"বুলগেরীয় ভাষা" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

রামেশ্বর শ'র পরিভাষা অনুযায়ী preposition = পুরঃসর্গ
(রামেশ্বর শ'র পরিভাষা অনুযায়ী preposition = পুরঃসর্গ)
 
==ব্যাকরণ==
বুলগেরীয় ও ম্যাসডোনীয় ভাষার অনেকগুলি বৈশিষ্ট্য এগুলিকে অন্যান্য সব স্লাভীয় ভাষা থেকে স্বতন্ত্র করেছে। দুইটি ভাষাতেই একটি নির্দিষ্টতাসূচক প্রপদ (definite article) আছে, যেটি বিশেষ্যের পরে বসে সেটিকে নির্দিষ্ট করে। বাংলা ভাষাতে "টা", "টি", ইত্যাদি নির্দিষ্টতাসূচক প্রপদের ব্যবহারের সাথে ভাষা দুইটির এইদিক থেকে মিল আছে। বুলগেরীয় ভাষার ক্ষেত্রে নির্দিষ্টতাসূচক প্রপদটি হল "তা"। যেমন বুলগেরীয় ভাষায় ঝ়েনা শব্দের অর্থ মহিলা। এর সাথে নির্দিষ্টতাসূচক প্রপদ "তা" যোগ করলে পাওয়া যায় "ঝ়েনাতা", যার অর্থ "মহিলাটি"। বুলগেরীয় ভাষা ও ম্যাসিডোনীয় ভাষাতে সাধারণ স্লাভীয় ভাষাতে উপস্থিত কারক ব্যবস্থা প্রায় সম্পূর্ণ অনুপস্থিত। ইংরেজির মত এগুলিতেও বিভক্তির সাহায্যে নয়, বরং পূর্বসর্গপুরঃসর্গ (preposition) ব্যবহার করে কারক তথা বাক্যের বিভিন্ন উপাদান-অংশের মধ্যকার ব্যাকরণিক সম্পর্ক প্রকাশ করা হয়। উদাহরণস্বরূপ বুলগেরীয় ভাষাতে "ক্‌নিগাতা জ়া ঝ়েনাতা" বাক্যাংশটির অর্থ "মহিলাটি সম্পর্কিত বই"। এখানে "জ়া" পূর্বসর্গটি দুইটি বিশেষ্যের মধ্যে সম্পর্কবাচক কারক নির্দেশ করছে। আবার "দাদোহ ক্‌নিগাতা না ঝ়েনাতা" বাক্যটির অর্থ "আমি বইটি মহিলাটিকে দিলাম" এই বাক্যে "না" পূর্বসর্গটি দেওয়া ক্রিয়ার সাথে মহিলাটির সম্প্রদান কারক সম্পর্ক নির্দেশ করছে। তবে দুইটি ভাষাতেই স্লাভীয় সম্বোধন কারকের রূপটি এখনও বিদ্যমান। বুলগেরীয় ক্রিয়াগুলির বহু রূপ হতে পারে। সাধারণ বর্তমান, অতীত ও ভবিষ্যৎ কাল, পুরাঘটিত ও অপুরাঘটিত প্রকার, অনির্দিষ্ট (aorist) অতীত, অনুজ্ঞা, ক্রিয়াবাচক ক্রিয়াবিশেষণ, এবং বিভিন্ন ক্রিয়াবাচক বিশেষণ। ক্রিয়ার অসমাপিকা রূপটি বর্তমানে বিলুপ্ত। কিছু কিছু বিশেষ ক্রিয়ারূপ কোন ঘটনার ব্যাপারে সন্দেহ কিংবা সত্যতা কিংবা প্রত্যক্ষদর্শিতা নির্দেশ করতে ব্যবহার করা হয়।
 
==বহিঃসংযোগ==
৪৭,৯৩৬টি

সম্পাদনা