&sessionToken=&catId=6565&curAbsIndex=1&resultsUrl=DID%3D6%26D | সংগ্রহের-তারিখ=8 October 2011}}</ref> তিনি ২০১১ সালে নোবেল শান্তি পুরস্কার অর্জন করেন।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://www.bbc.co.uk/news/world-15211377 |শিরোনাম=Nobel Peace Prize awarded jointly to three women |প্রকাশক=BBC Online |তারিখ=7 October 2011 |সংগ্রহের-তারিখ=16 November 2011}}</ref> তিনিই প্রথম ইয়েমেনীয় ও প্রথম আরবীয় নারী হিসেবে এই পুরস্কার অর্জন করেন।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://www.bbc.co.uk/news/world-middle-east-15216473 |শিরোনাম=Profile: Nobel peace laureate Tawakul Karman |প্রকাশক=BBC Online |তারিখ=7 October 2011 |সংগ্রহের-তারিখ=16 November 2011}}</ref> এছাড়া তিনি দ্বিতীয় মুসলিম নারী এবং দ্বিতীয় সর্বকনিষ্ঠ ব্যক্তি হিসেবে নোবেল শান্তি পদক লাভ করেন।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://www.democracynow.org/2011/10/7/yemeni_activist_tawakkul_karman_first_female |শিরোনাম=Yemeni Activist Tawakkul Karman, First Female Arab Nobel Peace Laureate: A Nod for Arab Spring |প্রকাশক=Democracynow.org |সংগ্রহের-তারিখ=10 December 2011}}</ref>
 
২০০৫ সালে সাংবাদিক হিসেবে কারমান ইয়েমেনে পরিচিত হয়ে উঠেন। এছাড়া তিনি একটি মোবাইল ফোন সংবাদ সেবার প্রবক্তা ছিলেন, ২০০৭ সালে এই সেবাটির লাইসেন্স বাতিল করা হয়। এরপর তিনি গণমাধ্যমের স্বাধীনতার পক্ষে আন্দোলন শুরু করেন। ২০০৭ সালের মে মাসে কারমান সাপ্তাহিকভাবে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেন। একসময় এই প্রতিবাদের মাধ্যমে গণমাধ্যমের সংস্কারের দাবি ওঠে।<ref name="interview2">{{সংবাদ উদ্ধৃতি |ইউআরএল=http://www.yementimes.com/defaultdet.aspx?SUB_ID=34255 |শিরোনাম=Renowned activist and press freedom advocate Tawakul Karman to the Yemen Times:"A day will come when all human rights violators pay for what they did to Yemen." |প্রকাশক=Yemen Times |তারিখ=3 November 2011 |সংগ্রহের-তারিখ=15 November 2011 |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20120101154044/http://www.yementimes.com/defaultdet.aspx?SUB_ID=34255 |আর্কাইভের-তারিখ=১ জানুয়ারি ২০১২ |অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ }}</ref> এছাড়া কারমান আরব বিদ্রোহের স্বপক্ষেও বিদ্রোহ করেন। তিনি ইয়েমেনীয় রাষ্ট্রপতি আলি[[আলী আবদুল্লাহ সালেহ]]-এর বিপক্ষে প্রবল প্রতিবাদী হয়ে উঠেন।
 
==প্রাথমিক জীবন==
১০,১৩৪টি

সম্পাদনা