"কাইয়ুম চৌধুরী" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
(সংশোধন)
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
 
== শিল্প ভাবনা ==
[[১৯৫৭]] সালে সতীর্থ [[আমিনুল ইসলাম]] ও [[সৈয়দ জাহাঙ্গীর]]কে নিয়ে কাইয়ুম চৌধুরী গিয়েছিলেন [[কলকাতা|কলকাতায়]]। বৃটিশব্রিটিশ কাউন্সিলের তরুণ কর্মকর্তা জিওফ্রে হেডলির আহ্বানে এই সফর। কলকাতায় দেখা করেছিলেন [[সত্যজিৎ রায়]] ও [[খালেদ চৌধুরী]]র সঙ্গে। [[১৯৫৯]] সালে বন্ধুবর গাজী শাহাবুদ্দিন আহমদের [[সন্ধানী প্রকাশনী]] যাত্রা শুরু করে [[জহির রায়হান|জহির রায়হানের]] 'শেষ বিকেলের মেয়ে' গ্রন্থ প্রকাশের মাধ্যমে। [[১৯৬১]] সালে [[মাওলা ব্রাদার্স]] সৃজনশীল প্রকাশনার অধ্যায় উন্মোচন শুরু করে [[আবদুশ শাকুর|আবদুশ শাকুরের]] 'ক্ষীয়মাণ' এবং [[সৈয়দ শামসুল হক|সৈয়দ শামসুল হকের]] কাব্যগ্রন্থ 'একদা এক রাজ্যে' প্রকাশ দ্বারা। এই দুই প্রকাশনা সংস্থার কাজের পেছনে বরাবরই কাইয়ুম চৌধুরী সক্রিয় থেকেছেন। তিনি আরও প্রচ্ছদ আঁকেন ১৯৫৯ সালে প্রকাশিত [[শামসুর রাহমান|শামসুর রাহমানের]] প্রথম কাব্যগ্রন্থ 'প্রথম গান, দ্বিতীয় মৃত্যুর আগে।
 
১৯৫৯ এবং ১৯৬১ সালে [[বাংলাদেশ রেলওয়ে|রেলওয়ে]]র টাইমটেবিলের প্রচ্ছদ এঁকে সেরা পুরস্কারটি লাভ করেন কাইয়ুম চৌধুরী। তিনি [[১৯৬০]] সালে তাহেরা খানমের সঙ্গে পরিণয়-বন্ধনে আবদ্ধ হন, যিনি ছিলেন আর্ট কলেজে ভর্তি হওয়া প্রথম চারজন ছাত্রীর একজন। মনের সাযুজ্য তার শৈল্পিক প্রয়াসের জন্য অনুকূল ছিল এবং স্ত্রীর ভূমিকা প্রেরণাদায়ক ছিল। ১৯৬১ সালে ডিজাইন সেন্টার ছেড়ে অবজাভার হাউজে চিফ আর্টিস্ট হিসেবে যোগদান করেন।অবজারভার পত্রিকার রবিবারের সাময়িকীতে ডিজাইন নিয়ে যেসব নিরীক্ষা করতেন তার শিক্ষক [[জয়নুল আবেদীন|জয়নুলের]] দৃষ্টি আকর্ষণ করে। <ref name="Kaium Chowdury">[http://gunijan.org.bd/GjProfDetails_action.php?GjProfId=57]</ref>
১,৮৬,১২৭টি

সম্পাদনা