"বান্ডা সাগর" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বানান সংশোধন
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
(বানান সংশোধন)
 
বান্ডা সাগরীয় পাতের প্রধান অংশ বান্ডা সাগর দ্বারা পরিব্যাপ্ত। সাগরের দক্ষিণ প্রান্ত নিম্নস্খলনীয় এলাকার উপরের দ্বীপ বৃত্তচাপ দ্বারা গঠিত।
[[সুন্ডা খাত|সুন্ডা খাতের]] পূর্বে [[তিমুর খাত]] অবস্থিত, টানিম্বার খাত টানিম্বার দ্বীপপুঞ্জের দক্ষিণে অবস্থিত এবং আরু খাত আরু দ্বীপপুঞ্জের পূর্বে অবস্থিত।
এই খাতগুলি বান্ডা সাগরীয় পাতের নীচেনিচে [[ইন্দো-অস্ট্রেলীয় পাত|ইন্দো-অস্ট্রেলীয় পাতের]] নিম্নস্খলনীয় অঞ্চল, এবং এখানে ইন্দো-অস্ট্রেলীয় পাতটি উত্তরদিকে অপসারিত হয়।
ইন্দো-অস্ট্রেলীয় পাত দ্বারা ধীরে উত্তরদিকে বাহিত অগ্র-বৃত্তচাপীয় পলি ভাঁজ এবং চ্যুত হয়ে তিমুর দ্বীপপুঞ্জের সৃষ্টি হয়েছে।
উত্তর-পূর্বে রয়েছে [[পশ্চিম পাপুয়া]]র ''পক্ষীশীর'' পাতের নিম্নস্খলনীয় অঞ্চলের উপর অবস্থিত [[সেরাম দ্বীপ]]।<ref name="UN">
|পাতা=৬৭৭}}
</ref>
* ২০০৬-এর বান্ডা সাগরের ভূমিকম্পটি ২৬শে জানুয়ারি ঘটে। এর মাপ ছিল ৭.৬, এবং এটির উৎপত্তি স্থল ছিল আম্বন দ্বীপের ২০০ কি.মি. দক্ষিণে এবং পূর্ব তিমুরের ৪৪৫ কি.মি উত্তরে, ভূত্বকের থেকে ৩৯৭ কি.মি. নীচে।নিচে। এই ভূকম্পনটির কারণ ছিল তিমুর খাতে তিমুর পাতের নীচেনিচে অস্ট্রেলীয় পাতের নিম্নস্খলন। <ref name=Intensity>
{{ওয়েব উদ্ধৃতি
|শিরোনাম=M7.6 - Banda Sea
১৪,৬২৬টি

সম্পাদনা