"সিলেটি রন্ধনশৈলী" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

হালনাগাদ করা হল, তথ্যসূত্র যোগ/সংশোধন
(হালনাগাদ করা হল)
(হালনাগাদ করা হল, তথ্যসূত্র যোগ/সংশোধন)
| image4 = ꠉꠥꠀ-ꠙꠣꠘ.jpg|caption4=[[পান]]-[[সুপারি]] দিয়ে সিলেটি খাবার শেষ করা হয়।
}}
'''সিলেটি রন্ধনশৈলী''' ({{Lang-syl|ꠍꠤꠟꠐꠤ ꠞꠣꠘꠗꠣ}}) মুলত [[সিলেটি|সিলেটিদের]] খাদ্য সংস্কৃতিকে উপস্থাপন করে। যার মধ্যে মশলাদার মুরগির টিক্কা মশলা থেকে শুরু করে টক জাতীয় [[সাতকরা|হাতকরা]], নুনর বড়া থেকে শুরু মিষ্টান্নজাতীয় [[তুশা শিন্নি]] এবং [[হুটকি শিরা]] অন্তর্গত। সিলেটি রন্ধনশৈলীতে [[সাতকরা|হাতকরা]] একটি সাধারণ পদ যা মাছ এবং [[মাংস|মাংসের]] সাথে বিভিন্ন খাবার রান্নায় ব্যবহৃত হয়। [[ভিটামিন সি]] এবং [[জারণরোধক|অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট]] সমৃদ্ধ, হাতকরা তরকারি ভাত দিয়ে খেতে সবথকে ভালো লাগে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.mid-day.com/articles/mumbai-food-bangladeshi-dishes-straight-from-sylhet-at-restaurant-in-bkc/20740177|শিরোনাম=Mumbai Food: Bangladeshi Dishes Straight From Sylhet At Restaurant In BKC|তারিখ=Apr 14, 2019|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|প্রকাশক=[[Mid Day]]}}</ref> সিলেটিরা মূলত ভাত ও [[মাছ]] খেয়ে থাকলেও তাদের রন্ধনশৈলী সিলেটের বহিরাগতদের থেকে বেশ স্বতন্ত্র।<ref name="coursehero">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.coursehero.com/file/p70ujoo/The-area-covered-by-Sylhet-Division-is-12569-km%C2%B2-which-is-about-8-of-the-total/|শিরোনাম=The area covered by sylhet division is 12569 km²|তারিখ=|সংগ্রহের-তারিখ=25 April 2020|প্রকাশক=[[coursehero.com]]}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.thestatesman.com/supplements/a-fillet-from-sylhet-89932.html|শিরোনাম=A fillet from sylhet|তারিখ=September 14, 2015|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|প্রকাশক=[[The Statesman (India)]]}}</ref> সিলেটি রান্নায় যেমন তেল ছাড়া তরকারি রয়েছে,<ref>{{citenews|url=httphttps://www.homechefgreatbritishchefs.com.bd/reciperecipes/%E0%A6%B6%E0%A7%81%E0%A6%9F%E0%A6%95%E0%A6%BFshutki-%E0%A6%B6%E0%A6%BF%E0%A6%B0%E0%A6%BEshira-%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%B2%E0%A7%87%E0%A6%9F%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A8%E0%A6%BE--by-homefoodrecipe|title=শুটকিShutki শিরাshira (সিলেটের রান্না)|language=bnBangladeshi dried shrimp stew|access-date=2220 April 2020| date=13 Mar 2019| publisher=www.homechef.com.bd[[Great British Chefs]]}}</ref> তেমনি প্রচুর টক (টেঙ্গা) স্বাদের তরকারিও রয়েছে। [[বরাক উপত্যকা]] থেকে [[সিলেট বিভাগ|সুরমা উপত্যকার]] বহু সংস্কৃতির লোক,<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://scroll.in/article/919904/in-assams-barak-valley-insecurities-about-citizenship-drive-bengali-hindus-to-the-bjp|শিরোনাম=In Assam’s Barak Valley, insecurities about citizenship drive Bengali Hindus to the BJP|তারিখ=Apr 15, 2019|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=scroll.in}}</ref> ও সিলেটি প্রবাসীরা যুগ যুগ ধরে প্রচলিত সিলেটি খাবার এবং আস্বাদনকে প্রভাবিত করেছে। এর মধ্যে [[খাসিয়া জনগোষ্ঠী|খাসি]], [[কুকি (জাতিগোষ্ঠী)|কুকি]] এবং অন্যান্য উপজাতির রন্ধনশৈলী লক্ষণীয়।