পলাশ: সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

→‎বর্ণনা: তথ্যসূত্র
(সম্প্রসারণ)
(→‎বর্ণনা: তথ্যসূত্র)
পলাশ গাছ সর্বোচ্চ ১৫ মিটার পর্যন্ত উঁচু হয়ে থাকে। শীতে গাছের পাতা ঝরে যায়। এর বাকল ধূসর। শাখা-প্রশাখা ও কাণ্ড আঁকাবাঁকা। নতুন পাতা রেশমের মতো সূক্ষ্ম। গাঢ় সবুজ পাতা ত্রিপত্রী, দেখতে অনেকটা [[মান্দার|মান্দার গাছের]] পাতার মতো হলেও আকারে বড়।
 
বসন্তে এ গাছে ফুল ফোটে। টকটকে লাল ছাড়াও হলুদ ও লালচে কমলা রঙের পলাশ ফুলও দেখা যায়। পলাশ ফুল ছোট, ফুল ২ থেকে ৪ সেঃ মিঃ লম্বা হয়।<ref name="মঞ্জরি">{{cite news |last=আওয়াল |first=শেখ আব্দুল |url=http://web.dailyjanakantha.com/details/article/409095/অরণ্যে-অগ্নিশিখা-ফোটে-বসন্তে-লম্বা-মঞ্জরি/print/ |title=অরণ্যে অগ্নিশিখা ফোটে বসন্তে লম্বা মঞ্জরি |work=[[দৈনিক জনকণ্ঠ]] |location=ঢাকা |publisher=এম এ খান মাসুদ |date=2019-03-12 |accessdate=2019-10-06 }}</ref>
 
পলাশের ফল দেখতে অনেকটা [[শিম|শিমের]] মতো। [[বাংলাদেশ|বাংলাদেশে]] প্রায় সব জায়গাতে কমবেশি পলাশ গাছ দেখতে পাওয়া যায়।<ref name="ক" />
৩৩,৮৬৬টি

সম্পাদনা