"সুলতানা জামান" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
== অভিনয় জীবন ==
‘মাটির পাহাড়’ ছবিতে সুলতানা জামানের সঙ্গে অভিনয় করেছিলেন কাফি খান, রওশন আরা, কাজী খালেক। এই ছবিতে অভিনয়ের জন্য সুলতানা জামান চিত্রাকাশ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছিলেন। এরপর [[১৯৬২]] সালে [[কলিম শরাফী]] ও [[জহির রায়হান|জহির রায়হানের]] যৌথ পরিচালনায় ‘সোনার কাজল’, এহতেশাম পরিচালিত ‘চান্দা’, আব্দুল জব্বার খান পরিচালিত ‘জোয়ার এলো’ মুক্তি পায়। ‘চান্দা’ ও ‘জোয়ার এলো’ ছবির বাণিজ্যিক সাফল্য সুলতানা জামানকে রোমান্টিক অভিনেত্রী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করে।
[[১৯৬৪]] সালে খান আতাউর রহমান নির্মাণ করেন ‘অনেক দিনের চেনা’। [[১৯৬৫]] সালে ফতেহ লোহানী পরিচালিত ‘সাতরং’, আলী মনসুর পরিচালিত ‘জানাজানি’ এবং মোস্তাফিজ পরিচালিত ‘মালা’ মুক্তি পায়। ছবিটি পূর্ব ও পশ্চিম পাকিস্তানে সুপার-ডুপার হিট ও ব্যবসা সফল হয়। ‘মালা’ ছবিটির বাণিজ্যিক সাফল্যের কারণে সুলতানা জামান সম্মাননা পেয়েছিলেন। তিনি [[১৯৬৯]] সালে ‘মনের মত বউ’ ও ‘ভানুমতি’ ছবিতে অভিনয় করেন। [[১৯৭০]] সালে ‘মিশর কুমারী’ ও ‘আঁকাঁবাঁকা’ ছবিতে অভিনয় করেন তিনি। ‘ভানুমতি’ ও ‘ছদ্মবেশী’ নামে দুটি ছবির প্রযোজনাও করেন সুলতানা জামান। <ref name="বাংলা নিউজ ২৪"/>
স্বাধীনতার পর সুলতানা জামান অভিনীত ছবির মধ্যে রয়েছে ‘নয়নমণি’, ‘নিশান’, ‘জাদুর বাঁশি’, ‘অনুভব’, ‘তৃষ্ণা’, ‘অগ্নিশিখা’।<ref name="প্রথম আলো"/>
 
১,৮৫,২০১টি

সম্পাদনা