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.bhorerkagoj.com/print-edition/2015/07/16/42488.php|শিরোনাম=সিলেটের উপভাষা ও জীবনধারা : ড. শ্যামল কান্তি দত্ত|তারিখ=16 July 2015|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=[[Bhorer Kagoj]]}}</ref> এই অঞ্চলে প্রাপ্ত [[শাকসবজি]] এবং পশুপাখির উপর নির্ভর করে ''সিলেটের রন্ধনশৈলী'' সমৃদ্ধ হয়েছে। মূলত দেশীয় কিছু বৈচিত্র্য সহ, সিলেটিদের খাদ্য সংস্কৃতি পরিবেশিত হয় যেখানে কিছু বাহ্যিক প্রভাবও রয়েছে। [[শাহ জালাল|শাহ জালালের]] ৩৬০জন সফর সঙ্গী এই অঞ্চলে কেবল তাদের বৈচিত্র্যময় সংস্কৃতিই নিয়ে আসেনি, তাদের নিজস্ব রান্নার স্বতন্ত্র স্টাইলও নিয়ে আসে। যার মধ্যে মুরগী, গরুরমাংস এবং ছাগল দিয়ে রান্না করা মুঘলাই, মধ্য-প্রাচ্য এবং উত্তর ভারতীয় স্টাইলের অনেকগুলি মাংসের খাবার রয়েছে। মুঘলাই পরটা, [[পোলাও]], [[কোর্মা|কোরমা]], কালিয়া, রোস্ট, [[বিরিয়ানি|বিরিয়ানী]] এবং [[কোফতা]] তরকারি হিসেবে, এবং জরদা, [[পায়েস|ফিরনি]] এবং [[পায়েস]] ডেজার্ট হিসেবে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।
 
ঊননবিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয়ার্ধ থেকে, ইউরোপীয় এবং [[মুসলমান|মুসলমানরা]] সিলেট অঞ্চলে বিস্কুট এবং [[রুটি|ব্রেডের]] প্রচলন করেছিল যা [[উম্মাহ|মুসলিম সম্প্রদায়কে]] অত্যন্ত আকর্ষণ করে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.sahapedia.org/our-food-their-food-historical-overview-of-the-bengali-platter|শিরোনাম=Our Food Their Food: A Historical Overview of the Bengali Platter|তারিখ=5 September 2016|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=Sahapedia}}</ref> এটি হিন্দুদের দ্বারা অনেক পরে জনপ্রিয়তা পায়।<ref name="das">{{বই উদ্ধৃতি|শিরোনাম=Culinary Culture in Colonial India|শেষাংশ=Ray|প্রথমাংশ=Utsa|তারিখ=5 January 2015|প্রকাশক=[[Cambridge University]] Press}}</ref> [[লন্ডন|লন্ডনে]], ১৯৪০-এর দশকে কিছু উদ্যোগী সিলেটি ক্যাফে স্থাপন শুরু করে এবং মেনুতে তরকারী এবং ভাত রাখে। কিন্তু আত্মবিশ্বাসের অভাবে [[ব্রিটিশ বাংলাদেশি|বাংলাদেশীরা]] তাদের খাবারকে ''ভারতীয়'' হিসাবে উল্লেখ করে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.birminghammail.co.uk/whats-on/arts-culture-news/history-birmingham-curry-houses-traced-14113342|শিরোনাম=History of Birmingham curry houses traced in major city exhibition|তারিখ=4 Jan 2018|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|প্রকাশক=[[Birmingham Mail]]}}</ref> [[যুক্তরাজ্য|যুক্তরাজ্যে]], ১০টিরও বেশি ভারতীয় রেস্তোরাঁর ৮টিই বাংলাদেশিদের মালিকানাধীন,<ref name="bbc">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.bbc.co.uk/worldservice/learningenglish/multimedia/london/unit6/read1_popup.html|শিরোনাম=BBC World Service|তারিখ=|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|প্রকাশক=[[BBC World]]|অবস্থান=London}}</ref> যার ৯৫% সিলেটি।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.theguardian.com/uk/2002/jun/21/religion.bangladesh|শিরোনাম=From Bangladesh to Brick Lane|তারিখ=21 Jun 2002|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|প্রকাশক=[[The Guardian]]}}</ref> ৮০% থেকে ৯০% ব্রিটিশ কারি-হাউস সরাসরি [[সিলেট|সিলেটে]]র সাথে সম্পৃক্ত থাকা সত্ত্বেও [[সিলেট]] তার রন্ধনশৈলী জন্য পরিচিতি পায় নি।