"চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগার" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

হালনাগাদ করা হল
(০টি উৎস উদ্ধার করা হল ও ১টি অকার্যকর হিসেবে চিহ্নিত করা হল।) #IABot (v2.0)
(হালনাগাদ করা হল)
| parent_organization= [[চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়]]
| affiliation =
| website ={{URLইউআরএল|library.cu.ac.bd}}
}}
'''চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগার''', [[চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়|চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের]] কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার এবং [[চট্টগ্রাম|চট্টগ্রামের]] সর্ববৃহৎ [[গ্রন্থাগার]]। ১৯৬৬ সালে প্রতিষ্ঠিত এই গ্রন্থাগারের বর্তমান সংগ্রহ সংখ্যা চার লক্ষের অধিক।<ref name="বাংলাপিডিয়া">{{বাংলাপিডিয়া উদ্ধৃতি |অধ্যায়=চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় | লেখক=ফয়েজুল আজিম}}</ref><ref name="আজাদী"/> গ্রন্থাগারটি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কর্তৃক নিয়ন্ত্রিত এবং পরিচালিত।
 
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগারএটি বাংলাদেশের একটি প্রধান গবেষণা গ্রন্থাগার, যেখানে বিভিন্ন ভাষায় এবং বিভিন্ন বিন্যাসে মুদ্রিত এবং ডিজিটাল সংস্করণে: বই, [[পাণ্ডুলিপি]], সাময়িকী, সংবাদপত্র, পত্রিকা, উপাত্ত, গবেষণা, বিশ্বকোষ, অভিধান, হ্যান্ডবুক, ম্যানুয়েল, মানচিত্র সহ বিভিন্ন সংগ্রহ রয়েছে।
 
==অবস্থান==
[[চিত্র:Chittagong University Library (09).jpg|thumb|বাম|২০১৫ সালে গ্রন্থাগার ভবন]]
 
১৯৬৬ সালের ১৮ নভেম্বরের কয়েকজন কর্মকর্তা তৎকালীন কলা নিয়ে ভবনের নিচতলায় {{রূপান্তর|১২০০|ft2}} বিশিষ্ট একটি কক্ষে মাত্র ৩০০টি বইয়ের সংগ্রহ নিয়ে গ্রন্থাগারটির যাত্রা শুরু হয়।<ref name="আজাদী">{{সংবাদ উদ্ধৃতি |লেখক=গাজী মোহাম্মদ নুরউদ্দিন |শিরোনাম=প্রাচীন পুঁথি-পাণ্ডুলিপির বিশাল সংগ্রহ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় গ্রন্থাগার |ইউআরএল=http://www.dainikazadi.org/details2.php?news_id=1617&table=september2014&date=2014-09-14&page_id=36&view=&instant_status= |সংগ্রহের-তারিখ=জানুয়ারি ১০, ২০১৫ |কর্ম=[[দৈনিক আজাদী]] |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20151023215055/http://www.dainikazadi.org/details2.php?news_id=1617&table=september2014&date=2014-09-14&page_id=36&view=&instant_status= |আর্কাইভের-তারিখ=২৩ অক্টোবর ২০১৫ |অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ}}</ref><ref name="এক টুকরো গ্রাম">{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শেষাংশ1=টিপু |প্রথমাংশ1=মহিউদ্দিন |শিরোনাম=চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি আলোকিত এক টুকরো গ্রাম |ইউআরএল=http://www.dailysangram.com/post/26215-চট্টগ্রাম-বিশ্ববিদ্যালয়-কেন্দ্রীয়-লাইব্রেরিআলোকিত-এক-টুকরো-গ্রাম |সংগ্রহের-তারিখ=১২ মে ২০১৯ |প্রকাশক=[[দৈনিক সংগ্রাম]] |তারিখ=২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১০ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20190512161231/http://www.dailysangram.com/post/26215-%E0%A6%9A%E0%A6%9F%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A6%97%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%AE-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%B6%E0%A7%8D%E0%A6%AC%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%B2%E0%A6%AF%E0%A6%BC-%E0%A6%95%E0%A7%87%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%80%E0%A6%AF%E0%A6%BC-%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%87%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%B0%E0%A6%BF%E0%A6%86%E0%A6%B2%E0%A7%8B%E0%A6%95%E0%A6%BF%E0%A6%A4-%E0%A6%8F%E0%A6%95-%E0%A6%9F%E0%A7%81%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A7%8B-%E0%A6%97%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%AE |আর্কাইভের-তারিখ=১২ মে ২০১৯ |অকার্যকর-ইউআরএল=না }}</ref> পরবর্তীকালে ১৯৬৮ সালে বর্তমান প্রশাসনিক ভবনের (মল্লিক ভবন) দক্ষিণ পাশে মানবিক ও সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ (বর্তমানে [[সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়|সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ]]) ভবনে প্রায় ১৪ হাজার বই নিয়ে ক্ষুদ্র পরিসরে গ্রন্থাগারটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। এরপর অস্থায়ী গ্রন্থাগারাটি বর্তমান ভবনে স্থানান্তরিত করা হয়। ১৯৭৩ সালের ডিসেম্বর মাসের দিকে কিছুদিনের জন্য গ্রন্থাগারটি পুনরায় বর্তমান প্রশাসনিক ভবনে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল। বর্তমানে {{রূপান্তর|৫৬৭০০|ft2}}<ref name="এক টুকরো গ্রাম"/> পরিমিত এলাকা জুড়ে বিস্তৃত এটি চট্টগ্রামের সবচেয়ে বড় ও আধুনিক গ্রন্থাগার।<ref name="মূল্যবান">{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=মূল্যবান বইয়ের সংগ্রহশালা দুষ্প্রাপ্য ও পাণ্ডলিপি শাখা |ইউআরএল=http://oldsite.dailyjanakantha.com/news_view.php?nc=50&dd=2010-10-31&ni=37889 |সংগ্রহের-তারিখ=১৪ মে ২০১৯ |প্রকাশক=[[দৈনিক জনকণ্ঠ]] |তারিখ=৩১ অক্টোবর ২০১০ }}{{অকার্যকর সংযোগ|তারিখ=ডিসেম্বর ২০১৯ |bot=InternetArchiveBot |ঠিক করার প্রচেষ্টা=yes }}</ref>
 
