"কেলাসবিজ্ঞান" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
 
'''কেলাসবিজ্ঞান''' বিজ্ঞানের একটি ব্যবহারিক শাখা যেখানে [[কেলাসিত কঠিন পদার্থ|কেলাসিত কঠিন পদার্থে]]র অভ্যন্তরে পরমাণুসমূহের বিন্যাস ও [[পারমাণবিক বন্ধন|বন্ধন]] নিয়ে এবং [[কেলাস পিঞ্জর]]সমূহের (crystal lattice) জ্যামিতিক কাঠামো বের করা নিয়ে গবেষণা করা হয়। চিরায়তভাবে কেলাসসমূহের [[আলোকবিজ্ঞান|আলোকীয় ধর্ম]]গুলিকে খনিজবিজ্ঞান ও রসায়নবিজ্ঞানে বিভিন্ন পদার্থ চিহ্নিত করতে ব্যবহার করা হত। আধুনিক কেলাসবিজ্ঞানে কেলাসের ভেতরে [[রঞ্জনরশ্মি]] চালনা করে সেগুলির অপবর্তন পর্যবেক্ষণ ও বিশ্লেষণ করা হয়, যেখানে কেলাসগুলি এক ধরনের আলোক গরাদ বা জালি হিসেবে কাজ করে। [[রঞ্জনরশ্মি কেলাসবিজ্ঞান|রঞ্জনরশ্মি কেলাসবিজ্ঞানের]] বিভিন্ন কৌশল ব্যবহার করে রসায়নবিদেরা বিভিন্ন খনিজ ও জৈব পদার্থের (যেমন [[প্রোটিন]] বা [[ডিএনএ]]) জটিল, বৃহদাকার অণুর আভ্যন্তরীণ কাঠামো ও এদের অন্তর্নিহিত বিভিন্ন রাসায়নিক বন্ধন নির্ণয় করতে পারেন। রঞ্জনরশ্মি ছাড়াও ইলেকট্রন ও নিউট্রন রশ্মির অপবর্তন-ভিত্তিক কেলাসবিজ্ঞানও বিদ্যমান।
 
জাতিসংঘ ক্ষেত্রটিকে মর্যাদা দিয়ে [[২০১৪]] সালকে কেলাসবিজ্ঞানের আন্তর্জাতিক বছর হিসেবে ঘোষণা দেয়।<ref name="UN Resolution">[http://www.iycr2014.org/about/resolution UN announcement "International Year of Crystallography"]. iycr2014.org. 12 July 2012</ref>
 
==তথ্যসূত্র==
১,৭৯,৯৩৩টি

সম্পাদনা