"এমাজউদ্দিন আহমদ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

+
(+)
'''অধ্যাপক এমাজউদ্দিন আহমেদ''' [[ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়|ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের]] সাবেক উপাচার্য। তিনি ১৯৯২ সালে [[একুশে পদক]] লাভ করেন।
 
 
 
==বই বিতর্ক==
২০০৯ সালের একুশে বইমেলাতে প্রকাশিত "মুক্তিযুদ্ধে নারী" নামের বইটি নিয়ে এমাজউদ্দিন আহমেদ বিতর্কিত হয়ে পড়েন। বইটির লেখক হিসাবে মেহেদী হাসান পলাশের নাম থাকলেও সম্পাদক হিসাবে এমাজউদ্দিন আহমেদ ও জসীমউদ্দিন আহমদের নাম প্রকাশ পায়। ডেইলি স্টার পত্রিকার রিপোর্ট অনুসারে বইটি ২০০৬ সালে ইন্সটিটিউট অফ এনভায়রমেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট কর্তৃক প্রকাশিত এবং রোকেয়া কবীর ও মুজিব মেহেদী রচিত "মুক্তিযুদ্ধ ও নারী" বইয়ের হুবুহু নকল। এমাজউদ্দিন আহমেদ ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন, বইটি যে নকল, তা সম্পর্কে তিনি অবগত ছিলেন না। <ref name="dstar">[http://www.thedailystar.net/newDesign/news-details.php?nid=75366 2 former VCs in plagiarism debate], ডেইলি স্টার, ১১ই ফেব্রুয়ারি, ২০০৯।</ref>
 
==তথ্যসূত্র==
<references />
 
{{অসম্পূর্ণ}}
১৯,৪০৯টি

সম্পাদনা