==পরিচালনা==
গ্রন্থাগারটি উপ-উপাচার্যের সভাপতিত্বে নেতৃত্বাধীন বিশ্ববদ্যিালয়ের সকল অনুষদের ডিন সহ ১৪ সদস্যের একটি কমিটি কর্তৃক পরিচালিত। গ্রন্থাগারিক, এই কমিটির সদস্য-সচিব হিসেবে বিবেচিত। এই কমিটি গ্রন্থাগার পরিচালনার যাবতীয় নীতিমালা প্রণয়ন এবং সময়ানুযায়ী গ্রন্থাগারের কার্যক্রমের প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করে।
 
গ্রন্থাগার প্রতিষ্ঠার পর থেকে এযাবৎকাল পর্যন্ত বিভিন্ন মেয়াদে দশজনদশ জন গ্রন্থাগারিকের দায়িত্ব পালন করেছেন। প্রথম প্রতিষ্ঠাতা সহকারি গ্রন্থাগারিক ছিলেন আতাউর রহমান, যিনি ৩১ অক্টোবর ১৯৬৬ থেকে ১৬ অক্টোবর ১৯৬৮ সাল পর্যন্ত এ দায়িত্বে কর্মরত ছিলেন।<ref name="এক টুকরো গ্রাম"/>
 
==ভবন==
[[চিত্র:Reading rooms at Chittagong University Library (04).jpg|থাম্ব|''মুক্তিযুদ্ধ কর্নার'' এবং অন্যান্য শাখা]]
 
গ্রন্থাগারটি একটি ত্রিতল ভবনে অবস্থিত, যেখানে অনুষদভিত্তিক পাঠকক্ষ রয়েছে। প্রতিটি পাঠকক্ষের সাথে শিক্ষকেদর জন্য পৃথক পাঠকক্ষের ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়াও এমফিল[[Master of Philosophy|এম.ফিল]] এবং [[পিএইচডি]] গবেষকদের জন্য রয়েছে ২৪টি গবেষণাকক্ষ।{{sfn|তাহের|২০১০|pp=৭৪}}
 
ভবনের প্রথম তলায় রয়েছে প্রশাসনিক শাখা, গ্রন্থাগার কার্যালয়, সংস্থাপন শাখা, প্রক্রিয়াকরণ শাখা, বাঁধাই শাখা, প্রচার (Lending) শাখা, কলা পাঠকক্ষ, সভা-সিম্পোজিয়ামের জন্য রয়েছে একটি মিলনায়তন,{{sfn|তাহের|২০১০|pp=৭৪}} দৈনিক সংবাদপত্র পাঠকক্ষ এবং নিরাপত্তা শাখা।
 
দ্বিতীয় তলায় রয়েছে বিজ্ঞান, ব্যবসাব্যবসায় প্রশাসন, আইন এবং সামাজিক বিজ্ঞানের জন্য স্বতন্ত্র পাঠকক্ষ। এছাড়াও রয়েছে দুষ্প্রাপ্য ও পাণ্ডুলিপি এবং পুরাতন সযবাদপত্র শাকাশাখা, ফটোকপি শাখা, কম্পিউটার ল্যাব এবং ইন্টারনেট কক্ষ।
 
