"আব্দুল লতিফ চৌধুরী ফুলতলী" পাতাটির দুইটি সংশোধিত সংস্করণের মধ্যে পার্থক্য

বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।
ট্যাগ: মোবাইল সম্পাদনা মোবাইল ওয়েব সম্পাদনা উচ্চতর মোবাইল সম্পাদনা
(বট নিবন্ধ পরিষ্কার করেছে। কোন সমস্যায় এর পরিচালককে জানান।)
 
== জন্ম ও বংশ পরিচয় ==
আল্লামা আব্দুল লতিফ চৌধুরী ১৩২১ বাংলার [[ফাল্গুন]] মাসে অর্থাৎ ১৯১৩ সালের প্রথম দিকে [[সিলেট জেলা]]র [[জকিগঞ্জ উপজেলা]]র ফুলতলী গ্রামে জন্ম গ্রহণ করেন।<ref name="ref">সিলেটে মাওলানা ফুলতলীর ইন্তেকাল, দৈনিক ইত্তেফাক, ১৭ জানুয়ারি ২০০৮</ref> তাঁরতার পিতার নাম মুফতি আব্দুল মজিদ।<ref name="ref1">আল্লামা ফুলতলীর সংক্ষিপ্ত জীবনী, দৈনিক ইনকিলাব, ১৭ জানুয়ারি ২০০৮</ref> তিনি হযরত [[শাহ জালাল]] এর সফরসঙ্গী ৩৬০ আউলিয়ার অন্যতম হযরত শাহ কামাল-এর বংশধর ছিলেন।<ref name="ref2">আল্লামা ফুলতলী ছাহেব কিবলাহ (র.) স্মারক, পৃ. ১৯, প্রকাশক: লতিফিয়া ফাউন্ডেশন, ঢাকা</ref><ref name="ONU">অণুস্মরণীয় জীবনাদর্শ, দৈনিক যুগান্তর, ১৭ জানুয়ারি ২০০৮</ref>
 
== শিক্ষাজীবন ==
* কিরাআত প্রশিক্ষণ কেন্দ্র
* লতিফিয়া দারুল কিরাত সমিতি, ভারত
* আল মজিদিয়া ইভিনিং মাদ্রাসা, ইউকে।<ref name="ifb book 2">হযরত আল্লামা মো. আব্দুল লতীফ চৌধুরী (র.), আহমদ হাসান চৌধুরী, ইসলামী ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ, পৃষ্ঠা: ৮৯-৮২</ref><br />
 
== সন্তান-সন্ততি==
 
== ইন্তেকাল ==
আল্লামা ফুলতলী ১৬ জানুয়ারি ২০০৮ সালে [[সিলেট]] শহরে তাঁরতার প্রতিষ্ঠিত শাহজালাল দারুচ্ছুন্নাহ ইয়াকুবিয়া কামিল মাদরাসা সংলগ্ন বাসভবনে ইন্তেকাল করেন।<ref name="somokal">সিলেটের ফুলতলীর পীর আর নেই, দৈনিক সমকাল, ১৭ জানুয়ারি ২০০৮</ref><ref name="prothomalo">সিলেটের ফুলতলী পীর মাওলানা আব্দুল লতিফ চৌধুরীর ইন্তেকাল, দৈনিক প্রথম আলো, ১৭ জানুয়ারি ২০০৮</ref> ঐদিন বিকাল ৪টা সময় তার গ্রামের বাড়ির পাশে অবস্থিত বালাই হাওরে জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় ইমামতি করেন তাঁরতার বড় ছেলে আল্লামা ইমাদ উদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী। তাঁরতার জানাযায় লাখ লাখ মানুষ অংশগ্রহণ করেন। জানাযা শেষে তার প্রতিষ্ঠিত জামে মসজিদের পাশে তাকে সমাহিত করা হয়। <ref name="ifb book">হযরত আল্লামা মো. আব্দুল লতীফ চৌধুরী (র.), আহমদ হাসান চৌধুরী, ইসলামী ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ, পৃষ্ঠা: ৯৪</ref>
 
== উত্তরসূরী ==
আল্লামা আব্দুল লতিফ চৌধুরীর ইন্তেকালের পর তাঁরতার অনুসারীরা তাঁরতার স্থলাভিষিক্ত হিসেবে মনোনীত করেছেন তাঁরতার বড় ছেলে আল্লামা মোঃ ইমাদ উদ্দিন চৌধুরীকে। আল্লামা মোঃ ইমাদ উদ্দিন প্রাথমিক জীবনে শিক্ষকতা করতেন। ১৯৭৮ সালে সৎপুর কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ থাকাকালে চাকুরী ছেড়ে স্থায়ীভাবে গ্রামের বাড়িতে চলে আসেন। এরপর অবৈতনিকভাবে ইছামতি কামিল মাদ্রাসা ও পরে বাদেদেওরাইল কামিল মাদ্রাসায় অধ্যাপনা করেন। পিতার ইন্তেকালের পর থেকে তিনি পিতার স্থলাভিষিক্ত হিসেবে ভক্ত ও অনুসারীদেরকে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা দিচ্ছেন।<ref name="JUGANTOR">আল্লামা ইমাদ উদ্দীন ফুলতলী পীরের স্থলাভিষিক্ত, দৈনিক যুগান্তর, ২৬ জানুয়ারি ২০০৮</ref><ref name="manobjomin">ফুলতলী পীরের স্থলাভিষিক্ত হওলন বড় ছেলে ইমাদ উদ্দীন, দৈনিক মানবজমিন, ২৬ জানুয়ারি ২০০৮</ref><ref name="inqilab">মাওলানা ইমাদ উদ্দীন চৌধুরী আল্লামা ফুলতলী ছাহেব কিবলাহর স্থলাভিষিক্ত, দৈনিক ইনকিলাব, ২৬ জানুয়ারি ২০০৮</ref>
 
এছাড়াও তাঁরতার অনেক যোগ্য খলিফা রেখে গেছেন তন্মধ্যে অন্যতম হচ্ছেন-
 
* হযরত মাওলানা হবিবুর রহমান, রারাই, জকিগঞ্জ, সিলেট, সাবেক অধ্যক্ষ, ইছামতি কামিল মাদ্রাসা, সিলেট।
* হযরত মাওলানা শুয়াইবুর রহমান বালাউটি।
* হযরত মাওলানা আব্দুল জব্বার, হাইলাকান্দি, ভারত।
তাঁরাতারা তাঁরতার রেখে যাওয়া খেদমত আঞ্জাম দিচ্ছেন। <ref name="book">হযরত আল্লামা মো. আব্দুল লতীফ চৌধুরী (র.), আহমদ হাসান চৌধুরী, ইসলামী ফাউন্ডেশন বাংলাদেশ, পৃষ্ঠা:৯২-৯৪</ref>
 
== তথ্যসূত্র ==
১,৩০,৭৬১টি

সম্পাদনা