"অপারেশন ওভারলর্ড" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
[[ব্রিটিশ ব্রডকাস্টিং কর্পোরেশন]] প্রদর্শনীর উদ্দেশ্যে ফ্রান্স উপকূলের বেশ কিছু চিত্র ধারণ করেছিল যেগুলোর মধ্যে থেকে নর্ম্যান্ডির ছবিগুলো নিয়ে মিত্রবাহিনী ঐ এলাকার একটি বিস্তারিত ভৌগোলিক মানচিত্র তৈরি করে। পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায় নরম্যান্ডির উক্ত অঞ্চলে প্রধানত রয়েছে বিস্তীর্ণ জলাভূমি যেগুলো ভারি সামরিক যান চলাচলের উপযুক্ত নাও হতে পারে। প্রশিক্ষণ ও অভিযানের চর্চার উদ্দেশ্যে ব্রিটেনের নরফোকে প্রায় অনুরূপ সমুদ্র সৈকতে অপারেশান ওভারলর্ডের খুঁটিনাটি বিষয়সমূহ পরীক্ষা নীরিক্ষা করা হয়। এই পরীক্ষায় বেরিয়ে আসে নরম্যান্ডির ভূমি আদৌ ভারি সামরিক যানচলাচলের জন্য উপযুক্ত নয়। এ ব্যাপারে আরও তথ্য জানার লক্ষ্যে ১৯৪৩ সালের ডিসেম্বারে ব্রিটিশ নৌ বাহিনীর পক্ষ থেকে ''অপারেশান পোস্টেজ এব্‌ল'' নামক একটি পৃথক সামুদ্রিক রেকনেসান্স অভিযান চালানো হয়। এই অভিযানে একটি এক্স ক্লাস ডুবোজাহাজ ব্যবহৃত হয় যার উদ্দেশ্য ছিল নরম্যান্ডির ভূমি সম্পর্কে সঠিক ও কার্যকরী তথ্য সংগ্রহ করা।
 
৭ এপ্রিল ও ১৫ মে তারিখে বার্নার্ড মন্টগোমরি লন্ডনে অবস্থিত সেন্ট পল’স স্কুলে তার বিস্তারিত পরিকল্পনাটি মিত্রবাহিনীর শীর্ষ নেতৃবৃন্দের কাছে তুলে ধরেন।<ref name="StPaulsPrimarySource">{{ওয়েব উদ্ধৃতি|ইউআরএল=http://www.stpaulsschool.org.uk/page.aspx?id=8366#Montgomery|শিরোনাম=St. Pauls School biographies of famous pupils|সংগ্রহের-তারিখ=2007-11-03|পাতাসমূহ=paragraph 4|আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20080118114540/http://www.stpaulsschool.org.uk/page.aspx?id=8366#Montgomery#Montgomery|আর্কাইভের-তারিখ=২০০৮-০১-১৮|অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ}}</ref> মন্টগোমরি ৯০ দিনে ব্যাপ্তির একটি আগ্রাসন পরিকল্পনা দেন যেখানে ৯০ দিন<ref name="weinberg2">{{বই উদ্ধৃতি|শিরোনাম=A world at arms - A global history of World War II|শেষাংশ=Weinberg|প্রথমাংশ=Gerhard|বছর=1995|সংগ্রহের-তারিখ=2007-11-03|প্রকাশক=Cambridge University Press|পাতা=698}}</ref> পর ব্রিটিশ ও কানাডীয় বাহিনীর সেইনে পৌছবার কথা ও পরে কান<ref name="gilbert3">{{বই উদ্ধৃতি|শিরোনাম=The allied D-Day objective|শেষাংশ=Gilbert|প্রথমাংশ=Martin|লেখক-সংযোগ=Martin Gilbert|বছর=1989|প্রকাশক=|অবস্থান=|পাতা=538|পাতাসমূহ=|আইএসবিএন=|ইউআরএল-অবস্থা=কার্যকর|সংগ্রহের-তারিখ=2007-11-03|উক্তি=The allied D-Day objective-the vital communications centre at Caen|পাতা=538}}</ref> থেকে মার্কিন বাহিনীর সাথেক পূর্ণশক্তি নিয়ে পূর্বদিকে এগিয়ে যাওয়ার কথা বলা ছিল।
 
প্রথম চল্লিশ দিন যাবৎ কান ও চারবুর্গ শহরে শক্ত অবস্থান তৈরি করার কথা বলা হয়। বিশেষ করে চেরবূর্গের গভীর সমুদ্র বন্দরের দখল যে কোন মূল্যে ধরে রাখার উদ্দেশ্যে এই শক্তি সঞ্চয়ের বিষয়টির উপর জোর দেয়া হয়। এই অবস্থানের আরেকটি উদ্দেশ্য ছিল ব্রিটানি দখল করা ও ব্রিটানি সংলগ্ন আটলান্টিকের অন্যান্য বন্দরগুলো দখলের জন্য অভিযান পরিচালনা করা।
== মন্তব্য ==
;Footnotes
{{সূত্র তালিকা|2|group=nb}}
{{portalpar|World War II}}
;বর্ণনা
{{সূত্র তালিকা|3}}
{{দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ}}