<ref name="ft">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.ft.com/content/2165379e-b4b2-11e5-8358-9a82b43f6b2f|শিরোনাম=The great British curry crisis|তারিখ=January 8, 2016|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|প্রকাশক=[[Financial Times]]}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.npr.org/sections/thesalt/2017/12/05/567004913/whats-the-difference-between-a-curry-house-and-an-indian-restaurant|শিরোনাম=What's The Difference Between A Curry House And An Indian Restaurant?|তারিখ=December 5, 2017|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|প্রকাশক=[[npr.org]]}}</ref> সিলেট অঞ্চলের রাঁধুনিরা ১৯৬০-এর দশক থেকে ব্রিটিশ তরকারীকে আরও বেশি পরিমাণে বিকশিত করেছে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.aljazeera.com/indepth/features/british-taste-curry-changed-appetite-remains-strong-191007095240140.html|শিরোনাম=British taste for curry has changed, but appetite remains strong|তারিখ=7 Oct 2019|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=[[Al Jazeera]]}}</ref> সিলেটিদের দ্বারা উদ্ভাবিত চিকেন টিক্কা মশলাকে ব্রিটেনের পররাষ্ট্র সচিব [[রবিন কুক]] ২০০১ সাল ব্রিটেনের [[জাতীয় খাবার]] হিসাবে ঘোষণা দেন।<ref>{{বই উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://books.google.com.bd/books?id=9rFIyN1OWfQC&pg=PA164&lpg=PA164&dq=food+culture+of+Sylhet&source=bl&ots=ovj-VReceJ&sig=ACfU3U3nLgoLP-juk9zEjMZr_EJmjpnJkQ&hl=en&sa=X&ved=2ahUKEwi98svXp__oAhWKSH0KHR8WC044RhDoATAIegQICBAB#v=snippet&q=Sylhet&f=false|শিরোনাম=Food Culture in Great Britain|কর্ম=Laura Mason|পাতা=164|সংগ্রহের-তারিখ=2020-04-27}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.historic-uk.com/CultureUK/The-British-Curry/|শিরোনাম=The British Curry|তারিখ=|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|প্রকাশক=www.historic-uk.com}}</ref> বাংলাদেশি রেস্তোঁরায় ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী [[টনি ব্লেয়ার|টনি ব্লেয়ারের]] কন্যার জন্মদিন উদযাপন সিলেটি রন্ধনশৈলীর জনপ্রিয়তার প্রমাণ দেয়।<ref name="tds">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://archive.thedailystar.net/forum/2007/june/bangladeshish.htm|শিরোনাম=Bangladeshis: Moving with the times|তারিখ=June 2007|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|প্রকাশক=[[The Daily Star]]}}</ref> ইতিহাসবিদ '''লিজি কলিংহাম''' তাঁর ২০০৫ সালের বই ''কারি: এ বায়োগ্রাফি-তে'' লিখেছেন যে ''সিলেটি কারি রান্না "অবিকশিত ব্রিটিশ থালাকে" একটি নতুন স্বাদের বর্ণালীতে রূপান্তর করেছে''।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.theguardian.com/lifeandstyle/2017/jan/12/who-killed-the-british-curry-house|শিরোনাম=Who killed the great British curry house?|তারিখ=12 Jan 2017|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|প্রকাশক=[[The Guardian]]}}</ref>
 
== ভাত ==
