বসন্তরঞ্জন রায় বিদ্বদ্বল্লভ: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
তিনি বহু গ্রামে পুঁথির সন্ধান করে সারা জীবনে প্রায় ৮০০ পুঁথি সংগ্রহ করেছিলেন এবং সেগুলি [[বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদ|বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদকে]] দান করেছিলেন । তিনি [[বিষ্ণুপুর|বিষ্ণুপুরের]] কাছে কালিয়া গ্রামের নিবাসী দেবেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়ের বাড়ির গোয়াল ঘরের মাচা থেকে ১৩১৬ বঙ্গাব্দে [[বড়ু চণ্ডীদাস|বড়ু চণ্ডীদাসের]] [[শ্রীকৃষ্ণকীর্তন]] পুঁথি আবিষ্কার করেন ।<ref name="ReferenceA" /> এটি ছিল তার জীবনের সর্বশ্রেষ্ঠ কীর্তি । <ref name="ss"/> চর্যাপদের পরে শ্রীকৃষ্ণকীর্তন বাংলা সাহিত্যে দ্বিতীয় নিদর্শন।
 
[[১৮৯৪]] খ্রিষ্টাব্দ থেকে তিনি ''বেঙ্গল অ্যাকাডেমি অফ লিটারেচারের'' সদস্য ছিলেন । পরে এই সংস্থার নাম ''সাহিত্য পরিষদ'' হলে প্রথম থেকেই তিনি এর সদস্য হন । [[কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়|কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে]] বাংলা বিভাগ খোলা হলে [[আশুতোষ মুখোপাধ্যায় (শিক্ষাবিদ)|স্যার আশুতোষ]] তাকে অধ্যাপক মনোনীত করেন । [[১৯১৯]] থেকে [[১৯৩২]] খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত তিনি অধ্যাপনা করেন এবং এরপর সাহিত্য পরিষদের কাজে আত্মনিয়োগ করেন ।
 
==উপাধি==
১,৯৬,০১৪টি

সম্পাদনা