"শীর্ষে নারী (যৌনাসন)" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(১টি উৎস উদ্ধার করা হল ও ০টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল।) #IABot (v2.0)
 
এই যৌন আসনের নাম কাউগার্ল হয়েছে কারণ উনবিংশ শতাব্দীতে ব্রিটেনে রাখালী মেয়েরা গরু বা খচ্চর বা অন্য কোনো জন্তুর ঘাড়ে চড়ত, তারা আবার বিয়ে করলে স্বামীর শিশ্নের ওপর ঐরূপ বসত বিধায় এর নাম কাউগার্ল পজিশন হয়ে যায় ধীরে ধীরে, যদিও বহু প্রাচীনকাল থেকেই এইরূপ যৌনাসনের প্রচলন ছিলো। এই রকম যৌনাসনে পুরুষ শুয়ে থাকে আর নারীটি তার ওপরে লিঙ্গের ওপরে তার নিজের লিঙ্গের ভর দিয়ে বসে এতে যোনিতে পুংলিঙ্গ ঢুকে যায়, পুরুষটির দিকে মুখ করে বসলে সেটাকে 'সুপিরিয়র কাউগার্ল পজিশন' এবং পেছন দিকে মুখ করে বসলে অর্থাৎ পুরুষটির দিকে পিঠ দিয়ে বসলে সেটাকে 'রিভার্স কাউগার্ল পজিশন' বলা হবে। এই ধরনের যৌনাসন নারী কর্তৃত্বের আদিমতা নির্দেশ করে বলে বলেন থাকেন অনেক নারীবাদীই, তাছাড়া প্রেমিকার তার প্রেমিকের প্রতি ভালোবাসা এই যৌনাসনের মাধ্যমে ভালোভাবে প্রকাশিত হতে পারে।<ref name="ReferenceA"/>
[[image:Couple 69 oral sex position on bed.jpg|thumb|300px|শীর্ষে নারী (যৌনাসন)]]
 
এই যৌনাসনে নারীরা তাদের যোনিতে ঠিকমত এবং সত্যিকারের পুলক লাভ করতে পারে, তারা এতে পুরুষের বডির ওপর বসে বা শুয়ে যৌনতার এক প্রকারের হলেও স্বাধীনতা ভোগ করতে পারে। যৌনসঙ্গমের সময় কমপক্ষে আবার নারীদেরকে এরকম সুযোগ প্রত্যেক পুরুষ প্রেমিক বা স্বামীকেই দেওয়া উচিত।<ref name=everydayhealth>[http://www.everydayhealth.com/sexual-health/sexual-positions.aspx "Sex Positions For Better Sex"]. Retrieved 2010-10-22.</ref>
==তথ্যসূত্র==
বেনামী ব্যবহারকারী