জামাল নজরুল ইসলাম: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(জন্মস্থানের নাম।)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
 
==জন্ম ও শিক্ষাজীবন==
জামাল নজরুল ইসলাম ১৯৩৯ সালের ২৪শে ফেব্রুয়ারি [[ঝিনাইদহ]] শহরে জন্মগ্রহণ করেন।করেন।তবে তার আদিনিবাস চট্টগ্রাম জেলায়। তার বাবা তখন সে শহরের মুন্সেফ (বর্তমানে সহকারী জজের সমতুল্য) ছিলেন। তার বয়স যখন মাত্র ১ বছর তখনই তার বাবা কলকাতায় বদলি হন। জামাল নজরুল প্রথমে ভর্তি হন [[কলকাতা|কলকাতার]] মডেল স্কুলে। এই স্কুল থেকে পরবর্তীতে শিশু বিদ্যাপীঠে। চতুর্থ শ্রেণী পর্যন্ত এই বিদ্যাপীঠেই পড়েন। পরবর্তীতে আবার মডেল স্কুলে ফিরে যান। কলকাতায় মডেল স্কুলের পর [[চট্টগ্রাম|চট্টগ্রামে]] চলে আসেন। এখানে [[চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুল|চট্টগ্রাম কলেজিয়েট স্কুলে]] ভর্তি হওয়ার জন্য পরীক্ষা দেন। এই ভর্তি পরীক্ষায় বিশেষ কৃতিত্বের জন্য তাকে "ডাবল প্রমোশন" দিয়ে সরাসরি ষষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি করে নেয়া হয়। নবম শ্রেণী পর্যন্ত এই স্কুলে পড়াশোনা করেন। এখানে পড়ার সময়ই [[গণিত|গণিতের]] প্রতি তার অন্যরকম ভালোবাসার সৃষ্টি হয়। অনেক অতিরিক্ত [[জ্যামিতি]] সমাধান করতে থাকেন। নবম শ্রেণীতে উঠার পর পূর্ব পাকিস্তান ছেড়ে পশ্চিম [[পাকিস্তান|পাকিস্তানে]] চলে যান। সেখানে গিয়ে ভর্তি হন ''লরেন্স কলেজে''। এই কলেজ থেকেই তিনি ''সিনিয়র কেমব্রিজ'' ও ''হায়ার সিনিয়র কেমব্রিজ'' পাশ করেন। সে সময় সিনিয়র কেমব্রিজ বলতে বর্তমানের ''ও-লেভেল'' এবং হায়ার সিনিয়র কেমব্রিজ বলতে বর্তমানের ''এ-লেভেল'' বোঝাতো। এ সময় নিজে নিজে অনেক অঙ্ক কষতেন। বিভিন্ন বই থেকে সমস্যা নিয়ে সমাধানের চেষ্টা করতেন যা পরবর্তীতে তার অনেক কাজে আসে। উল্লেখ্য, হায়ার সিনিয়র কেমব্রিজে তিনি একাই কেবল গণিত পড়েছিলেন। এটা বেশ উচ্চ পর্যায়ের গণিত হওয়ায় সবাই নিতে চাইতো না। এ সময়ই গণিতের প্রতি দুর্বল হয়ে পড়েন। লরেন্স কলেজের পাঠ শেষে [[কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়|কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের]] [[সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজ, কলকাতা|সেন্ট জেভিয়ার্স কলেজে]] পড়তে যান।<ref>{{ওয়েব উদ্ধৃতি |শিরোনাম=সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি |ইউআরএল=http://www.eaward.org.bd/eaward_new/PDF/16-84-90-Science.pdf |সংগ্রহের-তারিখ=১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১২ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20120404011922/http://www.eaward.org.bd/eaward_new/PDF/16-84-90-Science.pdf |আর্কাইভের-তারিখ=৪ এপ্রিল ২০১২ |অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ }}</ref> এখান থেকে ''বিএসসি অনার্স'' করেন। এই কলেজের একজন শিক্ষককে তিনি নিজের প্রিয় শিক্ষক হিসেবে উল্লেখ করেছেন। এই শিক্ষকের নাম "ফাদার গোরে"। গণিতের জটিল বিষয়গুলো খুব সহজে বুঝিয়ে দিতেন বলেই জে এন ইসলাম তার ভক্ত হয়ে পড়েছিলেন। গোরে তার কাছে গণিতের বিভিন্ন বিষয় জানতে চাইতেন, ইসলাম আগ্রহভরে তা শেয়ার করতেন। গোরের সাথে ইসলামের এই সম্পর্কের কারণ বলতে গিয়ে ইসলাম বলেন,
{{উক্তি|গণিতকে এমনিতেই অনেকে ভয় পেত। কিন্তু এটির প্রতিই ছিল আমার অসীম আগ্রহ, ঝোঁক। এ কারণেই বোধহয় তিনি আমাকে পছন্দ করতেন।|sign=|source=}}
 
বেনামী ব্যবহারকারী