বেশিরভাগ [[বাংলাদেশী]] সিদ্ধ ভাত খেতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে,<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.banglatribune.com/national/news/248875|শিরোনাম=আতপ চাল খাওয়ার অভ্যাস কত দিনে হবে?|তারিখ=5 Oct 2017|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=Bangla Tribune|ভাষা=bn}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://m.banglanews24.com/economics-business/news/bd/603862.details|শিরোনাম=ওএমএসে আতপ চাল পেয়ে ক্ষুব্ধ ক্রেতারা|তারিখ=20 Sep 2017|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=banglanews24.com|ভাষা=bn}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.ntvbd.com/bangladesh/155181/%E0%A6%86%E0%A6%A4%E0%A6%AA-%E0%A6%9A%E0%A6%BE%E0%A6%B2-%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%87-%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%A4%E0%A6%BE-%E0%A6%B6%E0%A7%82%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%AF-%E0%A6%93%E0%A6%8F%E0%A6%AE%E0%A6%8F%E0%A6%B8%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%9A%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%A6%E0%A7%8B%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%A8|শিরোনাম=আতপ চাল, তাই ক্রেতা শূন্য ওএমএসের চালের দোকান|তারিখ=20 Sep 2017|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=[[NTV (Bangladesh)]]|ভাষা=bn}}</ref> শুধুমাত্র [[চট্টগ্রাম|চাটগাইয়া]] এবং [[সিলেটি]]রা ব্যতীত।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://archive.prothom-alo.com/detail/date/2013-08-31/news/131024|শিরোনাম=চট্টগ্রামসহ দুই বিভাগের জন্য আতপ চাল কিনছে সরকার|তারিখ=13 Feb 2011|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=[[Theপ্রথম Daily Prothom Aloআলো]]|ভাষা=bn}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://blog.bdnews24.com/sukantaks/225867|শিরোনাম=বঙ্গে নতুন উপদ্রপ- আতপ চালের ‘নক্তা’|তারিখ=19 Sep 2017|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=[[bdnews24.com]]|ভাষা=bn}}</ref> [[সিলেট অঞ্চল|সিলেট অঞ্চলে]]র উল্লেখযোগ্য ধান হল আউশ, আমান, বোরো, ইরি, বিরইন, কালোজিরা, সোনালী জিরা ইত্যাদি। ''আলা ভাত'' (আতপ চাল) সিলেটিদের প্রধান খাদ্য।<ref name="syl">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://www.sylheterdak.com.bd/details.php?id=9857|শিরোনাম=চুঙ্গা পিঠা : বাঁশ দিয়ে প্রাতঃরাশ|তারিখ=26 April 2020|কর্ম=[[Sylheter Dak]]|সংগ্রহের-তারিখ=3 Jan 2018|ভাষা=bn}}</ref> এটা কিছুটা চটচটে এবং সুস্বাদু।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.prothomalo.com/opinion/article/44618/%E0%A6%86%E0%A6%AE%E0%A6%B0%E0%A6%BE-%E0%A6%AF%E0%A7%87-%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A6%A3%E0%A7%87-%E0%A6%AA%E0%A7%81%E0%A6%B7%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A6%BF%E0%A6%AC%E0%A6%9E%E0%A7%8D%E0%A6%9A%E0%A6%BF%E0%A6%A4|শিরোনাম=আমরা যে কারণে পুষ্টিবঞ্চিত|তারিখ=5 Sep 2013|সংগ্রহের-তারিখ=21 April 2020|প্রকাশক=[[Theপ্রথম Daily Prothom Alo]]আলো|ভাষা=bn}}</ref> সিলেটিরা বিভিন্ন স্বাদের মিষ্টান তৈরিতে আঠালো ভাত পছন্দ করে। গবেষণায় দেখা গেছে যে সিলেটে উৎপন্ন ধানে বাংলাদেশের অন্যান্য অঞ্চলে একই ধরণের ধানের চেয়ে কম [[আর্সেনিক]] রয়েছে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.iospress.nl/ios_news/low-arsenic-rice-discovered-in-bangladesh-could-have-major-health-benefits/|শিরোনাম=Low-Arsenic Rice Discovered in Bangladesh Could Have Major Health Benefits|তারিখ=Feb 18, 2013|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=[[IOS Press]]}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://frontline.thehindu.com/science-and-technology/lowarsenic-rice/article4434752.ece|শিরোনাম=Low-arsenic rice|তারিখ=Feb 20, 2013|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=frontline.thehindu.com}}</ref> বায়োমেডিকাল স্পেকট্রোস্কোপি এবং ইমেজিং জার্নাল অনুসারে, সিলেটি ভাতে প্রয়োজনীয় পুষ্টিউপাদান [[সেলেনিয়াম]] এবং [[জিঙ্ক|জিঙ্কের]] পরিমাণ অধিকতর।