গ্রন্থাগারের মধ্যবর্তী তলায় রয়েছে রেফারেন্স বা উৎস শাখা, জার্নাল ও সাময়িকী শাখা, এবং গবেষণা কক্ষ।<ref name="{{r|এক টুকরো গ্রাম"/>}} ২০১৬ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ডক্টর [[আর. আই চৌধুরী|আর আই. চৌধুরীর]] নামে একটি কর্ণার স্থাপন করা হয়েছে।<ref name="ক্যামেরা স্থাপন">{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=চবি গ্রন্থাগারে আধুনিকায়ন ও সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন |ইউআরএল=https://new.priyo.com/articles/চবি-গ্রন্থাগারে-আধুনিকায়ন-ও-সিসিটিভি-ক্যামেরা-স্থাপন |প্রকাশক=প্রিয়.কম |সংগ্রহের-তারিখ=১২ মে ২০১৯ |তারিখ=১৮ এপ্রিল ২০১৮ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20190512170120/https://new.priyo.com/articles/%E0%A6%9A%E0%A6%AC%E0%A6%BF-%E0%A6%97%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A5%E0%A6%BE%E0%A6%97%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%86%E0%A6%A7%E0%A7%81%E0%A6%A8%E0%A6%BF%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A6%AF%E0%A6%BC%E0%A6%A8-%E0%A6%93-%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%9F%E0%A6%BF%E0%A6%AD%E0%A6%BF-%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%AE%E0%A7%87%E0%A6%B0%E0%A6%BE-%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%A5%E0%A6%BE%E0%A6%AA%E0%A6%A8 |আর্কাইভের-তারিখ=১২ মে ২০১৯ |অকার্যকর-ইউআরএল=হ্যাঁ }}</ref> এই কর্নারে আর আই চৌধুরীর ব্যক্তিগত সংগ্রহের ১০০৯টি বই এবং ৪৭৭টি জার্নাল সংগ্রহ করা হয়েছে।<ref>{{সংবাদ উদ্ধৃতি |লেখক1=চট্টগ্রাম প্রতিদিন ডেস্ক |শিরোনাম=কালের সাক্ষ্য বহন করে গ্রন্থাগার |ইউআরএল=https://www.banglanews24.com/daily-chittagong/news/bd/486187.details |সংগ্রহের-তারিখ=৩ নভেম্বর ২০১৯ |প্রকাশক=[[বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম]] |তারিখ=৪ মে ২০১৬ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20191103150326/https://www.banglanews24.com/daily-chittagong/news/bd/486187.details |আর্কাইভের-তারিখ=৩ নভেম্বর ২০১৯ |অকার্যকর-ইউআরএল=না }}</ref> ২০১৮ সালে গ্রন্থাগার দপ্তরে বঙ্গবন্ধু কর্ণার স্থাপন করা হয়।<ref name="বঙ্গবন্ধু কর্ণার">{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘বঙ্গবন্ধু কর্ণার’ |ইউআরএল=http://dailypurbodesh.com/চট্টগ্রাম-বিশ্ববিদ্যাল-13/ |সংগ্রহের-তারিখ=১২ মে ২০১৯ |প্রকাশক=[[দৈনিক পূর্বদেশ]] |তারিখ=১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20190512181111/http://dailypurbodesh.com/%E0%A6%9A%E0%A6%9F%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A6%97%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%AE-%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%B6%E0%A7%8D%E0%A6%AC%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%B2-13/ |আর্কাইভের-তারিখ=১২ মে ২০১৯ |অকার্যকর-ইউআরএল=না }}</ref> ২০১৯ সালে গ্রন্থাগারে একটি সাইবার সেন্টার স্থাপন করা হয়।<ref name="সাইবার সেন্টার">{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=চবির গ্রন্থাগারে এবার যুক্ত হলো সাইবার সেন্টার |ইউআরএল=https://www.thedailycampus.com/public-university/19532/চবির-গ্রন্থাগারে-এবার-যুক্ত-হলো-সাইবার-সেন্টার |সংগ্রহের-তারিখ=১২ মে ২০১৯ |প্রকাশক=thedailycampus |তারিখ=৯ মার্চ ২০১৯ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20190512164930/https://www.thedailycampus.com/public-university/19532/%E0%A6%9A%E0%A6%AC%E0%A6%BF%E0%A6%B0-%E0%A6%97%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A5%E0%A6%BE%E0%A6%97%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87-%E0%A6%8F%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%AF%E0%A7%81%E0%A6%95%E0%A7%8D%E0%A6%A4-%E0%A6%B9%E0%A6%B2%E0%A7%8B-%E0%A6%B8%E0%A6%BE%E0%A6%87%E0%A6%AC%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%B8%E0%A7%87%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B0 |আর্কাইভের-তারিখ=১২ মে ২০১৯ |অকার্যকর-ইউআরএল=না }}</ref>
 
