"আলীবর্দী খান" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা
 
আলীবর্দী খানের প্রকৃত নাম [[মির্জা মুহম্মদ আলী]] । তার পিতার নাম [[মির্জা মুহম্মদ]] ।
তিনি [[মুঘল সাম্রাজ্য|মুঘল দরবার]] কর্তৃক [[খান]] উপাধি পেয়েছিলেন। আরব তুর্কি বংশোদ্ভূত [[মির্জা মুহম্মদ বেগ]] [[মুঘল সাম্রাজ্য|মুঘল]] সম্রাট [[আওরঙ্গজেব|আওরঙ্গজেবের]] তৃতীয় পুত্র [[আজম শাহ|আজম শাহের]] দরবারের একজন কর্মকর্তা ছিলেন<ref name="১"/>। আলীবর্দী খানের মা [[ইরান|ইরানের]] [[খোরাসান|খোরাসানের]] এক [[তুর্কি]] উপজাতি থেকে এসেছিলেন। তার পিতামহ [[আওরঙ্গজেব|আওরঙ্গজেবের]] সৎ ভাই ছিলেন। মির্জা মুহম্মদ আলী পূর্ণবয়স্ক হবার পরপরই [[আজম শাহ]] তাকে পিলখানার পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেন<ref name="১"/>।
 
[[১৭০৭]] সালে সম্রাট আওরঙ্গজেবের মৃত্যুর পর তার পুত্রদের মধ্যে গৃহযুদ্ধ শুরু হয় এবং এ যুদ্ধে [[আজম শাহ]] পরাজিত ও নিহত হন<ref name="১"/>। [[আজম শাহে]] এর মৃত্যুর পর তার চাকরি চলে যায় এবং [[মির্জা মুহাম্মদ]] আলীর পরিবার দারুণ সমস্যার সম্মুখীন হয়<ref name="১"/>। ১৭২০ সালে ভাগ্যান্বেষণে তিনি সপরিবারে [[বঙ্গ|বাংলায়]] চলে আসেন। তিনি বাংলার তৎকালীন নবাব [[মুর্শিদ কুলি খান|মুর্শিদ কুলি খানের]] অধীনে চাকরির জন্য চেষ্টা করেন। কিন্তু মির্জা মুহম্মদ আলী মুর্শিদ কুলির জামাতা [[সুজাউদ্দিন খান|সুজাউদ্দিন খানের]] আত্মীয় ছিলেন এবং মুর্শিদ কুলি তার জামাতার প্রতি অসন্তুষ্ট ছিলেন। এজন্য তিনি [[মির্জা মুহম্মদ আলী]] কে গ্রহণ করেন নি<ref name="১"/>।
৫৩টি

সম্পাদনা