"জেফ মস" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট - নতুন অনুচ্ছেদ!
(প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট - অনুচ্ছেদ সৃষ্টি!)
(আন্তর্জাতিক ক্রিকেট - নতুন অনুচ্ছেদ!)
 
== প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট ==
১৯৭৬-৭৭ মৌসুম থেকে ১৯৮১-৮২ মৌসুম পর্যন্ত জেফ মসের [[প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেট|প্রথম-শ্রেণীর]] খেলোয়াড়ী জীবন চলমান ছিল। আক্রমণধর্মী বামহাতি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হিসেবে সুনাম কুড়িয়েছেন। ১৯৭৬-৭৭ মৌসুমে ভিক্টোরিয়ার পক্ষে প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। ১৯৭৮-৭৯ মৌসুমে ভিক্টোরিয়ার [[শেফিল্ড শিল্ড|শেফিল্ড শিল্ডের]] শিরোপা জয়ে অপূর্ব ভূমিকা পালন করেন। ঐ মৌসুমে ৬৮.০০ গড়ে ৭৪৮ রান তুলেছিলেন তিনি। তাসত্ত্বেও তাকে অস্ট্রেলিয়া দলে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। এমনকি [[ক্যারি প্যাকার|ক্যারি প্যাকারের]] ব্যবস্থাপনায় [[বিশ্ব সিরিজ ক্রিকেট|বিশ্ব সিরিজ ক্রিকেটে]] শীর্ষসারির ব্যাটসম্যানদের অংশগ্রহণে ক্ষতিগ্রস্ত অস্ট্রেলিয়া দল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পরাজিত সময়কালে তিনি ছিলেন না।
 
১৯৮১-৮২ মৌসুমে ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে স্মরণীয় খেলা উপহার দেন। জাংশন ওভালে অনুষ্ঠিত ঐ খেলায় [[জুলিয়েন ওয়াইনার|জুলিয়েন ওয়াইনারের]] সাথে ৩৯০ রানের জুটি গড়েন।<ref>https://trove.nla.gov.au/newspaper/article/126861735</ref> তৃতীয় উইকেটে সৃষ্ট এ রেকর্ড অদ্যাবধি অস্ট্রেলীয় প্রথম-শ্রেণীর ক্রিকেটে টিকে রয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে ঠিক ২০০ রান করেছিলেন তিনি।
সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র [[টেস্ট ক্রিকেট|টেস্ট]] ও একটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন জেফ মস। ২৪ মার্চ, ১৯৭৯ তারিখে পার্থে সফরকারী পাকিস্তান দলের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর আর তিনি কোন টেস্টে অংশগ্রহণ করেননি। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল।
 
== আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ==
পার্থে [[গ্রাহাম ইয়ালপ|গ্রাহাম ইয়ালপের]] আঘাতপ্রাপ্তির ফলে তিনি খেলেন। এছাড়াও, ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ১৯৭৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের দ্বিতীয় আসরে অস্ট্রেলিয়া দলের সদস্যরূপে মনোনীত হন। তবে, পাকিস্তানের বিপক্ষে কেবল একটিমাত্র খেলায় তিনি অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়েছিলেন।
সমগ্র খেলোয়াড়ী জীবনে একটিমাত্র [[টেস্ট ক্রিকেট|টেস্ট]] ও একটিমাত্র একদিনের আন্তর্জাতিকে অংশগ্রহণ করেছেন জেফ মস। ২৪ মার্চ, ১৯৭৯ তারিখে পার্থে সফরকারী [[পাকিস্তান জাতীয় ক্রিকেট দল|পাকিস্তান দলের]] বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে অভিষেক ঘটে তার। এরপর আর তিনি কোন টেস্টে অংশগ্রহণ করেননি। এটিই তার একমাত্র টেস্টে অংশগ্রহণ ছিল।
 
বিশ্ব সিরিজ ক্রিকেট শুরুর হবার ফলেই কেবল জাতীয় দল নির্বাচকমণ্ডলীর দৃষ্টি আকর্ষণে সক্ষম হন। এ পর্যায়ে অস্ট্রেলিয়া দলের শীর্ষস্থানীয় ক্রিকেটারদের অনুপস্থিতিতে শূন্যতা পূরণে তাকে দলে নেয়া হয়েছিল। ১৯৭৮-৭৯ মৌসুমে পাকিস্তানে দল অস্ট্রেলিয়া গমন করে। সিরিজের চূড়ান্ত টেস্টে তিনি খেলেন। তবে, এ সিরিজের পরপরই ১৯৭৯-৮০ মৌসুমে ভারতে গমনকারী অস্ট্রেলিয়া দলের বাইরের রাখা হয় তাকে।
 
পার্থে [[গ্রাহাম ইয়ালপ|গ্রাহাম ইয়ালপের]] আঘাতপ্রাপ্তির ফলে তিনি খেলেন। এছাড়াও, ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ১৯৭৯ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপের দ্বিতীয় আসরে অস্ট্রেলিয়া দলের সদস্যরূপে মনোনীত হন। তবে, পাকিস্তানের বিপক্ষে কেবল একটিমাত্র খেলায়ওডিআইয়ে তিনি অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়েছিলেন। এরপর ঐ মৌসুমের গ্রীষ্মে ডব্লিউএসসি থেকে খেলোয়াড়দের প্রত্যাবর্তনে টেস্টে অংশগ্রহণের সুযোগ স্তিমিত হয়ে পড়ে তার।
 
ভিক্টোরিয়ার সংসদ সদস্য সিন্ডি ম্যাকলেইসের সাথে পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হন।<ref name=Hanlon>{{cite news|last1=Hanlon|first1=Peter|title=Jeff Moss: 'I dunno whether they know I played cricket'|url=http://www.theage.com.au/sport/cricket/jeff-moss-i-dunno-whether-they-know-i-played-cricket-20141222-12c55u.html|accessdate=23 December 2014|publisher=The Age|date=23 December 2014}}</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==
৭৪,৩৪২টি

সম্পাদনা