"ইখটিওস্টেগা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

তথ্যসূত্র যোগ
(সম্প্রসারণ)
(তথ্যসূত্র যোগ)
| synonyms =
}}
'''''ইখটিওস্টেগা''''' ([[রোমান লিপি]] - ''Ichtyostega''; [[গ্রিক ভাষা|গ্রিক]] - ''ichthys'' "মাছ" এবং ''stega'' "ছাদ" বা "খুলি") হল একধরনের অধুনাবিলুপ্ত প্রাগৈতিহাসিক [[চতুষ্পদ প্রাণী|চতুষ্পদ]] [[উভচর]] [[মেরুদণ্ডী প্রাণী|মেরুদণ্ডী]] প্রাণী। যেসব প্রাচীনতম চতুষ্পদ প্রাণীর [[জীবাশ্ম]] আবিষ্কৃত হয়েছে, এরা তাদের মধ্যে অন্যতম। আজ থেকে ৩৬ কোটি ৫০ লক্ষ থেকে ৩৬ কোটি বছর আগে [[ডেভোনিয়ান]] পর্যায়ের শেষদিকে এদের দেখা পাওয়া যেত। যেসব চতুষ্পদ প্রাণী প্রথম জল ছেড়ে ডাঙায় উঠে আসে তাদের মধ্যে এরা ছিল অন্যতম। সাধারণভাবে এদেরকে অধিশ্রেণিগতভাবে "চতুষ্পদ" প্রাণী হিসেবে গণ্য করা হলেও এদের দেহের বেশ কিছু বৈশিষ্ট্য, যেমন - লেজ ও দাঁতের গঠন বা মাথার খুলি, প্রভৃতি থেকে [[সিলাকান্থ]] বর্গের (''Quastenflosser Ordnung'' বা ''Coelacanthiformes Order'') মাছের সাথে এদের যথেষ্ট দৈহিক কাঠামোগত মিল দেখতে পাওয়া যায়।<ref>Heberer, Gerhard. "Die Herkunft der Menschheit". ''Propyläen Weltgeschichte''. Band 1. Ed. Golo Mann und Alfred Heuss. Berlin, 1986. S. 87 - 153. ISBN 3549057318 </ref> সেই কারণে অনেকসময়ে এদের অধিশ্রেণিগতভাবে একটি পৃথক অধিশ্রেণি ''"স্টেগোসেফালিয়া"'' বা ''আদি চতুষ্পদ'' (''stem tetrapod'')-এর অন্তর্ভুক্ত হিসবেও অনেকে গণ্য করে থাকেন। সম্ভবত এরা ছিল মূলত অগভীর জলের বাসিন্দা। তবে এদের দেহে ফুসফুস এবং চার পায়ের অস্তিত্ব থেকে বোঝা যায়, বেশ কিছু সময় এরা ডাঙায় অতিবাহিত করতেও সক্ষম ছিল। সাধারণভাবে মনে করা হয় এদের পায়ে সাতটি করে আঙুলের অস্তিত্ব ছিল। তবে এ' নিয়ে সন্দেহের অবকাশ আছে।
 
==তথ্যসূত্র==