"জীববিজ্ঞানের ইতিহাস" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

সম্পাদনা সারাংশ নেই
(নতুন পাতা)
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল অ্যাপ সম্পাদনা অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ সম্পাদনা
'''<big>প্রাচীন মেসোপটেমিয়ায় জীববিজ্ঞান</big>'''
 
প্রাচীন মেসোপটেমিয়ানদের প্রকৃ্তি সম্পর্কেজানার বেশ আগ্রহ ছিল। প্রানী শরীরতত্ত্ব সম্পর্কে তাদের বেশ জ্ঞান ছিল।তবে মেসোপটেমিয়ানরা কিছুটা জাদু বিদ্যার ওপর বিশ্বাসী ছিলো।তারা চিকিৎসার সাথে জাদুবিদ্যার প্রয়োগের ফলে আরোগ্য লাভ হয় বলে মনে করত।পূর্ব সেমিটক সংস্কৃতিতে বংশ পরম্পরায় চিকিৎসা পেশা হিসেবে চিলে চলে আসত এবং এটি অত্যন্ত সম্মান জনক পেশা হিসেবে গন্য হত।এই চিকিৎসকেরা নারী বা পূরুষ উভয়ই হতে পারতেন এবং ক্ষত সারিয়ে তোলা থেকে শুরু করে ছোটখাটো শল্যচিকিৎসাও করেছিলেন।প্রাচীন মেসোপটেমিয়ানরা রোগের বিস্তার রোধেও সাফল্য অর্জন করেন।
 
'''<big>প্রাচীন চীনের সংস্কৃতি</big>'''
মাইক্রোগ্রাফিয়ায় , রবার্ট হুক এই কর্কের টুকরো জাতীয় জৈব কাঠামোর ক্ষেত্রে সেল শব্দটি প্রয়োগ করেছিলেন, তবে ১৯ শতকে বিজ্ঞানীরা কোষকে জীবনের সার্বজনীন ভিত্তি হিসাবে বিবেচনা করেছিলেন।
মাইক্রোস্কোপিক বিশ্বটি যখন প্রসারিত হচ্ছিল, ম্যাক্রোস্কোপিক বিশ্বটি সঙ্কুচিত হচ্ছিল। জন রে এর মতো উদ্ভিদবিজ্ঞানীরা বিশ্বজুড়ে পাঠানো সদ্য আবিষ্কৃত জীবের বন্যাকে একটি সুসংগত টেকনোমিতে এবং একটি সুসংগত ধর্মতত্ত্ব ( প্রাকৃতিক ধর্মতত্ত্ব )গুলিতে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য কাজ করেছিলেন।
 
 
====১৯শতকে: জৈবিক শাখার উত্থান====
বেনামী ব্যবহারকারী