===মুক্তিযুদ্ধ কর্নার===
১৯৭১ সালে সংগঠিত [[বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ|মুক্তিযুদ্ধের]] ইতিহাস চর্চার উপযোগী মুক্তিযুদ্ধ কর্নার ২০০৯ সালে চালু করা হয়। তৎকালীন উপাচার্য [[আবু ইউসুফ আলম|আবু ইউসুফ আলমের]] উদ্যোগে এই কর্নার স্থাপিত হয়। এখানে রয়েছে মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস সংবলিত বই ও জার্নালসহ দুর্লভ চিত্রের সংগ্রহ। বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধ কর্নারে মোট বইয়ের সংখ্যা আনুমানিক ১১৩০।<ref name="চবির কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার">{{ওয়েব উদ্ধৃতি |ইউআরএল=http://binodon-sarabela.com/ইতিহাস-ঐতিহ্যের-স্মারক-চ/ |শিরোনাম=ইতিহাস-ঐতিহ্যের স্মারক চবির কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার |লেখক=সাইফ উল আলম, মুবীন কাউসার নুফা, মুমতাহিনা আলম এশা |প্রকাশক=বিনোদন সারাবেলা |সংগ্রহের-তারিখ=৪ মে ২০১৫ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20150315020852/http://binodon-sarabela.com/%e0%a6%87%e0%a6%a4%e0%a6%bf%e0%a6%b9%e0%a6%be%e0%a6%b8-%e0%a6%90%e0%a6%a4%e0%a6%bf%e0%a6%b9%e0%a7%8d%e0%a6%af%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%b8%e0%a7%8d%e0%a6%ae%e0%a6%be%e0%a6%b0%e0%a6%95-%e0%a6%9a/ |আর্কাইভের-তারিখ=১৫ মার্চ ২০১৫ |অকার্যকর-ইউআরএল=না }}</ref> এই কর্নারে রয়েছে দুইটি শাখা। দোতলাদ্বিতল এই শাখায় উপরে রয়েছে ২০টি আসন এবং নিচে দুই সারিতে ৩০টি করে মোট ৬০টি আসন রয়েছে। মুক্তিযুদ্ধ কর্নারের বিপরীত পাশে রয়েছে দুটি বিজ্ঞান পাঠকক্ষ শাখা।<ref name="ইন্টারনেটে সহজলভ্য">{{সংবাদ উদ্ধৃতি |শিরোনাম=ইন্টারনেটে সহজলভ্য বই, পাঠক কমছে চবি গ্রন্থাগারে |ইউআরএল=http://www.dainikshiksha.com/ইন্টারনেটে-সহজলভ্য-বই-পা/77543/ |সংগ্রহের-তারিখ=১৪ মে ২০১৯ |প্রকাশক=dainikshiksha |তারিখ=২০ মার্চ ২০১৭ |আর্কাইভের-ইউআরএল=https://web.archive.org/web/20170323145507/http://www.dainikshiksha.com/%E0%A6%87%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A6%A8%E0%A7%87%E0%A6%9F%E0%A7%87-%E0%A6%B8%E0%A6%B9%E0%A6%9C%E0%A6%B2%E0%A6%AD%E0%A7%8D%E0%A6%AF-%E0%A6%AC%E0%A6%87-%E0%A6%AA%E0%A6%BE/77543/ |আর্কাইভের-তারিখ=২৩ মার্চ ২০১৭ |অকার্যকর-ইউআরএল=না }}</ref>
 
===প্রতিবন্ধী পাঠকক্ষ===
চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন বিভাগের অধ্যয়নরত প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের সুবিধার জন্য গ্রন্থাগার কর্তৃপক্ষ ২০১১ সালে একটি আলাদা পাঠকক্ষ চালু করে। শিক্ষার্থীদের জন্য এখানে ব্রেল[[ব্রেইল পদ্ধতি|ব্রেইল পদ্ধতিতে]] পাঠগ্রহণের ব্যবস্থা রয়েছে। এই পাঠকক্ষে মোট বইয়ের সংখ্যা প্রায় ২০৫ এবং রয়েছে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুযোগ। যদিও প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের তুলনামূলক অনুপস্থিতির কারণে বর্তমানে এটি বন্ধ রয়েছে।<ref name="{{r|চবির কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার"/>}}
 
== বিভাগ ==
{{multiple image
| align = right
}}
 
গ্রন্থাগারে কার্যক্রম মূলত নিম্নলিখিত এই শাখাার মাধ্যমে পরিচালিত হয়ে থাকে:
 
;সংস্থাপন শাখা: যাবতীয় প্রাতিষ্ঠানিক কার্যক্রম এই শাখার থেকে সম্পাদন করা হয়।{{sfn|তাহের|২০১০|pp=৭৪}}
৫৪,০৫৯টি

সম্পাদনা