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.thehindubusinessline.com/news/world/scientists-find-lower-arsenic-bangladeshi-rice-strain/article23092738.ece|শিরোনাম=Scientists find lower arsenic Bangladeshi rice strain|তারিখ=Feb 14, 2013|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=thehindubusinessline.com}}</ref> [[ভারত]] ও [[পাকিস্তান|পাকিস্তানের]] সুপরিচিত [[বাসমতী]] সুগন্ধি চালের তুলনায় বেশ কয়েকটি জাতের সিলেটি সুগন্ধি চালওচাল কম আর্সেনিক দূষিত।সংক্রমিত।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.sciencedaily.com/releases/2013/02/130212100510.htm|শিরোনাম=Low-arsenic rice discovered in Bangladesh could have major health benefits|তারিখ=Feb 12, 2013|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=[[ScienceDaily]]}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://www.newsmax.com/t/health/article/490414?keywords=Low-Arsenic-Super-Nutritious-Rice-Discovered-Sylheti&year=2013&month=02&date=14&id=490414|শিরোনাম=Low-Arsenic, Super-Nutritious Rice Discovered|তারিখ=Feb 12, 2013|সংগ্রহের-তারিখ=20 April 2020|প্রকাশক=[[Newsmax]]}}</ref>
 
=== আখনি ===
 
=== বিরইন ভাত ===
'''বিরইন ভাত''' সিলেট অঞ্চলে এক ধরণের আঠালো চাল দিয়ে তৈরি একটি জনপ্রিয় খাবার। বিশেষ ধরণের লাল-সাদা আঠালো সুগন্ধী ''বিরইন চাল'' কেবল সিলেট অঞ্চলে পাওয়া যায়।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://jalalabadbarta.com/2018/12/7486/|শিরোনাম=সিলেটী বিরইন চালের ইতিহাস|তারিখ=26 April 2020|কর্ম=jalalabadbarta.com|সংগ্রহের-তারিখ=9 Dec 2018|ভাষা=bn}}</ref> ''সুগন্ধী'' এই ''বিরইন চাল'' ভাজা মাছ, [[মাংস]] বা [[কাবাব]], ''খিরশাহ, রসমালাই'', খেজুর গুড় ইত্যাদি দিয়ে রান্না করে খাওয়া হয়।<ref name="syl">{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://www.sylheterdak.com.bd/details.php?id=9857|শিরোনাম=চুঙ্গা পিঠা : বাঁশ দিয়ে প্রাতঃরাশ|তারিখ=26 April 2020|কর্ম=[[Sylheterসিলেটের Dakডাক]]|সংগ্রহের-তারিখ=3 Jan 2018|ভাষা=bn}}</ref><ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://archive.thedailystar.net/lifestyle/2008/05/04/page02.htm|শিরোনাম=The Dailystar archive|তারিখ=26 April 2020|কর্ম=[[Theদ্য Dailyডেইলি Starস্টার]]|সংগ্রহের-তারিখ=May 27, 2008}}</ref> ''বিরইন চাল'' [[সিলেট]] এবং [[চট্টগ্রাম|চট্টগ্রামের]] পার্বত্য অঞ্চলে চাষ করা একধরনের [[জৈব খাদ্য|জৈব ধান]]।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=https://bangladeshiweus.com/product/bironi-chal-binni/|শিরোনাম=Biroin Chal (Binni)|তারিখ=9 Dec 2018|কর্ম=bangladeshiweus.com|সংগ্রহের-তারিখ=26 April 2020}}</ref> এটি [[সিলেট অঞ্চল|সিলেট অঞ্চলের]] ঐতিহ্যবাহী পিঠা [[চুঙ্গা পিঠা]]<nowiki/>র প্রধান উপাদান।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://sylheterdak.com.bd/details.php?id=20749|শিরোনাম=বাংলার ঐতিহ্যবাহী পিঠা|তারিখ=2 January 2019|কর্ম=[[Sylheterসিলেটের Dak]]ডাক|সংগ্রহের-তারিখ=28 April 2020|ভাষা=bn}}</ref>
 
=== খিচুড়ি ===