"সৎসঙ্গ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎আশ্রমের জায়গার পূর্ব ইতিহাস: এক সময় সারা সাঁওতাল পরগণাটি ছিল বাংলাদেশের অন্তর্ভূক্ত। ১৯১১ সালে চলে যায় বিহার প্রদেশে। কিন্তু বহু বাঙালি রয়ে গেল দেওঘরে।
(→‎আশ্রমের শুরুর ইতিহাস: বেড়ে চলল জ্ঞান, বিজ্ঞান, সেবা ও সত্য সাধনার পরিপোষক বিভিন্ন প্রতিষ্টান। >বেড়ে চলল জ্ঞান, বিজ্ঞান, সেবা ও সত্য সাধনার পরিপোষক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান।)
(→‎আশ্রমের জায়গার পূর্ব ইতিহাস: এক সময় সারা সাঁওতাল পরগণাটি ছিল বাংলাদেশের অন্তর্ভূক্ত। ১৯১১ সালে চলে যায় বিহার প্রদেশে। কিন্তু বহু বাঙালি রয়ে গেল দেওঘরে।)
 
====আশ্রমের জায়গার পূর্ব ইতিহাস====
এক সময় সারা সাঁওতাল পরাগণাটিপরগণাটি ছিল বাংলাদেশের অন্তর্ভূক্ত। ১৯১১ সালে চলে যায় বিহার প্রদেশে। কিন্তু বহু বাঙালি রয়ে গেল দেওঘর।দেওঘরে। স্থানটি স্বাস্থ্যকর বলে অনেক বিশিষ্ট বাঙালি এখানে এসে নিবাস স্থাপন করেছিলেন। দেশবন্ধু এসেও খুলে দিয়েছিলেন একটি বাঙালি কলোনি। এমনি করে কতগুলো বাঙালি পল্লী গড়ে উঠেছিল দেওঘরে। তার মধ্যে একটি বাঙালি পল্লীর নাম পূরণ দহ। এখানে বাড়ি তৈরি করে স্থানীয়ভাবে বাস করতেন ঋষি অরবিন্দ ও বিপ্লবী নায়ক বারীন ঘোষের মাতাসহ রাজর্ষি রাজ নারায়ণ বসু। সেই বাড়ি ও আরো অনেক বাড়ি পরিত্যক্ত হয়ে পড়ে রয়েছিল পূরণ দহে। সেই সব বাড়ি ও আরো কিছু জমি কিনে শ্রীশ্রীঠাকুর স্থাপন করেছিলেন সন্ত মতের ষষ্ঠ কেন্দ্র-দেওঘর সৎসঙ্গ আশ্রম। <ref name="ReferenceA"/>
 
====আশ্রমে অনুষ্ঠিত উৎসবগুলি====
৩১৯টি

সম্পাদনা