"সৎসঙ্গ" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎উদ্দেশ্য: শ্রীশ্রীঠাকুর হলেন ধর্মের মূর্ত্ত আদর্শ। তিনি কোন সম্প্রদায়-বিশেষের নন, বরং সব সম্প্রদায়ই তাঁর।
(সর্বশেষ সম্পাদিত ২টি পরিবর্তন প্রত্যাখ্যান ও NahidSultanBot-এর করা 3738225 নং সংশোধন পুনরুদ্ধার: ধ্বংসপ্রবণতা)
(→‎উদ্দেশ্য: শ্রীশ্রীঠাকুর হলেন ধর্মের মূর্ত্ত আদর্শ। তিনি কোন সম্প্রদায়-বিশেষের নন, বরং সব সম্প্রদায়ই তাঁর।)
 
== উদ্দেশ্য ==
‘সৎসঙ্গ’-এর উদ্দেশ্য মানুষকে সত্যিকারের মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা। সৎসঙ্গ কখনো সম্প্রদায়ে বিশ্বাস করে না। ধর্ম কখনও বহু হয় না-ধর্ম এক। সপারিপার্শ্বিক জীবন-বৃদ্ধির পথে এগিয়ে চলাই ধর্মের প্রধান লক্ষ্য। ধর্ম মূর্ত্ত হয় আদর্শে এবং শ্রীশ্রীঠাকুর হলেন ধর্মের মূর্ত্ত আদর্শ। তিনি কোন সম্প্রদায়-বিশেষের নন, বরং সব সম্প্রদায়ই তার।তাঁর। শ্রীশ্রীঠাকুর বলেছেন-“একজন মানুষের বিনিময়ে আমি একটি সাম্রাজ্য ত্যাগ করতে পারি, কিন্তু একজন মানুষকে ছাড়তে পারি না।”<ref>
“দয়াল ঠাকুর”(শ্রীশ্রীঠাকুর অনুকূলচন্দ্র ও তঁৎ প্রবর্তিত সৎসঙ্গের সংক্ষিপ্ত পরিচয়) পৃষ্ঠা নম্বর:৭১-৭২</ref>
 
৩১৯টি

সম্পাদনা